kalerkantho


টিফিন আওয়ার

বিড়ালের মতো দেখতে স্কুল

অদ্ভুত চেহারার এক স্কুল ভবনের গল্প শোনাচ্ছেন অমর্ত্য গালিব চৌধুরী

৫ সেপ্টেম্বর, ২০১৮ ০০:০০



বিড়ালের মতো দেখতে স্কুল

স্কুলে যাওয়ার চেয়ে খেলাধুলায়ই বেশি আমোদ-ফুর্তির সুযোগ থাকে। তাই বাচ্চারাও অনেকে স্কুলে যাওয়ার ব্যাপারে তীব্র অনীহা দেখায়। কিন্তু তাই বলে একটা গোটা কিন্ডারগার্টেনকে যদি বিড়ালের আকৃতি দেওয়া হয়, তবে খেলার থেকে সেখানে পড়তে যাওয়াটাই হয়তো বেশি আকর্ষণীয় হয়ে উঠবে। আজগুবি শোনালেও জার্মানির উলফারটসভের কিন্ডারগার্টেনটা ঠিক বিড়ালের আকারে বানানো হয়েছে। এর আগে ভাসমান স্কুল, রং বদলানো স্কুলের মতো অদ্ভুত স্কুলের কথা শোনা গেলেও বিড়াল আকৃতির স্কুল এটাই প্রথম।

২০১১ সালে টমি উঞ্জেরের আর সুজান ইয়োন্ডেল মিলে এই স্কুলটি নকশা করেন, মূলত বাচ্চাদের কল্পনাশক্তিকে উসকে দিতেই এই ডিজাইন। অদ্ভুত এই স্কুলে ঢুকতে হয় বিড়ালের মুখ দিয়ে। পেটের মধ্যে রয়েছে শ্রেণিকক্ষ, খাওয়ার ঘর এবং রান্নাঘর। আর থাবাগুলো হচ্ছে বাচ্চাদের খেলার জায়গা।

এখানেই শেষ নয়। বিড়ালের মাথায়, চোখের জায়গায় বসানো হয়েছে জানালা। আর গোটা বিড়ালের ওপরের অংশটায় রয়েছে নরম ঘাস, ঠিক যেন পশম। বাচ্চারা দরকারে বেড়ালের লেজের ডগায় বসানো স্লাইড দিয়ে বেরোতে পারে।

কাজেই কল্পনা করা যাক, জার্মানির এই কিন্ডারগার্টনের শতাধিক শিক্ষার্থী প্রতিদিন মস্ত একটা গুড়ি মেরে বসে থাকা বেড়ালের মুখ দিয়ে পেটে ঢুকছে, থাবার মধ্যে খেলছে এবং দিন শেষ স্লাইড দিয়ে লেজ হয়ে বেরিয়ে বাসায় চলে যাচ্ছে। এ রকম একটা স্কুল কেন নিজেদের জমানায় ছিল না—এটা ভেবে যদি কারো মন খারাপ হয় তবে দোষ দেওয়া যাবে না তাকে।



মন্তব্য