পাকিস্তানে সালমান তাসিরের-330649 | দেশে দেশে | কালের কণ্ঠ | kalerkantho

kalerkantho

মঙ্গলবার । ২৭ সেপ্টেম্বর ২০১৬। ১২ আশ্বিন ১৪২৩ । ২৪ জিলহজ ১৪৩৭


পাকিস্তানে সালমান তাসিরের হত্যাকারীর ফাঁসি কার্যকর

কালের কণ্ঠ ডেস্ক   

১ মার্চ, ২০১৬ ০০:০০



পাকিস্তানের পাঞ্জাব প্রদেশের সাবেক গভর্নর সালমান তাসিরের হত্যাকারী মুমতাজ কাদিরের ফাঁসি কার্যকর করা হয়েছে। কর্মকর্তারা জানিয়েছেন, রাওয়ালপিন্ডি কারাগারে (আদিয়ালা কারাগার) গতকাল সোমবার ভোররাতে তাঁকে ফাঁসিতে ঝোলানো হয়। মুমতাজ সালমানের দেহরক্ষী ছিলেন। সালমান ধর্ম অবমাননা (ব্লাসফেমি) আইন সংস্কারের পক্ষে কথা বলায় ২০১১ সালে তাঁকে গুলি করে হত্যা করেন মুমতাজ।

মুমতাজের ফাঁসি কার্যকরের বিষয়টিকে কেন্দ্র করে নিরাপত্তা বাহিনীকে সতর্ক অবস্থানে রাখা হয়। ফাঁসি কার্যকরের কয়েক ঘণ্টা পর তাঁর ক্ষুব্ধ সমর্থকরা রাজপথে নেমে আসে। তারা ফাঁসি কার্যকরের নিন্দা জানায়।

পাকিস্তানে ‘ধর্ম অবমাননা’ অত্যন্ত স্পর্শকাতর বিষয়। মানবাধিকার সংগঠনগুলোর অভিযোগ, দেশটিতে প্রায়ই ব্যক্তিগত বিরোধের জেরে প্রতিপক্ষকে শায়েস্তা করতে এই আইনের অপব্যবহার হচ্ছে। আর বেশির ভাগ ক্ষেত্রেই এর শিকার হচ্ছে সংখ্যালঘু সম্প্রদায়।

সালমান পাকিস্তানে ব্লাসফেমি আইনের সংস্কারের দাবি তুলেছিলেন। তিনি ব্লাসফেমি আইনে মৃত্যুদণ্ডপ্রাপ্ত আসামি আসিয়া বিবিকে ক্ষমা করে দেওয়ার জন্য তৎকালীন প্রেসিডেন্ট আসিফ আলী জারদারিকে অনুরোধ করেছিলেন। তাঁর এই অবস্থানের কারণে তিনি একদল ইসলামপন্থীর বিরাগভাজন হয়ে ওঠেন। তাঁর দেহরক্ষী মুমতাজও ছিলেন সেই দলে। ২০১১ সালে তিনি সালমানকে রাজধানী ইসলামাবাদে একটি মার্কেটে প্রকাশ্যে গুলি করে হত্যা করেন। পরে হত্যার দায় স্বীকার করে জানান, সালমানকে হত্যা করা তাঁর ‘ধর্মীয় দায়িত্ব’ ছিল।

রাওয়ালপিন্ডির পুলিশ কর্মকর্তা সাজিদ গোন্দাল জানান, দাঙ্গা হতে পারে এমন আশঙ্কায় অনেক রাস্তা বন্ধ করে দিয়ে লোকজনকে প্রবেশে বাধা দেওয়া হয়। মুমতাজের মৃত্যুদণ্ড কার্যকরের খবর বিভিন্ন মসজিদ থেকেও প্রচার করা হয়।

সূত্র : ডন, এএফপি।

মন্তব্য