kalerkantho

বৃহস্পতিবার । ১৯ জানুয়ারি ২০১৭ । ৬ মাঘ ১৪২৩। ২০ রবিউস সানি ১৪৩৮।


ধনী দেশগুলোকে আরো সিরীয় শরণার্থী নেওয়ার আহ্বান

কালের কণ্ঠ ডেস্ক   

৩০ মার্চ, ২০১৬ ০০:০০



ব্রিটেনসহ অন্য দেশগুলোর আরো বেশি করে সিরীয় শরণার্থী নেওয়া উচিত বলে মনে করে ব্রিটিশ দাতব্য সংস্থা অক্সফাম। সংস্থাটি আশা করে, এ বছরের শেষ নাগাদ সিরিয়ার মোট ৪৮ লাখ উদ্বাস্তুর মধ্যে অন্তত ১০ শতাংশ কোনো না কোনো দেশে আশ্রয় পাবে।  

এই সংকট নিয়ে জেনেভায় জাতিসংঘ আলোচনার আগে নতুন এক বিশ্লেষণে এসব তথ্য জানাল সংস্থাটি। আজ থেকে এ সম্মেলন অনুষ্ঠিত হওয়ার কথা। অক্সফামের হিসাবে, এখন পর্যন্ত ১.৪ শতাংশ উদ্বাস্তু সহায়তা পেয়েছে। ব্রিটেন ২০২০ সালের মধ্যে ২০ হাজার শরণার্থীকে আশ্রয় দেওয়ার পরিকল্পনা করছে, যা সংস্থাটির দৃষ্টিতে ‘পর্যাপ্ত নয়’। তবে ব্রিটেন জানিয়েছে, ওই অঞ্চলের উদ্বাস্তুদের ত্রাণ সহায়তা দেওয়ারও পরিকল্পনা রয়েছে তাদের। শরণার্থীদের ২৩০ কোটি পাউন্ড দেওয়া হবে। তবে অক্সফাম মনে করে, ব্রিটেন আরো বেশি কিছু করতে পারে এবং করা উচিত। তাদের যুক্তি, যেসব দেশের অর্থনীতি শক্তিশালী এবং অবকাঠামো উন্নত তাদের উদ্বাস্তুদের প্রতি দায়িত্ব লেবানন বা জর্দানের মতো দেশগুলোর চেয়ে আরো বেশি। অথচ এসব দেশেই হাজার হাজার সিরীয় উদ্বাস্তু আশ্রয় নিয়েছে।

অক্সফাম মনে করে, এ ক্ষেত্রে আশু সমাধানের জন্য জেনেভা সম্মেলনে সিদ্ধান্ত নিতে হবে। সংস্থাটি অর্গানাইজেশন ফর ইকোনমিক কো-অপারেশন অ্যান্ড ডেভলপমেন্টের  (ওইসিসি) ২৮টি সদস্য রাষ্ট্র এবং ১৯৫১ সালের শরণার্থী সম্মেলনে স্বাক্ষরকারীদের দেওয়া প্রতিশ্রুতি পর্যবেক্ষণ করে দেখছে। এই দেশগুলো এক লাখ ৩০ হাজার উদ্বাস্তু নেওয়ার প্রতিশ্রুতি দিয়েছিল। তবে সেখানে মাত্র ৬৭ হাজার উদ্বাস্তু পৌঁছেছে। অক্সফাম চায় এ বছরের শেষ নাগাদ অন্তত ১০ শতাংশ সিরীয় উদ্বাস্তুকে ধনী দেশগুলো গ্রহণ করবে।

অক্সফামের প্রধান নির্বাহী কর্মকর্তা মার্ক গোলড্রিং বলেন, ‘খুব দুর্ভাগ্যজনক যে মানুষ যখন সিরিয়া ছেড়ে পালাচ্ছে, তখন অন্য দেশগুলো তাদের নিরাপদ আশ্রয় দিতে ব্যর্থ হচ্ছে। ’ সূত্র : বিবিসি।


মন্তব্য