kalerkantho


নিজের ফাঁসি চাইলেন মনোনয়নবঞ্চিত নেত্রী

আঞ্চলিক প্রতিনিধি, ময়মনসিংহ   

১১ ফেব্রুয়ারি, ২০১৯ ০০:০০



নিজের ফাঁসি চাইলেন মনোনয়নবঞ্চিত নেত্রী

সংসদীয় আসন ও সংরক্ষিত নারী আসনে মনোনয়ন চেয়ে বারবার ব্যর্থ হওয়ায় আওয়ামী লীগের এক নেত্রী সামাজিক যোগাযোগ মাধ্যম ফেসবুকে নিজের ফাঁসি চেয়েছেন। তাঁর নাম নাজনীন আলম। তিনি ময়মনসিংহের গৌরীপুর উপজেলার বাসিন্দা ও জেলা আওয়ামী লীগের সদস্য।

নাজনীন আলমের নিজস্ব ফেসবুক আইডি ঘেঁটে দেখা যায়, সেখানে ১০টি পয়েন্টে নিজের রাজনৈতিক জীবনের হতাশার চিত্র তুলে ধরেছেন। গতকাল রবিবার দুপুরে মুঠোফোনে কথা হলে তিনি ফেসবুকে দেওয়া তথ্যের সত্যতা নিশ্চিত করেন।

নাজনীন আলম জানান, ছাত্রজীবনে ছাত্রলীগের রাজনীতিতে জড়িত হন। এরপর অনেক চড়াই-উতরাই পেরিয়ে ময়মনসিংহ জেলা আওয়ামী লীগের সদস্য নির্বাচিত হন। এর আগে তিনি ময়মনসিংহ-৩ (গৌরীপুর) থেকে দলীয় মনোনয়ন চেয়ে বঞ্চিত হন। পরে স্বতন্ত্র প্রার্থী হিসেবে নির্বাচন করে সামান্য ভোটের ব্যবধানে পরাজিত হন। এর পর থেকে গৌরীপুরে ব্যাপক আলোচিত ছিলেন তিনি। এ অবস্থায় সাবেক এমপি ও স্বাস্থ্য প্রতিমন্ত্রী ক্যাপ্টেন মজিবুর রহমান মারা যান। তখন উপনির্বাচনে তিনি আওয়ামী লীগের মনোনয়নপ্রত্যাশী ছিলেন। কিন্তু ২০১৬ সালের উপনির্বাচনে ময়মনসিংহের প্রবীণ রাজনৈতিক নাজিম উদ্দিনকে মনোনয়ন দিলে ফের বঞ্চিত হন নাজনীন। তখনো তাঁকে দল থেকে পরের বারের জন্য আশ্বাস দেওয়া হয়। সেই আশায় থেকে সদ্য সমাপ্ত একাদশ জাতীয় সংসদ নির্বাচনে দলীয় মনোনয়ন চান তিনি। কিন্তু এবারও তাঁকে বঞ্চিত করে নাজিম উদ্দিনকে মনোনয়ন দেওয়া হয়। এ সময় নাজনীনকে আশ্বস্ত করা হয়, তাঁকে সংরক্ষিত নারী আসনে মনোনয়ন দেওয়া হবে। কিন্তু সম্প্রতি সংরক্ষিত নারী আসনে মনোনয়ন পান ভালুকার সাবেক এমপি অ্যাডভোকেট মোস্তুফা এম এ মতিনের মেয়ে মনিরা সুলতানা। এবার মনোনয়ন না পেয়ে নাজনীন সত্যি সত্যিই মুষড়ে পড়েন। এরপর এক প্রকার হতাশা থেকে তিনি নিজের ফেসবুক আইডিতে ফাঁসি চেয়ে বসেন।



মন্তব্য