kalerkantho


মিসরীয় বিমান ‘ছিনতাইকারী’ ৮ দিনের রিমান্ডে

কালের কণ্ঠ ডেস্ক   

৩১ মার্চ, ২০১৬ ০০:০০



মিরসীয় বিমান ‘ছিনতাইকারী’ সাইফ এলদিন মুস্তফাকে গতকাল বুধবার প্রথমবারের মতো সাইপ্রাসের লারকানার একটি আদালতে তোলা হয়। আদালত তাঁকে আট দিনের রিমান্ডে নেওয়ার নির্দেশ দিয়েছেন। পুলিশ জানিয়েছে, মুস্তফার বিরুদ্ধে ছিনতাই, যাত্রীদের অপহরণ, বিস্ফোরক থাকার মিথ্যা তথ্য ও সন্ত্রাসবাদী কর্মকাণ্ডের হুমকি দেওয়ার অভিযোগ আনা হতে পারে। দোষী সাব্যস্ত হলে মুস্তফার দীর্ঘদিনের কারাদণ্ড হতে পারে।

গত মঙ্গলবার মিসরের স্থানীয় সময় সকাল ৮টায় ইজিপ্ট এয়ারের বিমানটি আলেকজান্দ্রিয়া থেকে ৬২ জন আরোহী নিয়ে উড্ডয়ন করে। এর কিছু সময় পরই সেটি ছিনতাইয়ের শিকার হয়। পরে বিমানটি সাইপ্রাসে জরুরি অবতরণে বাধ্য করা হয়। পাইলট দাবি করেছেন, ‘ছিনতাইকারী’ নিজের শরীরে বিস্ফোরক বেল্ট রয়েছে বলে হুমকি দিয়ে বিমানটি সাইপ্রাসে অবতরণে বাধ্য করেন। অবশ্য পরে ছিনতাই ঘটনার অবসান ঘটলে দেখা যায়, মুস্তফার ঘোষিত বিস্ফোরক বেল্টটি আসলে ভুয়া।

৫৮ বছর বয়সী মুস্তফাকে গতকাল লারনাকার আদালতে হাজির করা হয়। গতকাল পর্যন্ত তাঁর বিরুদ্ধে আনুষ্ঠানিক অভিযোগ আনা না হলেও পুলিশ জানিয়েছে, তাঁর বিরুদ্ধে ছিনতাই, বিস্ফোরক থাকার মিথ্যা তথ্য, অপহরণ এবং সন্ত্রাসবাদী কর্মকাণ্ডের হুমকি দেওয়ার অভিযোগ আনা হবে। আদালত তাঁর বিরুদ্ধে অভিযোগ গঠনের উদ্দেশ্যে তাঁকে আট দিন রিমান্ডে রাখার নির্দেশ দিয়েছেন। মুস্তফাকে আদালতে হাজির করা হলে তিনি সাংবাদিকদের বিজয় চিহ্ন দেখান।

এদিকে বিবিসির এক খবরে বলা হয়েছে, মিসরে মুস্তফার স্বজনদেরও জিজ্ঞাসাবাদ করা হচ্ছে। এরই মধ্যে বিমানবন্দরে মুস্তফার সিকিউরিটি চেক পার হওয়ার ভিডিও প্রকাশ করা হয়েছে।

এদিকে গত অক্টোবরে সিনাইয়ে রুশ বিমান উড়িয়ে দেওয়ার পর বিমানবন্দরে নেওয়া কঠোর নিরাপত্তাব্যবস্থার মধ্যেও কী করে মুস্তফা পার হয়ে গেলেন তা নিয়ে প্রশ্ন উঠেছে। মিসরের স্বরাষ্ট্র মন্ত্রণালয় থেকে প্রকাশিত সিসিটিভি ফুটেজে দেখা যায়, মুস্তফা দুটি সিকিউরিটি চেক পার হচ্ছেন এবং এক্স-রে মেশিন দিয়ে ব্যাগ টেনে নিয়ে যাচ্ছেন। সূত্র : এএফপি, এবিসি নিউজ, বিবিসি।


মন্তব্য