kalerkantho


জীবনঝুঁকিতে মোরালেসের সাবেক বান্ধবী!

কালের কণ্ঠ ডেস্ক   

১৯ মার্চ, ২০১৬ ০০:০০



জীবনঝুঁকিতে মোরালেসের সাবেক বান্ধবী!

বলিভিয়ার প্রেসিডেন্ট এভো মোরালেসের সাবেক বান্ধবী গাব্রিয়েলা জাপাতা দেশটিতে নিযুক্ত জাতিসংঘের মানবাধিকারবিষয়ক কমিশনারের কাছে আর্জি জানিয়েছেন যে তাঁর জীবন ঝুঁকির মধ্যে রয়েছে। কারাবন্দি জাপাতা এক চিঠিতে দাবি করেছেন, তাঁর ও মোরালেসের একটি পুত্রসন্তান আছে।

আর সেই সন্তান মরেনি, এখনো জীবিত আছে। তবে সরকারের তরফ থেকে বলা হয়েছে, ‘জাপাতা মিথ্যাবাদী’। তাঁর হাতে কোনো প্রমাণ নেই।

জাপাতার সঙ্গে ২০০৫ সালে সম্পর্কে জড়ান মোরালেস (৫৬)। ওই সময় জাপাতার বয়স ছিল ১৮ বছর। এর আগে মোরালেস জানান, দুই বছরের মাথায় তাঁদের সম্পর্ক ভেঙে যায়। এ ছাড়া তাঁদের একটি পুত্রসন্তান ছিল, কিন্তু মারা গেছে।

দুর্নীতির দায়ে গত মাসে গ্রেপ্তার করা হয় জাপাতাকে। তাঁর বিরুদ্ধে অভিযোগ, প্রেসিডেন্টের বান্ধবী হওয়ায় প্রভাব খাটিয়ে তিনি চীনা একটি প্রতিষ্ঠানকে মোটা অঙ্কের কাজ পাইয়ে দিয়েছেন।

সিএএমসি নামের ওই প্রতিষ্ঠানেই শীর্ষপদে কর্মরত ছিলেন জাপাতা।

বলিভিয়ায় জাতিসংঘের মানবাধিকারবিষয়ক দূত ডেনিস র‌্যাচিকটকে এক চিঠিতে জাপাতা লেখেন, ‘আমি জরুরি ভিত্তিতে আপনাকে লিখছি। আমার জীবন হুমকিতে। ’ তবে কী কারণে হুমকিতে—সে বিষয়ে জাপাতা কিছু লেখেননি। বৃহস্পতিবার স্থানীয় গণমাধ্যমে চিঠিটি ফাঁস হয়। তাতে আরো লেখা আছে, ‘আমাকে চিঠিটি লিখতে হচ্ছে আমার সন্তানের জীবন রক্ষার জন্য, যার নাম এবং অস্তিত্ব হুমকিতে আছে। ’ জাপাতার দাবি, প্রেসিডেন্ট নির্দেশ দিয়েছেন, ‘তাঁর আর আমার সন্তানের কথা যেন কোনোভাবে জানাজানি না হয়। ’

তবে জাপাতার এমন দাবি ভিত্তিহীন বলে উড়িয়ে দিয়েছে সরকার। তাৎক্ষণিক এক বিবৃতিতে স্বরাষ্ট্রমন্ত্রী বলেছেন, ‘জাপাতা কোনো প্রমাণ ছাড়াই এ ধরনের অভিযোগ তুলেছেন। ’ যোগাযোগমন্ত্রী মারিয়ানেলা পাসো বলেছেন, ‘জাপাতা মিথ্যাবাদী, হৃদয়হীন এক নারী। প্রথম থেকেই তিনি প্রেসিডেন্টের ক্ষতি করে আসছেন। ’

প্রসঙ্গত, মোরালেস বিয়ে করেননি। এর আগে তাঁর আরেকজন বান্ধবী ছিলেন। তাঁর ঘরে এক ছেলে ও মেয়ে রয়েছে। সূত্র : এএফপি।


মন্তব্য