kalerkantho


সম্পর্ক

নতুন সম্পর্কে যাওয়ার আগে

মারজান ইমু   

৩ সেপ্টেম্বর, ২০১৮ ০০:০০



নতুন সম্পর্কে যাওয়ার আগে

কিনটসুগি বা কিনটসুকুরই জাপানের একটি বিশেষ ধরনের শিল্পকর্ম, যেখানে মাটি বা সিরামিকের পাত্র ভেঙে গেলে সোনা, রুপা, প্লাটিনামের গলানো মণ্ড বা লেই দিয়ে জুড়ে দেওয়া হয়। তৈরি হয় নতুন নকশার নতুন এক পাত্র। পাত্রের ফাটল জোড়া লাগানোর ক্ষেত্রে এটি প্রযোজ্য হলেও মানুষের মনের ক্ষেত্রে না-ও হতে পারে। জুড়ে দেওয়া সম্পর্ক বেশির ভাগ ক্ষেত্রেই মনের ওপর দীর্ঘমেয়াদি বিরূপ প্রভাব ফেলে। তাই জোড়াতালি দিয়ে সম্পর্ক বয়ে না চলাই বুদ্ধিমানের কাজ। ভেঙে যাওয়া সম্পর্ক ভুলে খুঁজে নিতে হয় নতুন আয়না, যেখানে স্পষ্টত নিজের প্রতিবিম্ব দেখতে পাওয়া যায়। এরই নাম নতুন সম্পর্ক। দীর্ঘ আট বছর বিরতির পর আবার মাস্টার্স শুরু করেছেন সানিয়া শিমু (ছদ্মনাম)। বিয়ে-সংসার করে কোনো মতে স্নাতক শেষ করেছিলেন। ভেঙে যাওয়া সম্পর্ক পেছনে ফেলে আবার শুরু করেছেন নিজেকে ফিরে পাওয়ার নতুন পথচলা। এই পথচলায় তাঁর দৃষ্টিভঙ্গি জানতে চাইলে বললেন, ‘ফেলে আসা সম্পর্কের স্মৃতির দায় থেকে মুক্ত হতেই নতুন করে নিজেকে পড়াশোনায় ব্যস্ত রাখছি। আমি মনে করি, পুরনো সম্পর্ক ভুলে যেতে হুট করে নতুন কোনো সম্পর্কে জড়িয়ে যাওয়া বোকামি। কষ্টকর অতীত ভুলে যাওয়া যেমন জরুরি, তেমনি নতুন সম্পর্ককে সযত্নে পালন করার একটা দায় বা তাগিদ নিজের মধ্যে রাখা উচিত। তাই পরিবারের যথেষ্ট চাপ থাকা সত্ত্বেও এখনই নতুন সম্পর্কে জড়াতে চাই না।’

মনোরোগ বিশেষজ্ঞ ও কাউন্সেলর মো. শাহরিয়ার মাসুম বলেন, ‘সম্পর্ক তো আসলে জীবনেরই মতো। উত্থান-পতন, ভাঙা-গড়া চলে নিরন্তর। সম্পর্ক ভেঙে যাওয়ার পর সেই সম্পর্ক থেকে ততক্ষণ বের হওয়া সম্ভব নয়, যতক্ষণ ক্ষমা করতে না পারা যায়। নিজের মানসিক শান্তির জন্যই প্রথমে ক্ষমা করে দিতে হবে। পুরনো সঙ্গীর পরিবেশ এড়িয়ে চলা ভালো। এমনকি তার বন্ধু-বান্ধব, আত্মীয়-স্বজন থেকেও নিজেকে দূরে রাখুন। ফোন নম্বর, ফেসবুক, হোয়াটসঅ্যাপসহ সব সামাজিক মাধ্যম থেকে প্রাক্তনকে বাদ দিন।

নিজেকে সময় দিন যতটা সম্ভব। বই পড়া, গান শোনা, বেড়ানো, কেনাকাটা বা পছন্দের খাবার, যা ভালো লাগে করুন। নিজের যত্ন নিন। পরিপাটি থাকুন। নিজেকে কতটা সুন্দর-সজীব দেখাচ্ছে আয়নায় দেখুন। এ ক্ষেত্রে আরেকটি বিষয় খেয়াল রাখতে হবে, নিজেকে সময় দিতে গিয়ে একা হয়ে যাবেন না। সেই একাকিত্ব আবার মানসিক স্বাস্থ্যের জন্য ক্ষতিকর। প্রিয় বন্ধুদের সঙ্গে আড্ডা দিন, মন খুলে গল্প করুন, হাসুন। কিন্তু পুরনো স্মৃতিচারণা করবেন না। আবার আবেগ এলে জোর করে তাড়িয়ে দেওয়ারও প্রয়োজন নেই। কষ্ট জমিয়ে রাখলে বোঝা শুধু বাড়বেই। কাঁদতে ইচ্ছা হলে দরজা বন্ধ করে কেঁদে হালকা হয়ে যাওয়া ভালো। কান্না শেষ হলে নিজেকে ট্রিট দিন। এই কষ্টকর সম্পর্ক থেকে বের হতে পেরেছেন বলে নিজেকে ধন্যবাদ দিন।’

