kalerkantho


‘বাগদাদিকে বিচারের স্বাদ পেতেই হবে’

সিরিয়ায় স্পেশাল ফোর্সের উপস্থিতি বাড়াবে পেন্টাগন

কালের কণ্ঠ ডেস্ক   

৩ এপ্রিল, ২০১৬ ০০:০০



যুক্তরাষ্ট্র বলেছে, ইসলামিক স্টেটের (আইএস) নেতা আবু বকর আল-বাগদাদিকে বিচারের স্বাদ পেতেই হবে। সেই বিচার হতে পারে ক্ষেপণাস্ত্রের মাধ্যমে, কিংবা কারাভোগের মাধ্যমে। আইএসের শীর্ষস্থানীয় নেতাদের অবস্থান লক্ষ্য করে চলমান মার্কিন অভিযানের মধ্যে শুক্রবার এ হুঁশিয়ারি দিয়েছেন যুক্তরাষ্ট্রের সামরিক বাহিনীর মুখপাত্র কর্নেল স্টিভ ওয়ারেন।

এদিকে রয়টার্স জানিয়েছে, আইএসের বিরুদ্ধে অভিযান জোরদারে সিরিয়ায় স্পেশাল ফোর্সের উপস্থিতি বাড়ানোর সিদ্ধান্ত নিয়েছে যুক্তরাষ্ট্র। তবে নতুন করে কত সেনা মোতায়েন করা হবে, তা এখনো জানা যায়নি।

২০১৪ সাল থেকে ইরাক ও সিরিয়ার বড় একটি অংশ দখলে রেখেছে আইএস। স্টিভ ওয়ারেন জানান, বাগদাদি দুই দেশেই অবস্থান করেন। তিনি বলেন, ‘আমরা তাঁকে খুঁজছি এবং আমরা তাঁকে পেয়ে যাব; যেভাবে আমরা খুঁজে পেয়েছি এবং হত্যা করেছি তাঁর পরামর্শদাতা আবু মুসাবকে, যেভাবে আমরা খুঁজে বের করে হত্যা করেছি ওসামা বিন লাদেনকে। ’

ওই মুখপাত্র আরো বলেন, ‘আমি জানি না বাগদাদির বিচার কিভাবে কার্যকর হবে। তা হতে পারে ছোড়া মিসাইলের মাধ্যমে কিংবা কারাবাসের মাধ্যমে। ’

কয়েক সপ্তাহ ধরেই আইএসের শীর্ষস্থানীয় নেতাদের অবস্থান লক্ষ্য করে হামলা চালিয়ে আসছে যুক্তরাষ্ট্র। এর মধ্যে আইএসের প্রতিরক্ষামন্ত্রী ওমর আল শিশানি গত মাসে নিহত হয়েছেন।

বাগদাদির সন্ধান দেওয়ার জন্য এক কোটি ডলার পুরস্কার ঘোষণা করেছে যুক্তরাষ্ট্র। আর ৭০ লাখ ডলার দেওয়া হবে আইএসের সেকেন্ড-ইন-কমান্ড মুস্তফা আল-কাদুলির সন্ধান দিলে। কাদুলিকে ধরা হয় বাগদাদির উত্তরসূরি।

গণকবরের সন্ধান : সিরিয়ার পালমিরা শহরে একটি গণকবরের সন্ধান পেয়েছে সরকারি সেনারা। তাতে ৪২ জনের দেহাবশেষ পাওয়া গেছে। গতকাল শনিবার সিরিয়ার সামরিক বাহিনী জানায়, গণকবরটিতে তিন শিশুসহ ২৪ বেসামরিক লোক ও ১৮ সেনার দেহাবশেষ পাওয়া গেছে।

তাদের গুলি কিংবা শিরশ্ছেদ

করে হত্যা করা হয়েছে।

সূত্র : এএফপি, রয়টার্স।


মন্তব্য