kalerkantho

রবিবার। ৪ ডিসেম্বর ২০১৬। ২০ অগ্রহায়ণ ১৪২৩। ৩ রবিউল আউয়াল ১৪৩৮।


উত্তর কোরিয়ার হামলার হুমকিকে গুরুত্বের সঙ্গে নিয়েছে যুক্তরাষ্ট্র

কালের কণ্ঠ ডেস্ক   

৯ মার্চ, ২০১৬ ০০:০০



উত্তর কোরিয়ার হামলার হুমকিকে গুরুত্বের সঙ্গে নিয়েছে যুক্তরাষ্ট্র

দক্ষিণ কোরিয়ার সঙ্গে সামরিক মহড়ায় পিয়ংইয়ং ক্ষিপ্ত হলেও পূর্ব পরিকল্পিত মহড়া থেকে যুক্তরাষ্ট্র সরে দাঁড়াচ্ছে না। তবে উত্তর কোরিয়ার পারমাণবিক হামলার হুমকিকে গুরুত্বের সঙ্গে নিয়েছে তারা।

 

উত্তর কোরিয়ার হুমকির মধ্যে যুক্তরাষ্ট্র ও দক্ষিণ কোরিয়া বিশাল সামরিক মহড়া শুরু করতে যাচ্ছে। এতে দক্ষিণ কোরিয়ার তিন লাখ এবং যুক্তরাষ্ট্রের ১৭ হাজার সেনা অংশ নিচ্ছে। এ সম্পর্কে যুক্তরাষ্ট্রের পররাষ্ট্র মন্ত্রণালয়ের মুখপাত্র জন কিরবি বলেন, ‘দক্ষিণ কোরিয়ার নিরাপত্তার ব্যাপারে যুক্তরাষ্ট্র তাদের প্রতিশ্রুতি শতভাগ পালন করবে। তবে উত্তর কোরিয়া গত এক দশক ধরে হুমকির অনুশীলন করে চলেছে। ’ তিনি আরো বলেন, ‘পিয়ংইয়ং যদি কোরীয় উপদ্বীপে উত্তেজনা সৃষ্টি না করত এবং সেখানকার নিরাপত্তা ও স্থিতিশীলতা বজায় রাখত তাহলে যৌথ সামরিক মহড়ার ব্যাপকতা বাড়ানোর দরকার ছিল না। আমরা সাধারণত এই ধরনের হুমকি গুরুত্বের সঙ্গে বিবেচনা করি। সে সঙ্গে আমরা পিয়ংইয়ংকে উত্তেজক কথাবার্তা থেকে বিরত থাকার আহ্বান জানাচ্ছি। ’

দক্ষিণ কোরিয়া ও যুক্তরাষ্ট্রের মূল ভূখণ্ডে পিয়ংইয়ংয়ের ‘নির্বিচারে’ পারমাণবিক হামলা চালানোর হুমকির ব্যাপারে জন কিরবি বলেন, ‘উত্তর কোরিয়ার প্রেসিডেন্ট কিম জং উন যেকোনো কিছু পছন্দ করতে পারে। তবে এটা পরিষ্কার যে তিনি সে পথ বেছে নিতে ইচ্ছুক নন, যে পথটা কোরীয় উপদ্বীপে উত্তেজনা কমাতে পারত। এই ধরনের মন্তব্য করার চেয়ে তিনি উত্তর কোরিয়ার জনগণের শান্তি ও নিরাপত্তার জন্য দেশের শক্তি ও সম্পদ ব্যবহারে মনোযোগী হতে পারতেন। ’ সিউল ও ওয়াশিংটনের মধ্যে সম্পর্ক আরো জোরদার করা প্রসঙ্গে পেন্টাগন মুখপাত্র ক্যাপ্টেন জেফ ডেভিস বলেন, ওয়াশিংটন ও সিউল দক্ষিণ কোরিয়ায় যুক্তরাষ্ট্রের প্রতিরক্ষা সিস্টেম উন্নয়নে কাজ করে যাবে। গত সপ্তায় দুই দেশ টার্মিনাল হাই অলটিচিউড এরিয়া ডিফেন্ডস সিস্টেম (টিএইচএএডি) উন্নয়নে চুক্তি করেছে। সূত্র : এএফপি।


মন্তব্য