kalerkantho


বেহালার সুরে মুগ্ধ দর্শক

দ্বিতীয় রাজধানী ডেস্ক   

৫ ফেব্রুয়ারি, ২০১৭ ০০:০০



বেহালার সুরে মুগ্ধ দর্শক

নগরীর থিয়েটার ইনস্টিটিউট মিলনায়তনে বেহালা শিল্পীদের পরিবেশনা। ছবি : কালের কণ্ঠ

‘ভায়োলিনিস্টস’ চট্টগ্রামের শিল্পীদের পরিবেশনায় বেহালার সুর মুগ্ধ করলো দর্শকদের। গত শুক্রবার সংগঠনের ৬ষ্ঠ বর্ষপূর্তি উপলক্ষে নগরীর থিয়েটার ইনস্টিটিউট মিলনায়তনে বেহালা বাদনের এ অনুষ্ঠানের আয়োজন করে সংগঠনটি।

অনুষ্ঠানের শুরুতেই ছিল বৃন্দবাদন। ইমন রাগে সমবেত পরিবেশনায় মুগ্ধ হন হলভর্তি দর্শক। এরপর শুরু হয় কথামালা। এতে প্রধান অতিথি চট্টগ্রাম বিশ্ববিদ্যালয়ের উপাচার্য ড. ইফতেখার উদ্দিন চৌধুরী। তিনি বলেন, ‘বেহালা সুরেলা যন্ত্র। সব দেশেই সৃষ্টিশীল মানুষ এ যন্ত্রের প্রতি অনুরাগী। আর এ ধরনের সুরেলা যন্ত্রের চর্চা যত বেশি হবে ততই আমাদের যুব সমাজ সুস্থ সাংস্কৃতিক চর্চার দিকে আকৃষ্ট হবে। ’

বিশেষ অতিথি শিক্ষাবিদ অধ্যাপক আনোয়ারা আলম বলেন, ‘বেহালায় সমবেত পরিবেশনা শুনে আমি মুগ্ধ। এ রকম সুরের আবেশ যেকোনো মানুষকে প্রাণিত করবে।

’ আয়োজকদের ধন্যবাদ জানিয়ে তিনি বলেন, ‘ভিন্নধর্মী এ আয়োজন মানুষের মধ্যে সুস্থ সাংস্কৃতিক চর্চার পথ অবারিত করবে। ’

কথামালায় স্বাগত বক্তব্য দেন সংগঠনের সাধারণ সম্পাদক প্রিয়তোষ বড়ুয়া।   তিনি বলেন, ‘আমরা চাই যুব সমাজ এ সুরেলা যন্ত্রের প্রতি আকর্ষিত হোক। এ জন্য আমাদের এ আয়োজন। ’

অনুষ্ঠানে সভাপতিত্ব করেন রাশেদ চৌধুরী। কথামালার পর সংগঠনের শিল্পীরা বেহালায় সমবেত বৃন্দ বাজিয়ে শোনান রবীন্দ্রনাথের ‘আলোকের এই ঝর্ণা ধারায়’ গান। এরপর অনুষ্ঠানে হোময়রা আফরাঈম মম ও আনিলা নওশীন মাহিতা বেহালায় রাগ যোগ ও রাগ পাহাড়ী খাম্বাজ বাজিয়ে শোনান। স্নিগ্ধা দেব বাজিয়ে শোনান ‘মোর ভাবনারে’ গানটি।

সংগঠনের সভাপতি ডা. তন্ময় সরকার বাজিয়ে শোনান রবীন্দ্রনাথের ‘একি লাবণ্যে পূর্ণ প্রাণ’ আর রজনীকান্তের ‘তুমি মঙ্গল কর’ গান দুটি। আনিলা নওশীন মাহিতা, রওনাক ইবতিসামা চৌধুরী ও সাজ্জাদুল ইসলাম বাজিয়ে শোনান ‘তুমি রবে নীরবে’, ‘সুন্দর সুবর্ণ’ ও ‘গ্রাম ছাড়া ’ গানগুলো। নাবিলা নুসরাত, পর্ণা বড়ুয়া আর রাহেলা রিজওয়ানা চৌধুরী ঊর্মি পরিবেশন করেন ‘বাঁশী শুনে আর কাজ নাই’, ‘অশ্রু দিয়ে লেখা’ ও ‘এত সুর আর এত গান’ এই জনপ্রিয় গানগুলো। অনুষ্ঠানে সংগীত পরিচালনায় ছিলেন প্রিয়তোষ বড়ুয়া। সর্বশেষ পরিবেশনা ছিল বৃন্দবাদন রাগ খাম্বাজ। অনুষ্ঠান সঞ্চালনায় ছিলেন প্রবীর পাল। শিল্পীদের তবলায় সহযোগিতা করেন ত্রিদীপ বৈদ্য ও প্রান্ত ভট্টাচার্য। কি বোর্ডে ছিলেন সুজন ও পারকিউশনে ফারুক আহমেদ।


মন্তব্য