kalerkantho

শনিবার । ১০ ডিসেম্বর ২০১৬। ২৬ অগ্রহায়ণ ১৪২৩। ৯ রবিউল আউয়াল ১৪৩৮।


সংঘর্ষের পর ট্রাম্পের সমাবেশ বাতিল

আহত দুই পুলিশ গ্রেপ্তার পাঁচ

নিউ ইয়র্ক প্রতিনিধি   

১৩ মার্চ, ২০১৬ ০০:০০



সংঘর্ষের পর ট্রাম্পের সমাবেশ বাতিল

শিকাগোর ইলিয়ন বিশ্ববিদ্যালয়ে ডোনাল্ড ট্র্যাম্পের পূর্বনির্ধারিত সমাবেশ বাতিল হওয়ার আগে বিরোধীদের বিক্ষোভ। ছবি : এএফপি

প্রতিবাদ থেকে বিশৃঙ্খলা ও সংঘাত ছড়িয়ে পড়ায় শুক্রবার শিকাগোতে একটি সমাবেশ স্থগিত করেছেন যুক্তরাষ্ট্রের প্রেসিডেন্ট নির্বাচনে রিপাবলিকান দলীয় মনোনয়ন প্রত্যাশী ডোনাল্ড ট্রাম্প। শুক্রবার রাতে ইলিনয় বিশ্ববিদ্যালয়ের একটি মিলনায়তনে সমাবেশটি অনুষ্ঠিত হওয়ার কথা ছিল।

কিন্তু সেখানে ট্রাম্প উপস্থিত হওয়ার কয়েক ঘণ্টা আগেই মিলনায়তনের বাইরে কয়েক শ প্রতিবাদকারী জড়ো হয়ে ট্রাম্পবিরোধী স্লোগান দিতে থাকেন। ট্রাম্পের সমর্থকরাও পাল্টা স্লোগান দিতে থাকে। একপর্যায়ে উভয় পক্ষের মধ্যে ধাক্কাধাক্কি ও হাতাহাতি শুরু হয়। পরিস্থিতি সামাল দিতে গিয়ে দুই পুলিশ আহত হয়। গ্রেপ্তার করা হয়েছে পাঁচজনকে।

গণমাধ্যম জানায়, এ রকম পরিস্থিতিতে পুলিশের সঙ্গে বৈঠকের পর ট্রাম্প সমাবেশটি বাতিল করার সিদ্ধান্ত নেন। তবে পুলিশ জানিয়েছে, তারা সমাবেশ স্থগিত বা বাতিল করতে ট্রাম্পকে চাপ দেয়নি। অন্যদিকে ট্রাম্প বলেছেন, ‘আমি চাইনি কেউ আঘাত পাক। আমরা সঠিক সিদ্ধান্তই নিয়েছি। যদিও আমাদের মত প্রকাশের স্বাধীনতা ছিনতাই করা হয়েছে। ’ তিনি জানান, আরেকটি তারিখে এই সমাবেশ হবে।

ইলিনয় বিশ্ববিদ্যালয় মিলনায়তনের ভেতরে ও বাইরে ট্রাম্পের সমর্থক ও বিরোধিরা প্ল্যাকার্ড প্রদর্শন করে শুরুতে স্লোগান দিতে থাকে। এরপর হাতাহাতিতে জড়ায়। বিরোধীদের অনেককে ডেমোক্রেটিক পার্টির অন্যতম প্রেসিডেন্ট পদপ্রার্থী বার্নি স্যান্ডার্সের পক্ষে স্লোগান দিতে দেখা যায়। কয়েকজন প্রত্যক্ষদর্শী জানান, ট্রাম্পের সমর্থকরা প্রতিবাদকারীদের হাত থেকে প্ল্যাকার্ড কেড়ে নেওয়ার চেষ্টা করলে সংঘর্ষ শুরু হয়।

মিলনায়তনের বাইরেও সংঘাত চলতে থাকে। হেলিকপ্টার থেকে তোলা ছবিতে বিশৃঙ্খল পরিস্থিতি নিয়ন্ত্রণে পুলিশকে তৎপর দেখা যায়।

শুক্রবার দ্বিতীয়বারের মতো ট্রাম্পের জনসভা ভণ্ডুল করে দিল বিরোধীরা। ট্রাম্প আয়োজিত বিভিন্ন সভায় বিক্ষোভকারীদের সঙ্গে ট্রাম্প-সমর্থকদের হাতাহাতি এখন প্রায় একটি নিয়মিত ব্যাপারে দাঁড়িয়েছে। ট্রাম্প নিজে একাধিকবার বিক্ষোভকারীদের ‘মুখ ভোঁতা করে দেওয়ার’ হুমকি দিয়েছেন। কয়েকজন সাংবাদিকও ট্রাম্পের সভায় দায়িত্ব পালনকালে আহত হন।

সিএনএনের খবরে বলা হয়েছে, ওই সমাবেশ উপলক্ষে শিকাগোতে আট থেকে ১০ হাজার লোক জড়ো হয়েছিলেন।

রিপাবলিকান দলের প্রেসিডেন্ট প্রার্থী হওয়ার দৌড়ে ট্রাম্পের প্রধান প্রতিদ্বন্দ্বী সিনেটর টেড ক্রুজ এক বিবৃতিতে যুক্তরাষ্ট্রে চলমান রাজনৈতিক অসহিষ্ণুতার জন্য ট্রাম্পকে দায়ী করেছেন। তিনি বলেন, তাঁর প্রচারণা-কেন্দ্রিক যে পরিস্থিতির সৃষ্টি হয়েছে, তার সব দায়-দায়িত্ব ট্রাম্পের। আরেক প্রতিদ্বন্দ্বী মার্কো রুবিও ট্রাম্পকে এ ঘটনার দায় স্বীকার করতে বলেছেন।


মন্তব্য