kalerkantho

বুধবার । ৭ ডিসেম্বর ২০১৬। ২৩ অগ্রহায়ণ ১৪২৩। ৬ রবিউল আউয়াল ১৪৩৮।


ট্রাম্পের ইসলামবিদ্বেষের বিরুদ্ধে সরব প্রতিদ্বন্দ্বী রিপাবলিকানরা

যুক্তরাষ্ট্রের প্রেসিডেন্ট নির্বাচন ২০১৬

কালের কণ্ঠ ডেস্ক   

১২ মার্চ, ২০১৬ ০০:০০



যুক্তরাষ্ট্রের প্রেসিডেন্ট নির্বাচনে রিপাবলিকান পার্টি থেকে মনোনয়নপ্রত্যাশী ডোনাল্ড ট্রাম্পকে তাঁর ইসলামবিদ্বেষী মন্তব্যের জন্য সম্মিলিতভাবে তুলাধোনা করেছেন দলেরই অন্য প্রতিদ্বন্দ্বী প্রার্থীরা। ‘ইসলাম আমেরিকাকে ঘৃণা করে’—ট্রাম্পের এ মন্তব্যের তীব্র বিরোধিতা করেছেন তাঁরা।

একই সঙ্গে সন্ত্রাসীদের পরিবারের সদস্যদেরও হত্যা করা উচিত বলে ট্রাম্প গত ডিসেম্বরে যে মন্তব্য করেছিলেন, তারও কঠোর নিন্দা জানান রিপাবলিকান দলের অন্য তিন মনোনয়নপ্রত্যাশী।

গত বৃহস্পতিবার রাতে ফ্লোরিডার মিয়ামি বিশ্ববিদ্যালয়ের ক্যাম্পাসে আয়োজিত টেলিভিশন বিতর্কে অংশ নিয়ে মার্কো রুবিও, টেড ক্রুজ ও জন কাসিক এক জোট হয়ে ট্রাম্পের ইসলামবিদ্বেষী মনোভাবের কঠোর নিন্দা জানান। এটি ছিল রিপাবলিকান পার্টির ১২তম প্রেসিডেনশিয়াল বিতর্ক।

রিপাবলিকান শিবিরে প্রার্থিতার দৌড়ে অনেক এগিয়ে আছেন ট্রাম্প। এরই মধ্যে মনোনয়ন পাওয়ার লড়াই থেকে নিজেকে গুটিয়ে নেওয়া বেন কারসন তাঁকে সমর্থন দেবেন বলে ট্রাম্প নিজেই জানিয়েছেন। গতকাল শুক্রবার কারসনের আনুষ্ঠানিকভাবে এ ঘোষণা দেওয়ার কথা।

এ পটভূমিতে ট্রাম্পকে ঠেকাতে অন্য প্রার্থিতাপ্রত্যাশীরা রীতিমতো কোমর বেঁধে নেমেছেন বলেই মনে করছেন বিশ্লেষকরা।

আগের বারের টেলিভিশন বিতর্কে রিপাবলিকান দলের প্রার্থিতাপ্রত্যাশীরা একে অপরের ওপর ব্যক্তিগত আক্রোশ দেখালেও বৃহস্পতিবার রাতের বিতর্কের অনেকটা জুড়ে ছিল ট্রাম্পের ইসলামবিদ্বেষী মন্তব্য ও মনোভাব নিয়ে কড়া সমালোচনা। এ পর্যায়ে ইসলামবিদ্বেষ প্রশ্নে ট্রাম্পের সঙ্গে অন্য প্রার্থিতাপ্রত্যাশীদের দূরত্ব স্পষ্ট হয়ে পড়ে। যদিও সব প্রার্থীই প্রেসিডেন্ট নির্বাচিত হলে তাঁদের নীতিমালা কী হবে তার ওপরও অনেক জোর দেন।

বুধবার সিএনএনকে দেওয়া সাক্ষাৎকারে ট্রাম্প বলেন, ‘ইসলাম যুক্তরাষ্ট্রকে ঘৃণা করে। ’ এ মন্তব্যের বিরোধিতা করে রুবিও বলেন, ‘প্রেসিডেন্টরা তাঁদের খেয়াল-খুশিমতো মন্তব্য করতে পারেন না। এর পরিণাম সুদূরপ্রসারী হয়। ’

ট্রাম্প অবশ্য নিজের মন্তব্যের পক্ষে সাফাই গেয়ে দাবি করেন, তিনি রাজনৈতিক শুদ্ধতায় বিশ্বাসী নন। জবাবে রুবিও বলেন, ‘আমিও রাজনৈতিক শুদ্ধতার পক্ষপাতী নই, ব্যক্তিগতভাবে শুদ্ধ হওয়ার পক্ষে। ’ তিনি বলেন, ইসলামের সঙ্গে মৌলবাদের সম্পর্কের এক সমস্যা আছে বটে, তবে অনেক মুসলমানই আমেরিকানদের কাছে গর্বের।

সূত্র : বিবিসি।


মন্তব্য