kalerkantho

শনিবার । ১০ ডিসেম্বর ২০১৬। ২৬ অগ্রহায়ণ ১৪২৩। ৯ রবিউল আউয়াল ১৪৩৮।


‘উত্ত্যক্ত করলে ইরানি জাহাজকে তৎক্ষণাৎ গুলি করা হবে’

কালের কণ্ঠ ডেস্ক   

১১ সেপ্টেম্বর, ২০১৬ ০০:০০



 যুক্তরাষ্ট্রের রিপাবলিকান প্রেসিডেন্ট প্রার্থী ডোনাল্ড ট্রাম্প রক্ষণশীলদের আশার বাণী শোনাতে গিয়ে বেশ সুগঠিত বক্তব্য দিলেও পররাষ্ট্রনীতি নিয়ে কথা বলতে গিয়ে তাঁর স্বভাবসুলভ ভঙ্গিই ব্যবহার করেছেন। প্রেসিডেন্ট প্রার্থীর ক্ষেত্রে শোভনীয় ভাষা পরিত্যাগ করে তিনি ইরানি যুদ্ধজাহাজকে গুলি করার কথা বলেন।

গত শুক্রবার ফ্লোরিডায় নির্বাচনী সভায় ট্রাম্প বলেন, ‘ওহ্ হ্যাঁ, ইরান আমাদের সুন্দর সুন্দর রণতরীকে, বিধ্বংসী জাহাজকে যখন তাদের ছোট ছোট নৌযান দিয়ে ঘিরে ফেলার চেষ্টা করে এবং আমাদের মতো হাবভাব দেখানোর চেষ্টা করে, তখন তাদের সেটা করতে দেওয়া উচিত হবে না, তাদের ওখানেই গুলি করা হবে। ’

বলাবাহুল্য, ট্রাম্প যেভাবে বলেছেন, সেভাবে কাজ করলে সেটা যুদ্ধ হিসেবে গণ্য হবে। একজন প্রেসিডেন্ট প্রার্থী হিসেবে পররাষ্ট্রনীতি নিয়ে বিশেষত সর্বদা উত্তপ্ত ওই অঞ্চল প্রসঙ্গে এভাবে কথা বলাটা একেবারেই অস্বাভাবিক বলে মনে করেন বিশ্লেষকরা।

ধারণা করা হচ্ছে, পারস্য উপসাগরে ইরান ও যুক্তরাষ্ট্রের জাহাজ প্রায়ই মুখোমুখি কিংবা কাছাকাছি চলে আসার যেসব ঘটনা ঘটে, ট্রাম্প সেদিকে ইঙ্গিত করে কথাগুলো বলেছেন। গেল সপ্তাহেও এ ধরনের একটি ঘটনা ঘটে। যুক্তরাষ্ট্র নৌবাহিনীর টহল জাহাজের ১০০ গজের মধ্যে চলে আসে ইরানের জাহাজ। যুক্তরাষ্ট্রের নৌবাহিনী এ দূরত্বকে অনিরাপদ এবং অপেশাদারসুলভ বলে মন্তব্য করে। এ ছাড়া গত মাসে ইরানের রেভল্যুশনারি গার্ড কোরের নৌযান লক্ষ্য করে সতর্ক সংকেত হিসেবে যুক্তরাষ্ট্রের নৌবাহিনী তিনবার গুলি করে। যুক্তরাষ্ট্র সরকারের দাবি, ইরানি নৌযান যুক্তরাষ্ট্রের দুটি জাহাজকে হয়রানি করেছে, যার জবাবে এভাবে ইরানকে সতর্ক করা হয়েছে। সূত্র : সিএনএন।


মন্তব্য