kalerkantho

বুধবার । ১৮ জানুয়ারি ২০১৭ । ৫ মাঘ ১৪২৩। ১৯ রবিউস সানি ১৪৩৮।


ঘৃণার বিরুদ্ধে এক হতে সোচ্চার বেলজিয়ামবাসী

কালের কণ্ঠ ডেস্ক   

২৪ মার্চ, ২০১৬ ০০:০০



জঙ্গি হামলায় ৩৫ জন নিহত হওয়ার ঘটনায় শোকে মুহ্যমান বেলজিয়ামবাসীর সঙ্গে একাত্মতা প্রকাশ করেছে বিশ্ববাসী। যুক্তরাষ্ট্রে ওয়ার্ল্ড ট্রেড সেন্টার আর ফ্রান্সে আইফেল টাওয়ার থেকে শুরু করে অনেক স্থাপনা বেলজিয়ামের পতাকার রঙের আলোয় রাঙানো হয়।

রাজধানী ব্রাসেলসে মঙ্গলবার সকালে জঙ্গি হামলার পরপর পুরো শহর স্তব্ধ হয়ে পড়েছিল। বিকেলের দিকে কিছুটা ধাতস্থ হয়ে ব্রাসেলবাসী নিহতদের প্রতি শ্রদ্ধা জানাতে রাস্তায় নামে। গায়ে জাতীয় পতাকা জড়িয়ে ফুল ও জ্বলন্ত মোমবাতি হাতে তারা জড়ো হতে থাকে ব্রাসেলসের হৃদয়খ্যাত ঐতিহ্যবাহী প্লেস দ্য লা বুর্সে। নিজেদের জাতীয় ফুটবল দলের বিজয়ের গর্বে স্থানীয় জনতা যেখানে আনন্দে মেতে ওঠে, সেখানেই তারা মঙ্গলবার রাতে জড়ো হয় বেদনার্ত হৃদয় নিয়ে। একজনের হাতের ব্যানারে লেখা, ‘ঘৃণার বিরুদ্ধে এক হও। ’ পাশে রাস্তার ওপর লেখা হয় ‘খ্রিস্টান + মুসলিম + ইহুদি = মানবতা’। বেলজিয়ামের ফরাসি ও ফ্লেমিশ ভাষাভাষি সম্প্রদায় নিজেদের মধ্যকার তীব্র বিরোধ ভুলে সেখানে এক হয়। তাদের কণ্ঠে ধ্বনিত হয় ‘ব্রাসেলস সুন্দর’, ‘আমি ব্রাসেলস’। বুর্সে আসা লেইলা ডেভিন বলেন, ‘এ রকম ঘটনার পর একসঙ্গে হওয়াটা জরুরি। এর মাধ্যমে দেখিয়ে দেওয়া যাবে, আমরা সন্ত্রাসের বিরুদ্ধে ঐক্যবদ্ধ। ’ সকালের ঘটনা ভীষণ ভয় পেয়ে গেলেও পরে সামলে ওঠা ২২ বছর বয়সী আনালফিয়া ডেলমেট বলেন, ‘বেলজিয়ান হয়ে আমরা গর্বিত। আমরা ভয় পাই না। সেটা দেখাতেই আমার মা আর আমি এখানে এসেছি। ’ তাঁদের সঙ্গে যোগ দেন বেলজিয়ামের প্রধানমন্ত্রী চার্লস মাইকেল। নিহতদের প্রতি শ্রদ্ধা জানিয়ে ইউরোপীয় কমিশনের (ইসি) প্রেসিডেন্ট লুক্সেমবুর্গের নাগরিক জ্যঁ ক্লদ জাঁকার বলেন, ‘আজ রাতে আমি বেলজিয়ান। ’ সূত্র : এএফপি।


মন্তব্য