kalerkantho


ভারতের হামলার আশঙ্কা করছে পাকিস্তান?

কালের কণ্ঠ ডেস্ক   

২২ সেপ্টেম্বর, ২০১৬ ০০:০০



ভারতের হামলার আশঙ্কা করছে পাকিস্তান?

ভারতের সেনাবাহিনী পাকিস্তান সীমান্তের কাছাকাছি এলাকায় ক্রমেই সরে আসছে। তারা যেকোনো মুহূর্তে পাকিস্তানে হামলা চালাতে পারে।

এমন আশঙ্কার কথা জানিয়ে খবর প্রকাশ করেছে পাকিস্তানের সংবাদমাধ্যম। গত রবিবার ভারত নিয়ন্ত্রিত কাশ্মীরের উরিতে একটি সেনাঘাঁটিতে একদল বন্দুকধারীর হামলায় ১৭ জন সেনা নিহত হওয়ার পর এ পরিস্থিতি তৈরি হয়েছে। ভারতের কর্মকর্তারা ওই হামলার পেছনে পাকিস্তানের পরোক্ষ বা প্রত্যক্ষ ভূমিকা রয়েছে বলে ইঙ্গিত দিয়েছেন।

কাশ্মীর উপত্যকা গতকাল বুধবার ৭৪তম দিনের মতো অচল ছিল। সেখানে বিক্ষোভ ও সংঘর্ষ অব্যাহত রয়েছে। গত ২৪ ঘণ্টায় কাশ্মীরে আরো ৬৪ জন তরুণকে গ্রেপ্তার করা হয়েছে।

উরির হামলার ঘটনায় গতকাল দিল্লিতে নিযুক্ত পাকিস্তানের হাইকমিশনার আবদুল বাসিতকে ভারতের পররাষ্ট্র মন্ত্রণালয়ে তলব করা হয়েছে। পররাষ্ট্র মন্ত্রলণায়ের মুখপাত্র বিকাশ স্বরূপ জানান, পররাষ্ট্রসচিব এস জয়শংকর বাসিতকে বলেছেন, ভারতবিরোধী সন্ত্রাসীগোষ্ঠীগুলো পাকিস্তানের অভ্যন্তরে এখনো সক্রিয় রয়েছে। উরির হামলাস্থলে পাকিস্তানে তৈরি গ্রেনেডসহ বিভিন্ন উপকরণ পাওয়া গেছে বলেও তাঁকে জানানো হয়। জয়শংকর পাকিস্তানের প্রতি ভারতবিরোধী সন্ত্রাসীদের মদদ না দেওয়ার আহ্বান জানান।

উরির হামলার বিষয়টি নিয়ে পাকিস্তানের প্রধানমন্ত্রী নওয়াজ শরিফ সেনাবাহিনী প্রধান জেনারেল রাহিল শরিফের সঙ্গে যুক্তরাষ্ট্র থেকে টেলিফোনে আলাপ করেছেন বলে খবর পাওয়া গেছে।

পাকিস্তানে বিবিসির এক সংবাদদাতা জানান, ভারতের সেনা তত্পরতার ব্যাপারে পাকিস্তানের উত্তরাঞ্চলে বেশ সতর্ক অবস্থা অবলম্বন করা হচ্ছে। পাকিস্তানের রাষ্ট্রীয় বিমান সংস্থা পিআইএর একজন মুখপাত্র জানিয়েছেন, গতকাল সকাল থেকে গিলগিট, স্কার্দু ও চিত্রাল এলাকায় ‘বিমানপথ বন্ধ করে দিয়েছে দেশটির বিমান চলাচল কর্তৃপক্ষ’। বিবিসির সংবাদদাতারা জানান, ভারত পাকিস্তানকে আক্রমণ করতে পারে—এমন আশঙ্কায় এসব ফ্লাইট বন্ধ রাখা হয়েছে বলে ধারণা করা হচ্ছে। ইসলামাবাদ ও পেশোয়ারের মধ্যকার মূল মহাসড়কের কিছু অংশও বন্ধ রাখা হয়েছে। যদিও পাকিস্তানি কর্মকর্তারা জানান, সংস্কারের জন্য মহাসড়ক বন্ধ করা হয়েছে। কিন্তু এই মহাসড়ক যুদ্ধবিমানের ওঠানামায় ব্যবহার করা সম্ভব বলে জানান সাংবাদিকরা।

এদিকে ভারতীয় সেনাঘাঁটিতে রবিবারের হামলার জবাব কিভাবে দেওয়া হবে তা ঠিক করার জন্য সিনিয়র মন্ত্রীদের সঙ্গে এক বৈঠক করেছেন ভারতের প্রধানমন্ত্রী নরেন্দ্র মোদি। গতকালও মন্ত্রিসভার এক বৈঠকে কাশ্মীর নিয়ে আলোচনা করার কথা ছিল। সূত্র জানায়, এই বৈঠকে কাশ্মীর বিষয়ে বেশ কিছু গুরুত্বপূর্ণ সিদ্ধান্ত নেবে ভারত।

সূত্র : বিবিসি, এনডিটিভি।


মন্তব্য