kalerkantho

দেশ পরিচিতি

৮ আগস্ট, ২০১৮ ০০:০০



দেশ পরিচিতি

অ্যান্টিগুয়া ও বারবুডা

ক্যারিবীয় সাগরের পূর্ব প্রান্তে অবস্থিত স্বাধীন দ্বীপরাষ্ট্র অ্যান্টিগুয়া ও বারবুডা। রাষ্ট্রটি মূলত লিওয়ার্ড দ্বীপপুঞ্জের মধ্যভাগে অবস্থিত তিনটি প্রতিবেশী দ্বীপ অ্যান্টিগুয়া, বারবুডা ও রেডন্ডা নিয়ে গঠিত। ক্যারিবীয় দেশগুলোর মধ্যে অ্যান্টিগুয়া ও বারবুডা অর্থনৈতিকভাবে বেশ সমৃদ্ধ। দেশটির অর্থনীতি পর্যটনের ওপর নির্ভরশীল। দ্বীপগুলোতে প্রতিবছর লাখ লাখ পর্যটক বেড়াতে যান।

অ্যান্টিগুয়া ও বারবুডার প্রথম অধিবাসী সিবোনেই গোত্রের মানুষ। তাদের বসবাসের শুরু আনুমানিক খ্রিস্টপূর্ব ২৪০০ অব্দ থেকে। ৩৫ সাল থেকে ১১০০ সাল পর্যন্ত এখানে আরাওয়াকদের অস্তিত্বের প্রমাণ পান ইতিহাসবিদরা। ১৪৯৩ সালে যখন ক্রিস্টোফার কলম্বাস অ্যান্টিগুয়ায় যান তখন সেখানে ছিল ক্যারিব গোত্রের বসবাস। তিনি এর নামকরণ করেন সান্তা মারিয়া ডি লা অ্যান্টিগুয়া। এটি ছিল স্পেনের একটি গির্জার নাম। ১৬৩২ সালে এই দ্বীপে ব্রিটিশ উপনিবেশ স্থাপিত হয়। ১৯৮১ সালে স্বাধীন হওয়ার আগ পর্যন্ত অ্যান্টিগুয়া এবং এর অধীনস্থ বারবুডা ও রেডন্ডাসহ বেশকিছু অঞ্চল ইংরেজদের অধীনেই ছিল। অবশ্য ১৯৬৬ সালে অল্প সময়ের জন্য এখানে ফরাসি আধিপত্য প্রতিষ্ঠিত হয়েছিল।

 

একনজরে

পুরো নাম : অ্যান্টিগুয়া ও বারবুডা।

রাজধানী ও সবচেয়ে বড় শহর : সেন্ট জনস।

দাপ্তরিক ভাষা : ইংরেজি।

জাতিগোষ্ঠী : ৯১ শতাংশ আফ্রিকান (কৃষ্ণাঙ্গ), ১.৭ শতাংশ ইউরোপীয়।

সরকার পদ্ধতি : ইউনিটারি পার্লামেন্টারি কনস্টিটিউশনাল মনার্কি।

রানি : দ্বিতীয় এলিজাবেথ।

গভর্নর জেনারেল : রডনি উইলিয়ামস।

প্রধানমন্ত্রী : গাস্টন ব্রাউনি।

আইনসভা : পার্লামেন্ট, উচ্চকক্ষ সিনেট, নিম্নকক্ষ হাউস অব রিপ্রেজেন্টেটিভস।

স্বাধীনতা: ব্রিটেন থেকে ১ নভেম্বর ১৯৮১।

আয়তন : ৪৪০ বর্গ কিলোমিটার।

জনসংখ্যা : এক লাখ ৯৬৩ জন।

ঘনত্ব : প্রতি বর্গকিলোমিটারে ১৮৬ জন।

জিডিপি : মোট ২.৩৭২ বিলিয়ন, মাথাপিছু ২৫ হাজার ৯৯৮ ডলার।

মুদ্রা : ইস্ট ক্যারিবিয়ান ডলার।

জাতিসংঘে যোগদান : ১১ নভেম্বর ১৯৮১।

 



মন্তব্য