kalerkantho


কুড়িগ্রাম-১

গণমানুষের কল্যাণে কাজ করতে চান বীরবল

কুড়িগ্রাম প্রতিনিধি   

১২ অক্টোবর, ২০১৮ ০০:০০



কুড়িগ্রাম-১ (নাগেশ্বরী-ভূরুঙ্গামারী) আসনে নৌকার হাল ধরেই মানুষের কল্যাণে কাজ করে বাকি জীবন কাটাতে চান আলহাজ মো. মজিবুর রহমান বীরবল। একজন মুক্তিযোদ্ধা ও প্রবীণ রাজনীতিবিদ বীরবল আওয়ামী লীগের রাজনীতির সঙ্গে জড়িয়ে আছেন বহু বছর। ছাত্রজীবনে ছাত্রলীগের মাধ্যমে রাজনৈতিক জীবন শুরু করেন। শুধু রাজনীতি নয়, একজন শিক্ষানুরাগী হিসেবেও তাঁর ব্যাপক পরিচিতি রয়েছে। রাজনৈতিক জীবনেও কারাবরণসহ সইতে হয়েছে অনেক ধকল। 

এই ত্যাগী প্রবীণ নেতা বর্তমানে কুড়িগ্রাম জেলা শাখা কৃষক লীগের সভাপতির দায়িত্ব পালন করে আসছেন। বঙ্গবন্ধুর নির্দেশ মোতাবেক গণ-আন্দোলন, মুক্তিযুদ্ধে অংশগ্রহণ এবং ভারতের চৌধুরীহাট যুবশিবির স্থাপন ও যুদ্ধে অংশগ্রহণ করেন তিনি। তিনি ১৯৭৪ সাল থেকে নাগেশ্বরী উপজেলা আওয়ামী লীগের সভাপতি হিসেবে ১৪ বছর দায়িত্ব পালন করেন। মজিবুর রহমান বীরবল নাগেশ্বরীর ছাত্রলীগ, যুবলীগ, স্বেচ্ছাসেবক লীগ, রাসেল স্মৃতি সংসদ ও বঙ্গবন্ধু পরিষদ গঠন এবং আওয়ামী লীগকে সুসংগঠিত করেন।

১৯৮৬ সালে আওয়ামী লীগের মনোনয়নে কুড়িগ্রাম-১ আসনে মজিবুর রহমান বীরবল ১৫ দলীয় ঐকজোটের নৌকা প্রতীকের প্রার্থী হিসেবে প্রতিদ্বন্দ্বিতা করেন। কিন্তু ভোট ডাকাতি করে তাঁকে হারিয়ে দেওয়া হয় বলে অভিযোগ তাঁর।

মজিবুর রহমান বীরবল বলেন, ‘দীর্ঘদিন ধরে এই আসনে নৌকা মার্কায় ভোট দেওয়ার অধিকার থেকে বঞ্চিত রয়েছে ভোটাররা। তাই তারা নৌকায় ভোট দেওয়ার জন্য উদগ্রীব। মহাজোটের কারণে যাঁকে বারবার আসনটি ছেড়ে দেওয়া হচ্ছে, সেই মোস্তাক এমপি কোনো উন্নয়ন না করায় তাঁর জনপ্রিয়তা শূন্যের কোঠায়। জনগণ এবার আর মোস্তাকের দিকে তাকাবে না। আওয়ামী লীগ থেকে আমাকে মনোনয়ন দেওয়া হলে আমি বিপুল ভোটে জয়যুক্ত হতে পারব এবং দীর্ঘদিনের উন্নয়নবঞ্চনার অবসান ঘটিয়ে ব্যাপক উন্নয়ন করতে পারব।’



মন্তব্য