kalerkantho


চিংড়িতে ক্ষতিকর জেলি

৮০০ গ্রাম মাছের ওজন হয়ে যায় এককেজি!

ফেনী প্রতিনিধি   

২ ফেব্রুয়ারি, ২০১৭ ০০:০০



জেলার সবচেয়ে বড় মাছের আড়ত পৌর মাছের আড়তে গতকাল বুধবার অভিযান চালিয়েছে ভ্রাম্যমাণ আদালত। অভিযান পরিচালনা করেন জেলা প্রশাসনের নির্বাহী ম্যাজিস্ট্রেট সোহেল রানা।

আড়তের সব দোকানেই চলে অভিযান। এ সময় প্রায় আড়াই মণ জেলিসহ চিংড়ি জব্দ করা করা হয়। দুজন আড়তদার বার আউলিয়া মাছের আড়ত ও যমুনা ফিশারিজের মালিককে ৫০০০০ টাকা করে এক লাখ টাকা অর্থদণ্ডে দণ্ডিত করা হয়।

পরে জব্দ করা চিংড়িগুলো উপস্থিত সবার সামনে আগুনে পুড়িয়ে ধ্বংস করা হয়।

এ প্রসঙ্গে নির্বাহী ম্যাজিস্ট্রেট সোহেল রানা কালের কণ্ঠকে জানান, দেশজুড়েই চলছে এ ধরনের অভিনব প্রতারণা। মানব স্বাস্থ্যের জন্য ক্ষতিকর জেলি মেশানোর ফলে প্রায় ৮০০ গ্রাম মাছের ওজন হয়ে যায় এককেজি! এতে কেজিতে প্রায় ২০০ গ্রাম ওজন কারচুপি করা হয়।

তিনি বলেন, ‘এই ধরনের প্রতারণা সারাদেশে ছড়িয়ে পড়েছে। এ ব্যাপারে ভোক্তাদেরও সচেতন হতে হবে। ’ তিনি জানান, ফেনীতে অভিযান অব্যাহত থাকবে।

অভিযানে জেলা প্রশাসনের সহকারী কমিশনার সারোয়ার সালাম, শ্যামল কান্তি বসাক, জেলা মত্স্য কর্মকর্তা ও সদর উপজেলা মত্স্য কর্মকর্তা উপস্থিত ছিলেন।


মন্তব্য