kalerkantho


‘ছয় বছর পর রাঁধলাম’

দখিন হাওয়ায় হুমায়ূন আহমেদের ফ্ল্যাটের দরজা এখনো খোলাই থাকে। সেটা দিয়ে ঢুকতেই অভ্যর্থনা জানালো মেহের আফরোজ শাওনের হাসি। খানিক বাদেই চলে এলো নিষাদ ও নিনিত

জিনাত জোয়ার্দার রিপা   

২০ আগস্ট, ২০১৮ ০০:০০



‘ছয় বছর পর রাঁধলাম’

ছবি : আবু সুফিয়ান নিলাভ

সরিষার তেলে রসুন-মাংস

উপকরণ

গরুর মাংস ১ কেজি, মোটা করে কাটা বড় পেঁয়াজ ৪/৫টি, আদা বাটা ৪ চা চামচ, রসুন বাটা ২ চা চামচ, হলুদ গুঁড়া ২ চা চামচ, মরিচ গুঁড়া ৪ চা চামচ, লবণ স্বাদমতো, কাঁচা মরিচ আস্ত ৮-১০টি, এলাচ ৪/৫টি, তেজপাতা ২টি, দারচিনি ২ খণ্ড, সরিষার তেল পরিমাণমতো, খোসাসহ আস্ত রসুন ৩/৪টি।

 

যেভাবে তৈরি করবেন

১.         মাংস কেটে ভালো করে ধুয়ে পানি ঝরিয়ে নিন। একটি পাত্রে কাটা পেঁয়াজের অর্ধেক অংশ, মরিচ গুঁড়া, হলুদ গুঁড়া, আদা বাটা, রসুন বাটা, এলাচ, দারচিনি, তেজপাতা ও সরিষার তেল দিয়ে মাংস মেরিনেট করে রাখুন এক ঘণ্টা।

২.         মেরিনেট করা মাংস পরিমাণমতো লবণ দিয়ে হালকা আঁচে চুলায় বসিয়ে দিন।

৩.        একটু পরপর মাংস ভালোভাবে নেড়ে দিন এবং কষাতে থাকুন।

৪.         আরেকটি পাত্রে বাকি পেঁয়াজটুকু সরিষার তেলে ভেজে বেরেস্তা করে নিন। 

৫.         মাংস ভালোমতো কষিয়ে নিয়ে এতে অল্প পানি দিন। যখন বুঝবেন মাংস মাখামাখা হয়ে আসছে, তখন খোসাসহ আস্ত রসুন ও কাঁচা মরিচ দিয়ে মাংস চুলার ওপর রেখে দিন আরো ১০ মিনিট।

৬.         ১০ মিনিট পর তেল ওপরে উঠে এলে বাকি পেঁয়াজটুকুর বেরেস্তা গুঁড়া করে ছড়িয়ে দিয়ে চুলা থেকে নামিয়ে নিন।

৭.         গরম গরম পরিবেশন করুন খুব সহজ সরিষার তেলে রসুন-মাংস।

‘ছয় বছর পর রাঁধলাম’

‘হুমায়ূন আহমেদ যখন বেঁচে ছিলেন তখন প্রতিদিন আমাকে কিছু না কিছু পদ রাঁধতেই হতো। ২০১২ সালের পর আর রান্না করিনি। ইদানীং আমার বড় ছেলে নিষাদ আবদার করে আমার হাতের রান্না খাবার জন্য। ওর বয়স এখন ১২। অনেক কিছু বোঝে ও। প্রায়ই বলে, আগে তো রান্না করতে, এখন করো না কেন? এখন ওর জন্য রাঁধি। নিনিত এ ব্যাপারে কেয়ার ফ্রি বলা যায়। ভাবেই না কে রাঁধল; বরং রাঁধতে গেলে বলে, রেঁধো না মা, ছয় বছরে তুমি তোমার রান্নার গুণ হারিয়েছ। বুঝুন! আসলে কি জানেন? বুঝলাম আমি আসলে তার জন্য রাঁধি, যে আমার রান্না খাওয়ার জন্য অপেক্ষা করে থাকে। হুমায়ূন আহমেদ করতেন, এখন নিষাদ করে।’

এক নাগাড়ে নিজের রান্নার গল্প শোনালেন মেহের আফরোজ শাওন। কোরবানির ঈদে বিশেষ কোনো পদ করবেন? জানতে চাইলে বলেন, সরিষার তেলে আস্ত রসুন-মাংস। কেন বিশেষ এই পদ জানালেন তিনি। ‘এই পুরো রান্নাটাই করা হয় সরিষার তেলে। রান্নার শেষে সরিষার  তেল আর রসুনের ঘ্রাণ মাংসের সঙ্গে মিলেমিশে অদ্ভুত সুন্দর গন্ধ ছড়ায়। এটা নিষাদের খুব প্রিয়। হুমায়ূন আহমেদেরও গরুর মাংসের এই পদ খুব পছন্দের ছিল। খাওয়ার সময় রসুনের এক একটি কোয়া খুলে খেতেন আয়েশ করে। গরুর মাংসের এই পদ আমারও খুব ভালো লাগে।’



মন্তব্য