kalerkantho

শনিবার । ১০ ডিসেম্বর ২০১৬। ২৬ অগ্রহায়ণ ১৪২৩। ৯ রবিউল আউয়াল ১৪৩৮।


গাজার পথে ফ্লোটিলা নিয়ে নারী মানবাধিকারকর্মীরা

কালের কণ্ঠ ডেস্ক   

১৬ সেপ্টেম্বর, ২০১৬ ০০:০০



গাজার পথে ফ্লোটিলা নিয়ে নারী মানবাধিকারকর্মীরা

বার্সেলোনা থেকে ২২ নারী মানবাধিকারকর্মী এই দুটি জাহাজে গাজার উদ্দেশে রওনা হয়েছেন। ফাইল ছবি

গাজায় ইসরায়েলি অবরোধ ভাঙার লক্ষ্যে বুধবার স্পেনের বার্সেলোনা থেকে ২২ জন নারী মানবাধিকারকর্মীকে নিয়ে দুটি জাহাজের ফ্লোটিলা বহর রওনা হয়েছে। অবরুদ্ধ ফিলিস্তিনিদের জন্য তারা খাদ্য, ওষুধসহ ত্রাণসামগ্রী সঙ্গে নিয়েছে।

আয়োজকরা জানিয়েছে, জাহাজ দুটির প্রতিটিতে ১১ জন করে মানবাধিকারকর্মী রয়েছেন। তাঁরা বিভিন্ন দেশের নাগরিক। আয়োজকদের একজন জোহার চ্যাম্বারলিন তাঁদের অভিযান সম্পর্কে বলেন, ‘আমাদের বিশ্বাস, নারীদের দ্বারা আয়োজিত এ অভিযানের মাধ্যমে ফিলিস্তিনি নারীদের স্বাধীনতার জন্য লড়াইয়ের গুরুত্বকে আরো বেশি দৃশ্যমান করে তুলতে পারব। ’ এদিকে বৃহস্পতিবার ইসরায়েলি বিমানবাহিনী হামাস নিয়ন্ত্রিত গাজায় বিমান হামলা চালিয়েছে।

নারীদের এই অভিযানের নাম দেওয়া হয়েছে ‘উইমেন্স বোট টু গাজা’। জাহাজে যাত্রী হিসেবে আছেন যুক্তরাষ্ট্র, নরওয়ে, দক্ষিণ আফ্রিকা ও মালয়েশিয়ার নারীরা। যাত্রাপথে তাঁরা ফ্রান্সের অ্যাজাসিও বন্দরসহ আরো কয়েকটি বন্দরে থামবেন। এসব বন্দর থেকে আরো কিছু যাত্রী তাঁদের সঙ্গী হবেন। আশা করা হচ্ছে, অক্টোবরের প্রথম সপ্তাহে তাঁরা গাজায় পৌঁছবেন।

স্পেনে বাস করা ইসরায়েলি নাগরিক চ্যাম্বারলিন এএফপিকে বলেন, ‘অবরোধের কারণ শুধু ফিলিস্তিনিরা দুর্ভোগ পোহাচ্ছে তা নয়, এটা ইসরায়েলিদের আত্মাকে দোষী করছে। ’

গাজায় ইসলামপন্থী দল হামাস নিয়ন্ত্রিত এলাকায় ২০০৬ সাল থেকে সমুদ্র ও আকাশপথে ইসরায়েলের অবরোধ অব্যাহত রয়েছে। তাদের দাবি, এ দুই পথে হামাস যেন সামরিক সরঞ্জাম পেতে না পেরে সে ব্যবস্থা নিশ্চিত করতেই এই অবরোধ আরোপ করা হয়েছে।

এদিকে বিশ্বব্যাংক এবং জাতিসংঘ বলছে, এই অবরোধের ফলে মূলত গাজা থেকে রপ্তানি পুরোপুরি বন্ধ হয়ে গেছে। শুধু তা-ই নয়, এই অবরোধ গাজায় বাস করা ১৯ লাখ ফিলিস্তিনির চলাচলেও ব্যাপক বাধার সৃষ্টি করেছে।

এদিকে গাজায় বিমান হামলা চালানো সম্পর্কে ইসরায়েলি সেনাবাহিনী এক বিবৃতিতে জানিয়েছে, ‘উত্তর গাজায় হামাসের তিনটি ঘাঁটিকে লক্ষ্য করে বিমান হামলা চালানো হয়েছে। গাজা থেকে যেকোনো হামলার জন্য ইসরায়েলের প্রতিরক্ষা বাহিনী হামাসকে দায়ী করে।

বুধবার রাতে গাজা থেকে একটা রকেট ইসরায়েলে আঘাত হানে। এ হামলায় অবশ্য কোনো ক্ষতি হয়নি। গত ২২ আগস্ট এমন এক ঘটনায় ইসরায়েল বিমান ও ট্যাংক নিয়ে গাজায় হামলা চালিয়েছিল। এরপর ২ জুলাইও এক রকেট হামলার জেরে ইসরায়েল গাজায় বিমান হামলা চালিয়েছিল। দুই ঘটনায় অবশ্য তেমন কোনো হতাহতের ঘটনা ঘটেনি। সূত্র : এএফপি।


মন্তব্য