kalerkantho

সোমবার। ২৩ জানুয়ারি ২০১৭ । ১০ মাঘ ১৪২৩। ২৪ রবিউস সানি ১৪৩৮।


ফিলিস্তিনি ভূমি আত্মসাৎ

ইসরায়েলের সমালোচনায় জাতিসংঘ মহাসচিব

কালের কণ্ঠ ডেস্ক   

১৭ মার্চ, ২০১৬ ০০:০০



ইসরায়েলের সমালোচনায় জাতিসংঘ মহাসচিব

অধিকৃত পশ্চিম তীরে ইসরায়েলের ফিলিস্তিনি ভূমি আত্মসাতের কড়া সমালোচনা করেছে জাতিসংঘ। বিশ্বসংস্থাটি অবৈধ এ আত্মসাতের প্রক্রিয়া থেকে ইসরায়েলকে ‘বিরত থাকাসহ আত্মসাত্কৃত ভূমি ফিরিয়ে’ দেওয়ার আহ্বান জানিয়েছে। এ ঘটনা ‘দ্বিরাষ্ট্রিক সমাধানের জন্য প্রতিবন্ধকতা’ বলেও মন্তব্য করেছে তারা। যুক্তরাষ্ট্রও এর নিন্দা জানিয়ে বলেছে, ইসরায়েলের এ আচরণ দীর্ঘ মেয়াদে শান্তিপূর্ণ সমাধানের বিষয়টিকে অবমূল্যায়িত করবে।

সম্প্রতি ডেড সি ও ফিলিস্তিনি শহর জেরিকোর কাছে ৫৭৯ একর জমি আত্মসাৎ করে ইসরায়েলি সরকার। ইসরায়েলের মানবাধিকার সংস্থা ‘পিস নাও’ গত মঙ্গলবার এ তথ্য জানায়। সংস্থাটির তথ্যানুযায়ী, নতুন করে আত্মসাত্কৃত এ ভূমি ইসরায়েল ইহুদি বসতি নির্মাণসহ বাণিজ্যিক খাতে ব্যবহার করবে। ১০ মার্চ এই আত্মসাত্সংক্রান্ত এক আদেশে সই করা হয়েছে। পিস নাও এ ঘটনাকে দুই দেশের সম্পর্কের প্রশ্নে ‘আগুনে জ্বালানির জোগান’ দেওয়া হিসেবে অভিহিত করেছে।

জাতিসংঘের মহাসচিব বান কি মুনের মুখপাত্র স্তিফান দুজারিক বলেন, ‘আমি আপনাদের বলতে পারি যে অধিকৃত পশ্চিম তীরে ইসরায়েলি কর্তৃপক্ষের ৫৭৯ একর জমি ‘রাষ্ট্রীয় ভূখণ্ড’ হিসেবে আত্মসাৎ করার ঘটনাটিকে মহাসচিব দ্বিরাষ্ট্রিক সমাধানের পথে প্রতিবন্ধকতা হিসেবে দেখছেন। ’ তিনি বলেন, জাতিসংঘ মনে করে ইসরায়েলের বসতি নির্মাণে গতি বাড়ানোর অর্থ ‘পশ্চিম তীরে তাদের নিয়ন্ত্রণ দৃঢ়করণের’ দিকে জোর দেওয়া, যা আন্তর্জাতিক আইন অনুসারে অবৈধ। দুজারিক বলেন, ‘জাতিসংঘের মহাসচিব শান্তির স্বার্থে এবং চূড়ান্ত চুক্তির স্বার্থে ইসরায়েলকে ফিলিস্তিনি ভূমি আত্মসাৎ থেকে বিরত থাকাসহ আত্মসাত্কৃত ভূমি ফিরিয়ে দেওয়ার আহ্বান জানিয়েছেন। ’

মার্কিন পররাষ্ট্র মন্ত্রণালয়ও ইরসায়েলের এ ভূমি আত্মসাতের নিন্দা জানিয়েছে। মন্ত্রণালয়ের মুখপাত্র জন কিরবি বলেন, ‘বসতি সম্প্রসারণের যেকোনো পদক্ষেপের আমরা তীব্র বিরোধিতা করি। ইসরায়েলের এ আচরণ তাদের দীর্ঘমেয়াদি অভিপ্রায় সম্পর্কে গুরুতর প্রশ্ন উত্থাপন করে। ’ তিনি বলেন, এ ঘটনা ‘দ্বিরাষ্ট্রিক সমাধানের সম্ভাবনাকে মারাত্মকভাবে অবমূল্যায়িত’ করে।

আর ফিলিস্তিনি কর্তৃপক্ষ বলেছে, ‘এটি বর্ণবাদী ইসরায়েলের পরিকল্পিত কাজ। ’ প্যালেস্টাইন লিবারেশন অর্গানাইজেশনের (পিএলও) মহাসচিব সাইব ইরাকাত বলেন, ‘জর্দান উপত্যকাসহ অধিকৃত পশ্চিম তীরে ফিলিস্তিনি ভূমি আত্মসাতের মধ্য দিয়ে দখলদার ইসরায়েলে তাদের উপনিবেশিক প্রকল্প অব্যাহত রেখেছে। ’ সূত্র : আরটি।


মন্তব্য