নতুন সম্পর্কে যাওয়ার আগে কী কী বিষয় মাথায় রাখতে হবে জানতে চেয়েছিলাম রাজশাহী বিশ্ববিদ্যালয়ের সহযোগী অধ্যাপক ও ক্লিনিক্যাল সাইকোলজিস্ট তানজির আহমেদ তুষারের কাছে। তিনি বলেন, ‘নতুন করে সম্পর্কে যাওয়ার আগে কিছু বিষয় প্রথমে নিজের কাছে পরিষ্কার হয়ে নেওয়া উচিত। প্রথমে আগের সম্পর্ক ভেঙে যাওয়ার কারণ খুঁজে বের করুন। এরপর নতুন সম্পর্কে ভবিষ্যতে আরো কী কী সমস্যা আসতে পারে সে সম্পর্কেও খনিকটা ভাবুন। সম্পর্ক থেকে আপনি কী চান সে সম্পর্কে পরিষ্কার ধারণা থাকতে হবে। স্বচ্ছ ধারণা রাখতে হবে নিজের চাওয়া-পাওয়া সম্পর্কে। একই সঙ্গে সঙ্গীর জন্য কতটা ছাড় দেওয়া যেতে পারে সে ধারণা থাকা চাই। মনে রাখতে হবে যেকোনো সম্পর্কে কম্প্রোমাইজ করতে পারা জরুরি, তবে স্যাক্রিফাইস নয়। কম্প্রোমাইজ মানেই হলো ছাড় দেওয়া। সুন্দর সম্পর্কের জন্য যেটুকু ছাড় আপনি নিজের জন্য চান, সেটুকু ছাড় সঙ্গীকেও দেওয়া উচিত।’

 দর্শনের অধ্যাপক ও সাইকোসোশাল কাউন্সিলর ড. কালীপ্রসন্ন দাস বলেন, ‘সম্পর্কের সঙ্গে বিশ্বাসের নিবিড় সম্পর্ক রয়েছে। বিশ্বাস একবার ভেঙে গেলে আবার নতুন করে গড়া কঠিন, তবে অসম্ভব নয়। তাই সঙ্গী নির্বাচনের আগে বন্ধু নির্বাচন করুন। নতুনদের সঙ্গে যত্ন নিয়ে মিশুন, জানতে ও বুঝতে চেষ্টা করুন। নিজ মনে বুঝতে চেষ্টা করুন আপনার চাওয়ার সঙ্গে তার চাওয়ার কতখানি মিল বা অমিল। সম্পর্কের ক্ষেত্রে পছন্দ করার চেয়েও জরুরি বিষয় হলো যত্ন নেওয়া। তাই খেয়াল রাখুন সঙ্গী যত্নবান কি না। ভালো-মন্দ মিলিয়েই মানুষ। ভালোর পাশাপাশি সঙ্গীর মন্দটুকুও জানতে-বুঝতে চেষ্টা করুন। মানবতা, মানসিকতা, মূল্যবোধ, আচার-আচরণ, শিষ্টাচার, যত্ন, মায়া-মমতার মতো পজেটিভ বিষয়গুলো লক্ষ  করুন। তার অসংবেদনশীলতা, কর্তৃত্ববাদী আচরণ, কৃপণতা, প্রতারণা, ক্রোধ, মিথ্যা বলা ইত্যাদি বিষয়ের দিকেও খেয়াল রাখুন। একই সঙ্গে নিজের ভালো দিকের পাশাপাশি মন্দ দিকগুলোর সঙ্গে অপরপক্ষকে পরিচিত করুন। সাংসারিক জীবনে সঙ্গী কতখানি যোগ্য হতে পারবে সেটা জানতে ও বুঝতে চেষ্টা করুন।

মনে রাখবেন পুরনো সঙ্গীর সঙ্গে নতুন বন্ধুকে মেলানো কখনোই ঠিক নয়। তাই আগে একবার কষ্ট পেয়েছেন, এর প্রভাব যেন নতুন বন্ধুত্বে না পড়ে। নিজের কাছে পরিষ্কার হওয়ার পর নতুন সম্পর্কে জড়ানোর আগে হবু সঙ্গীর সঙ্গে খোলা মনে আলোচনা করুন।

এত দিন যে চিন্তার জট আপনি একা খুলেছেন, তা এখন থেকে দুজনের।’



মন্তব্য