kalerkantho


ইসরায়েলি গবেষকদের দাবি

ফিলিস্তিনের প্রেসিডেন্ট আব্বাস কেজিবির চর ছিলেন!

কালের কণ্ঠ ডেস্ক   

৯ সেপ্টেম্বর, ২০১৬ ০০:০০



ফিলিস্তিনের প্রেসিডেন্ট আব্বাস কেজিবির চর ছিলেন!

ফিলিস্তিনের প্রেসিডেন্ট মাহমুদ আব্বাস সাবেক সোভিয়েত ইউনিয়নের গুপ্তচর সংস্থা কেজিবির চর ছিলেন বলে দাবি করেছেন ইসরায়েলের একদল গবেষক। তাঁরা বলেছেন, আশির দশকে সিরিয়ার রাজধানী দামেস্কে থাকাকালে আব্বাস কেজিবির চর হিসেবে কাজ করেছেন। যুক্তরাজ্যের ক্যামব্রিজ ইউনিভার্সিটির চার্চিল আর্কাইভ সেন্টারে থাকা কিছু দলিল-দস্তাবেজে এ তথ্য মিলেছে বলে গবেষকরা দাবি করেন।

রাশিয়ার প্রেসিডেন্ট ভ্লাদিমির পুতিন যখন নতুন করে ফিলিস্তিন ও ইসরায়েলের মধ্যে শান্তি আলোচনা শুরুর উদ্যোগ নিয়েছেন, তখনই ইসরায়েলি গবেষকরা এমন দাবি করলেন।

ইসরায়েলি গবেষকদের এ দাবি নাকচ করে দিয়েছেন আব্বাসের এক মুখপাত্র। তিনি একে ফিলিস্তিনি নেতার চরিত্রে কলঙ্ক লেপনের এক উদ্ভট চেষ্টা বলে অভিহিত করেছেন।

গত বুধবার রাতে ইসরায়েলের সরকারি টেলিভিশনে এক অনুষ্ঠানে গিদেওন রেমেজ ও ইসাবেলা গিনর নামের দেশটির দুই গবেষক জানান, তাঁরা সম্প্র্রতি ক্যামব্রিজ ইউনিভার্সিটির আর্কাইভে কিছু দলিল খুঁজে পেয়েছেন। এতে দেখা গেছে, আব্বাস দামেস্কে থাকাকালে কেজিবির চর হিসেবে কাজ করেছেন। তাঁদের ভাষ্য, যে দলিল তাঁরা খুঁজে পেয়েছেন, তাতে আব্বাসকে ১৯৮৩ সালে দামেস্কে সোভিয়েত অনুচর বলে বর্ণনা করা হয়েছে। ভাসিলি মিত্রোখিন নামের কেজিবির এক গুপ্তচর পক্ষ ত্যাগ করে হাজার হাজার পৃষ্ঠার দলিল ব্রিটিশদের হাতে তুলে দিয়েছিলেন। এ ধরনের একটি দলিলে আব্বাসকে চর বলে বর্ণনা করা হয়েছে।

ইসাবেলা গিনর বলেন, “১৯৮৩ সালে আব্বাস কেজিবির হয়ে ‘ক্রোটভ’ কোড নামে কাজ করেছেন। ” আব্বাস জীবনের একটি সময়ে দামেস্কে থেকেছেন এবং সেখানে পড়াশোনা করেছেন। তবে কখন কিভাবে কেজিবি তাঁকে ‘চর’ হিসেবে নিয়োগ করে, তা বিস্তারিত জানাননি ইসরায়েলি গবেষকরা।

সূত্র : বিবিসি ।


মন্তব্য