kalerkantho


নারী দিবসে প্রত্যাশা

দীর্ঘায়িত হোক সফল ও স্বাধীন নারীর তালিকা

ফেরদৌস আরা রীনু, সহকারী শিক্ষক, সরকারি কলেজিয়েট উচ্চ বিদ্যালয়, চট্টগ্রাম।   

৮ মার্চ, ২০১৭ ০০:০০



দেশের নারীসমাজ আজো অবহেলিত। সবক্ষেত্রে এখনো পিছিয়ে।

পথেঘাটে-কর্মক্ষেত্রে তো বটেই, ঘরেও নারীর নিরাপত্তাহীনতা দূর হচ্ছে না। পুরুষ সবই করতে পারে-এই ধারণা সভ্যতার অনাদি অতীত থেকে সঞ্চারিত হচ্ছে পৃথিবীতে।

অথচ একজন শিশু জন্মায় মানুষ হয়ে। কিন্তু পুরুষতান্ত্রিক সমাজ মেয়েশিশুকে ক্রমশ নারী নামক ধারণায় আবদ্ধ করে ফেলে। যে মেয়ে শিক্ষিত, যার স্বনির্ভর হওয়ার যোগ্যতা ও সুযোগ আছে; সে জীবনকে কীভাবে দেখবে, তার লক্ষ্য কী হবে সে বুঝতে পারে। ফলে তার পেশাগত জীবন আর সংসার অন্তরায় হয় না। আসল বাধা মনে। চিন্তার দীন্যতা, দৃষ্টিভঙ্গির অস্বচ্ছতায় নারীর চলার পথ আজো প্রস্তরাকীর্ণ। পুরুষের সংসার সামলান নারী।

কিন্তু নারী স্বয়ং যখন কৃতী হয়ে ওঠে তখন সংসারে কর্তব্যে অবহেলার শঙ্কা মুখ্য হয়ে ওঠে। আজ শিকল খসানোর ঝমঝমানি বৃহৎ শব্দ হয়ে বাজুক। সফল ও স্বাধীন নারীর তালিকা দীর্ঘায়িত হোক। নারীর ঠিকানা যেন ঘরবন্দি না হয়। প্রতিটি মেয়ে যেন চারপাশের ‘না’ শুনতে শুনতে তার জীবন-স্বপ্ন-অন্তরের সুপ্ত ক্ষমতা বিকশিত করার ক্ষেত্র অন্দরমহলের আবর্জনার স্তুপ আবদ্ধ না হয়। এটিই হোক নারী দিবসের প্রত্যাশা।


মন্তব্য