kalerkantho


ফল ও শাকসবজি

কীটনাশক মুক্ত করতে

১৭ জুলাই, ২০১৭ ০০:০০



কীটনাশক মুক্ত করতে

♦    ঠাণ্ডা পানিতে ভালো করে ঘষে ঘষে ফল ও সবজি ধুলে ৮০ শতাংশ কীটনাশক চলে যায়। তবে কয়েকটা ফল যেমন—আপেল, পেয়ারা, আঙুর, আম, নাশপতি এবং সবজির মধ্যে টমেটো ঢেঁড়স আর শাক অন্তত তিনবার ঠাণ্ডা পানিতে ধুয়ে নিতে হবে।

ভালো করে ফল আর সবজির গা ঘষে ঘষে ধুতে হবে। অনেক সময় ফলের বোঁটার কাছে কীটনাশক জমে থাকে। তাই বোঁটার অংশটা ভালো করে কেটে বাদ দিতে হবে। এরপর ভালো করে ধুয়ে নিন। অন্তত ১ মিনিট ঠাণ্ডা পানির মধ্যে ভিজিয়ে রেখে ধুতে হবে।

♦    লবণ পানি দিয়ে ফল ও শাকসবজি ধোয়া হলে, আরো বেশি কীটনাশকমুক্ত  হবে। ২ টেবিল চামচ লবণ ৪ কাপ গরম পানিতে মিশিয়ে নিন। এই পানি ঠাণ্ডা করে তাতে ৩০ থেকে ৬০ মিনিট ফল ও শাকসবজি ভিজিয়ে রাখুন। এরপর ঠাণ্ডা পানির মধ্যে ভালো করে ঘষে ধুয়ে ফেলুন।

স্ট্রবেরি বা চেরি ফলের মতো নরম ফল লবণ পানিতে না ভিজিয়ে রাখাই ভালো। কারণ ফলের মধ্যে লবণ ঢুকে যেতে পারে। এসব ফল এমনি ঠাণ্ডা পানির মধ্যে আধা ঘণ্টা ভিজিয়ে রেখে ধুয়ে নিন।

♦    লবণ পানির বদলে ভিনেগারের মধ্যেও ভিজিয়ে রাখতে পারেন। এ ছাড়া ভিনেগারের বদলে লেবুর রসও ব্যবহার করা যায়। একটা বড় পাত্রে চার ভাগ পানি আর এক ভাগ ভিনেগার দিন। এতে এবার ফল ও শাকসবজি ভিজিয়ে রাখুন। ৩০ থেকে ৬০ মিনিট ভিজিয়ে রাখার পর ভালো করে ঘষে ঠাণ্ডা পানিতে ধুয়ে নিন। ভিনেগার ব্যবহার করলে ফল ও শাকসবজি অনেকক্ষণ তাজাও থাকবে।

♦    যদি সময় কম থাকে, তাহলে লবণ বা পানি বা ভিনেগারের মধ্যে না ভিজিয়ে রেখে স্প্রে করে ব্যবহার করতে পারেন। একটা স্প্রে বোতলে ১ টেবিল চামচ লেবুর রস, ১ টেবিল চামচ ভিনেগার আর ১ কাপ পানি ভালো করে মিশিয়ে নিন। বোতল ভালো করে ঝাঁকিয়ে ফল ও শাকসবজির গায়ে স্প্রে করুন। ২ মিনিট রেখে অন্তত ৩০ সেকেন্ড ঘষে ঠাণ্ডা পানির মধ্যে ধুয়ে নিন।

 

খেয়াল রাখুন

বাসন ধোয়ার ডিশওয়াশ বা সাবান ফল বা সবজি ধুতে ব্যবহার করবেন না। ফল ও শাকসবজির গায়ে ছোট ছোট ছিদ্র থাকে, যা খালি চোখে দেখা যায় না। সাবান দিয়ে ধুলে সবজি ও ফলের মধ্যে চলে যেতে পারে। এর ফলে শারীরিক ক্ষতি হওয়ার আশঙ্কা থাকে।


মন্তব্য