kalerkantho

শুক্রবার । ২০ জানুয়ারি ২০১৭ । ৭ মাঘ ১৪২৩। ২১ রবিউস সানি ১৪৩৮।


ইউরোপজুড়ে সন্ত্রাসবিরোধী অভিযান জোরদার

বেলজিয়ামে এক সন্দেহভাজন গুলিবিদ্ধ

কালের কণ্ঠ ডেস্ক   

২৭ মার্চ, ২০১৬ ০০:০০



ইউরোপজুড়ে সন্ত্রাসবিরোধী অভিযান জোরদার

ব্রাসেলস হামলায় জড়িত সন্ত্রাসীদের পাকড়াও করতে সাঁড়াশি অভিযান চালাচ্ছে বেলজিয়ামের পুলিশ। এমন এক অভিযানে গত শুক্রবার এক সন্দেহভাজন গুলিবিদ্ধ হয়েছে। এ ছাড়া ওই দিন পর্যন্ত বেলজিয়াম, ফ্রান্স ও জার্মানিতে অন্তত ১২ সন্দেহভাজনকে আটক করে পুলিশ। তবে কয়েকজনকে পরে ছেড়েও দেওয়া হয়েছে।

 

ফ্রান্স বলেছে, ব্রাসেলস হামলাকারীদের সঙ্গে যোগসাজশ থাকা একটি চক্র ব্রাসেলস ও প্যারিসে আবার বড় ধরনের হামলার ছক কষেছিল। সেই হামলার ছক‘ভেস্তে দেওয়া’ সম্ভব হয়েছে। এরপর বেলজিয়ামসহ প্রতিবেশী দেশ ফ্রান্স ও জার্মানি এবং ইউরোপের অন্যান্য দেশে তল্লাশি অভিযান আরো জোরদার করা হয়েছে।

গত মঙ্গলবার ব্রাসেলসে বিমানবন্দর ও মেট্রো স্টেশনে জোড়া হামলার ঘটনায় ৩১ জন নিহত হয়। নিহত ব্যক্তিদের গভীর শ্রদ্ধাভরে স্মরণ করছে বেলজিয়ামবাসী। তবে একই সঙ্গে তারা ক্ষুব্ধও হচ্ছে। তাদের অভিযোগ, সরকারের ব্যর্থতার কারণে সন্ত্রাসীরা নাগালের বাইরে চলে যাচ্ছে।

মঙ্গলবারের পর বিমানবন্দর খুলবে : রাজধানী ব্রাসেলসের ব্যস্ততম জাভেনতেম বিমানবন্দর আগামী মঙ্গলবারের আগে খুলছে না। বিমানবন্দর কর্তৃপক্ষ গতকাল শনিবার এক বিবৃতিতে জানায়, নতুন নিরাপত্তাব্যবস্থা পর্যবেক্ষণ ও বিমানবন্দরের ক্ষতিগ্রস্ত অংশ মেরামতের পর আগামী মঙ্গলবার বিমানবন্দরের কার্যক্রম পুনরায় শুরু হবে। গত মঙ্গলবার ওই বিমানবন্দরে হামলা হয়।

তবে নতুন কী নিরাপত্তাব্যবস্থা নেওয়া হয়েছে, সে বিষয়ে কর্তৃপক্ষ কিছু জানায়নি। সন্ত্রাসী হামলার পর অভিযোগ ওঠে, বিমানবন্দরে নিরাপত্তাব্যবস্থা ঢিলেঢালা ছিল। বহির্গমন হল পর্যন্ত যাত্রী যাওয়ার ক্ষেত্রে নিয়মমাফিক তল্লাশি করা হয়নি বলেও সমালোচনা চলছে।

‘ব্রাসেলস প্রসঙ্গে আবদেসলাম চুপ’ :ব্রাসেলস হামলা নিয়ে কোনো কথা বলতে নাকি রাজি নয় সালাহ আবদেসলাম। এ হামলার ব্যাপারে প্রশ্ন করলে সে সাফ জানিয়েছে, কোনো উত্তর সে দেবে না। বেলজিয়ামের কৌঁসুলিরা এ কথা জানিয়েছেন। বেলজিয়ামের বিচারমন্ত্রী কোয়েন গিনসও পার্লামেন্টে বলেন, ব্রাসেলস হামলা নিয়ে আবদেসলাম কোনো কথা বলতে রাজি হয়নি।

প্রধান সন্দেহভাজন নিয়ে ধোঁয়াশা : ব্রাসেলস হামলার প্রধান সন্দেহভাজনকে নিয়ে এর আগে নানা নাটকীয়তা হয়। বেলজিয়াম পুলিশের সন্ত্রাসবিরোধী ইউনিট ব্রাসেলসে একটি এলাকায় অভিযান চালিয়ে একজনকে গ্রেপ্তার করে। তবে তার পরিচয় গোপন রাখা হয়। এরপর স্থানীয় গণমাধ্যমে চাউর হয়, গ্রেপ্তার হওয়া ব্যক্তির নাম নাজিম লাশরাউয়ি (২৫)। সেই হামলার প্রধান সন্দেহভাজন। তবে কৌঁসুলি ভন লিউ এমন খবর অস্বীকার করেন। তিনি বলেন, হামলার প্রধান সন্দেহভাজন এখনো পলাতক। এ অবস্থায় গতকাল নতুন আরেক সন্দেহভাজনের বিরুদ্ধে গ্রেপ্তারি পরোয়ানা জারি করেছে বেলজিয়াম।

কর্তৃপক্ষ জানায়, নাজিম প্যারিস হামলার ঘটনায় পরোয়ানাভুক্ত আসামি। ওই হামলায় ব্যবহৃত অন্তত দুটি বিস্ফোরক বেল্টে তার ডিএনএ পাওয়া যায়। এ ছাড়া শুক্রবার ব্রাসেলসের যে গোপন আস্তানা থেকে আবদেসলামকে গ্রেপ্তার করা হয়, সেখানেও নাজিমের ডিএনএ পাওয়া গেছে।

হামলায় নিহতরা বিভিন্ন দেশের নাগরিক : ব্রাসেলসে হামলায় নিহত ৩১ ব্যক্তি ১২টি দেশের নাগরিক। নিহতদের মধ্যে মরক্কো, পেরু, চীন ও যুক্তরাষ্ট্র ছাড়াও প্রতিবেশী ফ্রান্স ও নেদারল্যান্ডসের নাগরিকও রয়েছে। এই বর্বরোচিত হামলায় নিহতদের মধ্যে একজন জার্মান নাগরিক রয়েছে। স্পেনের এক নাগরিকের মৃত্যুর বিষয়টি নিশ্চিত করা হয়েছে। সূত্র : এএফপি, বিবিসি।


মন্তব্য