kalerkantho


স্টিং অপারেশনের ভিডিও

ভারতীয় পার্লামেন্ট ও রাজনীতির মাঠ উত্তাল

কোনো ধমকে-চমকে কাজ হবে না

কালের কণ্ঠ ডেস্ক   

১৬ মার্চ, ২০১৬ ০০:০০



ভারতীয় পার্লামেন্ট ও রাজনীতির মাঠ উত্তাল

নারদ নিউজের স্টিং অপারেশনে তৃণমূলের ১১ জন নেতার বিরুদ্ধে ঘুষ নেওয়ার কথিত ভিডিও প্রকাশ হওয়ার পর ভারতের পার্লামেন্টের উভয় কক্ষে তুমুল আলোচনা, সমালোচনা ও হইচই হয়েছে। বাম দল, কংগ্রেস ও বিজেপি একযোগে অভিযুক্ত তৃণমূল নেতাদের বিরুদ্ধে তদন্ত চেয়েছে।

তৃণমূল কংগ্রেসকে দল হিসেবে বাতিল করতে নির্বাচন কমিশনের কাছে প্রস্তাব দিয়েছে কংগ্রেস।

তৃণমূল এসব অভিযোগের পরিপ্রেক্ষিতে বলেছে, ভোটের মুখে এটা বিরোধীদের চক্রান্ত। পশ্চিমবঙ্গের কার্শিয়াং এক নির্বাচনী সভায় তৃণমূল নেত্রী মমতা বন্দ্যোপাধ্যায় বলেছেন, তাঁর দলকে কালিমালিপ্ত করতে ষড়যন্ত্র চলছে। তবে, কোনো ধমকে-চমকে কাজ হবে না।

মঙ্গলবার লোকসভায় সিপিএম সদস্য মোহাম্মদ সেলিম প্রসঙ্গটি তুলে বলেন, ‘এই ঘটনা ভারতীয় গণতন্ত্রের সম্মান ধূলিসাৎ করে দিয়েছে। যে পার্লামেন্টকে গণতন্ত্রের মন্দির হিসেবে দেখা হয়, সেই পার্লামেন্টের তৃণমূল সদস্যদের একাংশ কলঙ্কজনক ঘটনায় জড়িয়ে গোটা দেশের মান-মর্যাদাকে মাটিতে মিশিয়ে দিয়েছেন। গোটা দেশের মানুষ টেলিভিশনে ওই ঘটনা দেখেছেন। এই ঘটনার পূর্ণাঙ্গ তদন্ত হোক।

সেলিমের বক্তব্যের পর তুমুল হইচই শুরু হয় লোকসভায়।

উঠতে থাকে ‘শেম শেম’ ধ্বনি। সভায় উপস্থিত তৃণমূলের দুই সাংসদ সৌগত রায় আর সুলতান আহমেদকে লক্ষ্য করে টিপ্পনি কাটতে দেখা যায় কয়েকজনকে।

বিজেপি সদস্য বেঙ্কাইয়া নাইডু বলেন, ‘ষড়যন্ত্র বলে দায় এড়ালে চলবে না, বিষয়টি তদন্ত করে দেখা দরকার। ’ কংগ্রেস সদস্য অধীর চৌধুরীও সরব হন তদন্তের দাবিতে। রাজ্যসভায় দাবিতে সরব হন বাম দলের সদস্য সীতারাম ইয়েচুরিও। বিরোধীদের দাবিতে রাজ্যসভায় আজ বুধবার এ নিয়ে আলোচনার অনুমতিও মিলেছে। সূত্র : টাইমস অব ইন্ডিয়া।


মন্তব্য