kalerkantho

শনিবার । ৩ ডিসেম্বর ২০১৬। ১৯ অগ্রহায়ণ ১৪২৩। ২ রবিউল আউয়াল ১৪৩৮।


৩১ বছর পর রিগ্যানের হত্যাচেষ্টাকারী মুক্ত

কালের কণ্ঠ ডেস্ক   

১১ সেপ্টেম্বর, ২০১৬ ০০:০০



৩১ বছর পর রিগ্যানের হত্যাচেষ্টাকারী মুক্ত

 ১৯৮১ সালে যুক্তরাষ্ট্রের প্রেসিডেন্ট রোনাল্ড রিগ্যানকে হত্যাচেষ্টার অভিযোগে গ্রেপ্তারকৃত জন হিংকলি জুনিয়র ৩১ বছর পর মানসিক হাসপাতাল থেকে ছাড়া পেয়েছেন। ওয়াশিংটনে একটি হোটেলের বাইরে হিংকলির গুলিতে প্রেসিডেন্ট রিগ্যানসহ মোট চারজন আহত হন।

আদালতে হিংকলি মানসিক বিকারগ্রস্ত বলে প্রমাণিত হওয়ায় তাঁকে দোষী সাব্যস্ত করা হয়নি। তবে  চিকিৎসার জন্য তাঁকে ওয়াশিংটনের একটি মানসিক হাসপাতালে পাঠানো হয়। এ বছর জুলাইয়ে আদালত ৬১ বছর বয়সী হিংকলিকে ছেড়ে দেওয়ার নির্দেশ দেন। রায়ে বলা হয়, হিংকলি নিজের বা জনগণের জন্য এখন আর বিপজ্জনক নন।

হিংকলির সর্বশেষ চিকিৎসা প্রতিবেদনে বলা হয়, ‘১৯৮৩ সালের পর থেকে হিংকলির মধ্যে মানসিক রোগের লক্ষণ নেই। ’ এই প্রতিবেদনের ভিত্তিতে ইউএস ডিস্ট্রিক্ট জজ পল ফ্রাইডম্যান এই রায় দেন।

এরই মধ্যে হিংকলি কঠোর শর্তের অধীনে মাসের ১৭ দিন ভার্জিনিয়ায় তাঁর মায়ের বাড়িতে বসবাস শুরু করেছেন। হাসপাতাল থেকে ছেড়ে দেওয়া হলেও হিংকলিকে বেশ কিছু শর্ত মেনে চলতে হবে। সেগুলো হলো—তিনি গণমাধ্যমে কথা বলতে পারবেন না, সপ্তাহে তিন দিন কাজ করতে হবে, ভার্জিনিয়ায় মায়ের বাড়ি থেকে নিজে গাড়ি চালিয়ে ৩০ মাইলের বেশি যেতে পারবেন না এবং মাসে দুবার মানসিক রোগের চিকিৎসকের কাছে যেতে হবে।

রিগ্যানের ক্ষমতা গ্রহণের কয়েক সপ্তাহের মধ্যে তাঁকে গুলির ঘটনায় বিশ্বে সাড়া পড়ে। প্রেসিডেন্টের ফুসফুসে গুলি লেগেছিল। তাঁর প্রেসসচিব জেমস ব্রাডির মাথায় গুলি লাগে। এতে তাঁর মস্তিষ্ক ক্ষতিগ্রস্ত হয় এবং জীবনের বাকি সময় তাঁকে হুইল চেয়ারে কাটাতে হয়েছিল। ২০১৪ সালে ৭৩ বছর বয়সে মারা যান তিনি। এ ছাড়া রিগ্যানের নিরাপত্তায় নিয়োজিত আইনশৃঙ্খলা রক্ষাকারী বাহিনীর দুই সদস্য আহত হয়েছিলেন।

হলিউড অভিনেত্রী জোডি ফস্টারের প্রতি এক ধরনের আসক্তি থেকে হিংকলি রিগ্যানকে গুলি করেছিলেন। সূত্র : বিডিনিউজ।


মন্তব্য