ব্রাজিলে লুলা আটক -332240 | দেশে দেশে | কালের কণ্ঠ | kalerkantho

kalerkantho

সোমবার । ২৬ সেপ্টেম্বর ২০১৬। ১১ আশ্বিন ১৪২৩ । ২৩ জিলহজ ১৪৩৭


পেট্রোবাস কেলেঙ্কারি

ব্রাজিলে লুলা আটক

কালের কণ্ঠ ডেস্ক   

৫ মার্চ, ২০১৬ ০০:০০



ব্রাজিলে লুলা আটক

তেল কম্পানি পেট্রোবাসের সঙ্গে যোগসাজশে ব্যাপক দুর্নীতির অভিযোগে পুলিশ গতকাল শুক্রবার ব্রাজিলের সাবেক প্রেসিডেন্ট লুইজ ইনাসিও লুলার বাড়ি তল্লাশি ও জিজ্ঞাসাবাদের জন্য তাঁকে আটক করেছে।

এ ব্যাপারে লুলার মুখপাত্র হোসে ক্রিসপিনিয়ানো জানিয়েছেন, সাও পাওলোতে লুলা ইনস্টিটিউটের অফিস, পরিবারের সদস্যদের ঘরবাড়িতে পুলিশ তল্লাশি চালিয়েছে।

লুলার বিরুদ্ধে অভিযোগ সম্পর্কে ফেডারেল পুলিশ বলেছে, ‘অর্থ আত্মসাৎ এবং ঘুষের অভিযোগে অনেক দিন ধরেই তিনি আমাদের নজরে ছিলেন। লুলা যে অনৈতিকভাবে সুবিধা নিয়েছেন তার প্রমাণ আমাদের হাতে রয়েছে। তিনি সমুদ্রতীরে বিলাসবহুল অ্যাপার্টমেন্ট সুবিধা নিয়েছেন।’

২০০৩ সালের ১ জানুয়ারি থেকে ২০১১ সালের ১ জানুয়ারি পর্যন্ত ব্রাজিলের প্রেসিডেন্ট ছিলেন লুলা। তিনি অ্যাপার্টমেন্ট সুবিধাসহ দুর্নীতির সব অভিযোগ অস্বীকার করেছেন। শুধু লুলা নয়, পেট্রোবাস কেলেঙ্কারিতে দেশটির আরো অনেক রাজনীতিবিদ ও ব্যবসায়ী জড়িত। ইতিমধ্যেই তাঁদের অনেককে গ্রেপ্তার করা হয়েছে অথবা তাঁরা নজরদারিতে রয়েছেন।

পুলিশ গতকাল সকালে সাও পাওলোতে প্রেসিডেন্টের বাড়ি এবং লুলা ইনস্টিটিউটের প্রধান ভবনে তল্লাশি চালায়। সাও পাওলোর এই ইনস্টিটিউটে লুলার স্ত্রী ও সন্তানরা থাকে।

লুলাকে আটকের প্রতিবাদ জানিয়েছে লুলা ইনস্টিটিউট। কোনো অনৈতিক কাজের সঙ্গে প্রেসিডেন্টের জড়িত থাকার কথা অস্বীকার করেছে।

এক বিবৃতিতে তারা জানিয়েছে, প্রেসিডেন্টের সঙ্গে যা করা হয়েছে তা স্বৈরচারিতা, অবৈধ এবং অযৌক্তিক। তিনি তদন্তকাজে সহায়তা করছিলেন। এর পরও সাবেক প্রেসিডেন্টের সঙ্গে যা করা হয়েছে এটা মধ্যযুগীয় বর্বর আচরণ।

তিনি কখনো অনৈতিক কাজের সঙ্গে জড়িত ছিলেন না। প্রেসিডেন্ট হওয়ার আগে যেমন নয়, তেমনি প্রেসিডেন্ট থাকাকালে এবং দায়িত্ব থেকে সরে দাঁড়ানোর পরও কোনো অনৈতিক কাজ তিনি করেননি।

সূত্র : এএফপি।

মন্তব্য