kalerkantho


ভেষজ দাওয়াই

চর্মরোগ হলে পরে

বর্ষার সময় ত্বক ভেজা থাকা ও নোংরা পানি পায়ে লাগার মতো অনেক কারণে চর্মরোগ দেখা দেয়। তাই চর্মরোগ হলে কী করবেন, তার ভেষজ দাওয়াই দিলেন ঢাকা তিব্বিয়া হাবিবিয়া কলেজের অধ্যক্ষ হাকিম ফেরদৌস ওয়াহিদ

১৪ আগস্ট, ২০১৭ ০০:০০




চর্মরোগ হলে পরে

নিমের তেল যেকোনো চুলকানি ও পাঁচড়ায় নিয়মিত কয়েক দিন ব্যবহার করলে চর্মরোগের উপশম হয়।
*   বর্ষাকালে পায়ের আঙুলের ভাঁজে ভাঁজে ঘা হতে দেখা যায়। এ রকম হলে সামান্য তুঁতে পানিতে গুলে পায়ের আঙুলে লাগালে উপকার হবে। ঘা বাড়বে না।
দেহের যেকোনো স্থানের ফাংগাল ইনফেকশন নিরাময়ে মেহেদিপাতা বেটে ৭ থেকে ১০ দিন লাগালে উপকার হবে।
ত্বকের ক্ষতে খয়ের পেস্ট করে লাগালে সাত দিনেই সেরে যাবে।
লাল চন্দন পেস্ট করে পাঁচড়া অথবা ক্ষতে লাগালে উপকার হবে।
আকন্দগাছের কষ ১ চা চামচ, নারিকেলের দুধ ২ চা চামচ একত্রে মিশিয়ে দাদে লাগাতে হবে পাঁচ থেকে সাত দিন। তাহলে দাদ সেরে যাবে।

তুলসী বীজ পেস্ট করে পাঁচড়া অথবা ক্ষতে লাগালে উপকার হয়।
শূন্যলতা বাটা একজিমায় লাগালে ১০ থেকে ১৫ দিনে উপকার হবে।

নিয়মিত এক মাস ব্যবহার করলে পুরোপুরি সেরে যাবে।
ভৃঙ্গরাজ পাতার রস ৪ চা চামচ সকালে খালি পেটে ১০ থেকে ১৫ দিন পান করলে চুলকানিতে উপকার হয়।
চুলকানিতে কাঁচা হলুদ, নিমপাতা ও সরিষা একত্রে বেটে ব্যবহার করতে হবে ৭ থেকে ১০ দিন। তাহলে চুলকানি পুরোপুরি সেরে যাবে।
ক্ষেতপাপড়া ৫ গ্রাম পরিমাণ পাটায় বেটে রস করে প্রতিদিন সকালে ১০ থেকে ১৫ দিন সেবন করলে একজিমায় উপকার হয়। এ ক্ষেত্রে দীর্ঘমেয়াদি চিকিত্সা করতে হয়।
মেহেদিপাতা, ক্ষেতপাপড়া, চাকুন্দে পাতা প্রতিটি সমপরিমাণ নিয়ে একত্রে বেটে একজিমার ক্ষতে ১০ থেকে ১৫ দিন লাগালে উপকার হবে।
চিতামূল বেটে ঘায়ে পেস্ট করে ৭ থেকে ১০ দিন লাগালে ঘা শুকিয়ে যাবে


মন্তব্য