kalerkantho


বৈঠকের দিনক্ষণ কিছুই বদলায়নি : ট্রাম্প

‘পরমাণু অস্ত্র কর্মসূচি ত্যাগে প্রতিশ্রুতি উনের’

কালের কণ্ঠ ডেস্ক   

২৮ মে, ২০১৮ ০০:০০



বৈঠকের দিনক্ষণ কিছুই বদলায়নি : ট্রাম্প

ছবি: ইন্টারনেট

উত্তর কোরিয়ার নেতা কিম জং উন পরমাণু অস্ত্র কর্মসূচি থেকে সরে আসার ব্যাপারে বদ্ধপরিকর। এ ছাড়া যুক্তরাষ্ট্রের প্রেসিডেন্ট ডোনাল্ড ট্রাম্পের সঙ্গে বৈঠকের ব্যাপারেও আগ্রহী তিনি। গতকাল রবিবার উনের হয়ে এ কথা জানিয়েছেন দক্ষিণ কোরিয়ার প্রেসিডেন্ট মুন জায়ে-ইন।

এদিকে ২৪ ঘণ্টার ব্যবধানে বৈঠক সম্পর্কে নিজের অবস্থান বদলানো ট্রাম্প বলেছেন, নির্ধারিত সময়ে বৈঠক করার পরিকল্পনা ‘খুব সুন্দরভাবে এগোচ্ছে’।

আগামী ১২ জুন সিঙ্গাপুরে ট্রাম্প ও উনের মধ্যকার বৈঠকটি হওয়ার কথা। কিন্তু গত বৃহস্পতিবার উত্তর কোরিয়ার বিরুদ্ধে ‘প্রকাশ্যে শত্রুতার’ অভিযোগ তুলে হঠাৎ বৈঠক বাতিলের ঘোষণা দেন ট্রাম্প। অবশ্য একদিন না পেরোতেই ট্রাম্প নিজের সিদ্ধান্ত পাল্টে বলেন, এখনো বৈঠকের সম্ভাবনা আছে।

এরপর গত শনিবার ট্রাম্পের কাছে বৈঠকের সর্বশেষ পরিস্থিতি জানতে চান সাংবাদিকরা। জবাবে তিনি বলেন, ‘এটি খুব সুন্দরভাবে এগিয়ে যাচ্ছে। আমাদের মনোযোগ ১২ জুন, সিঙ্গাপুরের দিকে। বৈঠকের স্থান, দিনক্ষণ—সব কিছুই অপরিবর্তিত আছে।’

ট্রাম্পের বৈঠক বাতিলের সিদ্ধান্তের পর একই দিন সবাইকে চমকে দিয়ে বৈঠক করেন উন ও মুন, যা ছিল গত কয়েক দশকের মধ্যে দুই কোরিয়ার শীর্ষ নেতার চতুর্থ সাক্ষাৎ। গতকাল মুন সাংবাদিকদের বলেন, ‘যুক্তরাষ্ট্র-উত্তর কোরিয়ার সম্মেলনের মধ্য দিয়ে উন কয়েক দশকের বিরোধের অবসান ঘটিয়ে শান্তির পথে হাঁটতে চান।’ মুন আরো বলেন, পরমাণু অস্ত্র কর্মসূচি থেকে পুরোপুরি সরে আসার ব্যাপারে উন তাঁর প্রতিজ্ঞার কথা জানিয়েছেন। তবে এর বিনিময়ে যুক্তরাষ্ট্র উত্তর কোরিয়ার শাসনব্যবস্থার স্থিতিশীলতার নিশ্চয়তা দেবে কি না, কিংবা যুক্তরাষ্ট্রকে এ ব্যাপারে বিশ্বাস করা যায় কি না, তা নিয়ে উনের সন্দেহ রয়েছে।

উত্তর কোরিয়ার রাষ্ট্রায়ত্ত সংবাদ সংস্থা কেসিএনএ জানায়, ‘ট্রাম্পের সঙ্গে সাক্ষাতের ব্যাপারে কিম জং উন এখনো আগ্রহী।’ এ ছাড়া এ নিয়ে আগামী ১ জুন দুই কোরিয়ার মধ্যে একটি বৈঠক হবে বলেও জানায় সংবাদ সংস্থাটি।

বৈঠক নিয়ে ইতিবাচক খবর এসেছে যুক্তরাষ্ট্রের পক্ষ থেকেও। হোয়াইট হাউসের প্রেস সেক্রেটারি সারা স্যান্ডার্স নিশ্চিত করেছেন, তাঁদের একটি প্রতিনিধিদল সিঙ্গাপুর যাচ্ছে। সেখানে তারা বৈঠকের প্রস্তুতি নিয়ে কাজ করবে।

উল্লেখ্য, যুক্তরাষ্ট্র ও দক্ষিণ কোরিয়ার সঙ্গে উত্তর কোরিয়ার যে বিরোধ, তা কয়েক দশকের। বিরোধের মূলে রয়েছে উত্তর কোরিয়ার পরমাণু অস্ত্র কর্মসূচি। এই বিরোধের বরফ গলা শুরু হয় দক্ষিণ কোরিয়ায় অনুষ্ঠিক সর্বশেষ শীতকালীন অলিম্পিক আসরকে কেন্দ্র করে। ওই আসরে খেলোয়াড়সহ বড় একটি প্রতিনিধিদল পাঠায় উত্তর কোরিয়া। এরপর দক্ষিণ কোরিয়ার একটি প্রতিনিধিদল পিয়ংইয়ং গিয়ে কিমের সঙ্গে সাক্ষাৎ করেন। ওই প্রতিনিধিদলের মাধ্যমেই ট্রাম্পকে সাক্ষাতের আমন্ত্রণ জানান কিম। ট্রাম্পও সেই আমন্ত্রণ গ্রহণ করেন। সূত্র : এএফপি।

 



মন্তব্য