kalerkantho


পাকিস্তানজুড়ে শোক

কালের কণ্ঠ ডেস্ক   

২৯ মার্চ, ২০১৬ ০০:০০



 পাকিস্তানজুড়ে শোক

পাকিস্তানে আত্মঘাতী বোমা হামলায় নিহত ব্যক্তিদের স্বজনদের আহাজারি। লাহোরের গতকালের চিত্র। ছবি : এএফপি

খ্রিস্টানদের অন্যতম উৎসব ইস্টার সানডেতে পাকিস্তানের লাহোরে চালানো আত্মঘাতী বোমা হামলায় গতকাল সোমবার পর্যন্ত নিহতের সংখ্যা ৭২ জন দাঁড়িয়েছে। এদের মধ্যে ২৯টি শিশু।

খ্রিস্টানদের লক্ষ্য করে পাঞ্জাব প্রদেশের রাজধানীতে চালানো ওই হামলায় হতাহতদের বেশির ভাগই মুসলমান বলে জানায় কর্তৃপক্ষ।

এ ঘটনায় পাঞ্জাবজুড়ে গতকাল থেকে তিন দিনের শোক পালিত হচ্ছে। পাকিস্তানজুড়ে পালিত হয় এক দিনের শোক। ঘটনায় শোক প্রকাশ করে প্রধানমন্ত্রী নওয়াজ শরিফ তাঁর ব্রিটেন সফর বাতিল করেছেন। এরই মধ্যে তিনি আহতদের দেখতে হাসপাতালে যান এবং এমন ঘটনার পর করণীয় নিয়ে নিরাপত্তা কর্মকর্তাদের সঙ্গে বৈঠক করেন।

লাহোরের দক্ষিণ-পশ্চিমে গুলশান-ই-ইকবাল পার্কে রবিবার বিকেলে ওই হামলা হয়। লাহোর শহর প্রশাসনের একজন মুখপাত্র জানান, নিহতদের পরিচয় শনাক্ত করতে গিয়ে এ পর্যন্ত তাঁরা মাত্র ১০-১৫ জন খ্রিস্টান বলে জানতে পেরেছেন। জ্যেষ্ঠ পুলিশ কর্মকর্তা হায়দার আশরাফ জানিয়েছেন, নিহতদের বেশির ভাগই মুসলমান। গতকাল পর্যন্ত নিহত ৭২ জনের মধ্যে ২৯টি শিশু রয়েছে বলে তিনি নিশ্চিত করেন।

এ ছাড়া পুলিশ, উদ্ধারকর্মীসহ বিভিন্ন সূত্রের বরাতে প্রায় ৩০০ জন আহত হওয়ার তথ্য পাওয়া গেছে।

প্রতিবেশী ভারতের প্রধানমন্ত্রী নরেন্দ্র মোদি এ ঘটনায় নওয়াজ শরিফকে টেলিফোন করে শোক জানিয়ে বলেন, ‘পাকিস্তানি ভাইদের এই শোকের সময় ভারতের জনগণ তাদের সঙ্গে আছে। ’ যুক্তরাষ্ট্র এ হামলাকে ‘কাপুরুষোচিত’ আখ্যা দিয়েছে। নিন্দা এসেছে ভ্যাটিকান থেকেও। মালালা ইউসুফজাই টুইটবার্তায় পাকিস্তান ও বাকি বিশ্বের ঐক্যবদ্ধতা আবশ্যক বলে উল্লেখ করেছেন। জাতিসংঘ মহাসচিব বান কি মুন পাকিস্তানের ধর্মীয় সংখ্যালঘুদের সুরক্ষা নিশ্চিত করতে সরকারের প্রতি আহ্বান জানান।

পাকিস্তানের তেহরিক-ই-তালেবান থেকে বিচ্ছিন্ন হয়ে যাওয়া জামায়াত-উল-আহরার এ হামলার দায় স্বীকার করেছে। জঙ্গি গোষ্ঠীটির মুখপাত্র এহসানুল্লাহ এহসান গতকাল সোমবার এএফপিকে টেলিফোনে বলেন, ‘খ্রিস্টানদের লক্ষ্য করে আমরাই লাহোরে হামলা চালিয়েছি। ’ সরকারি ও সেনা পরিচালিত বিদ্যালয়ে জামায়াত-উল-আহরার আরো হামলা চালাবে বলে হুঁশিয়ারি দিয়েছেন এহসান।

পুলিশ কর্মকর্তা আশরাফ বলেন, ‘খ্রিস্টানরা এ হামলার সুনির্দিষ্ট লক্ষ্য ছিল না। কারণ নিহতদের বেশির ভাগই মুসলমান। ’ লক্ষ্য খ্রিস্টানরা হলেও জঙ্গিরা কেন গির্জা বাদ দিয়ে পার্ক বেছে নিল, এ সম্পর্কে খ্রিস্টানদের সংগঠন ন্যাশনাল কমিশন ফর জাস্টিস অ্যান্ড পিসের সেসিল শেন চৌধুরী বলেন, ‘জঙ্গিরা সহজ লক্ষ্যবস্তু বেছে নিয়েছিল। কারণ লাহোরের গির্জাগুলোতে কড়া নিরাপত্তাব্যবস্থা ছিল। ’

পাকিস্তানে ২০ কোটি মানুষের ১.৬ শতাংশ খ্রিস্টান। এর আগে গত বছর মার্চে লাহোরেই গির্জায় চালানো দুটি আত্মঘাতী হামলায় ১৭ জন নিহত হয়। সূত্র : এএফপি, বিবিসি।


মন্তব্য