kalerkantho

রবিবার। ৪ ডিসেম্বর ২০১৬। ২০ অগ্রহায়ণ ১৪২৩। ৩ রবিউল আউয়াল ১৪৩৮।


ভ্রাম্যমাণ আদালত

কিশোরীকে বিয়ে করতে গিয়ে ব্যবসায়ীকে দিতে হলো জরিমানা

বোয়ালখালী প্রতিনিধি   

১৮ অক্টোবর, ২০১৬ ০০:০০



১৪ বছরের কিশোরীকে বিয়ে করতে গিয়ে ৫৫ বছর বয়সী মো. রফিককে দিতে হলো জরিমানা। ভ্রাম্যমাণ আদালত বিয়ে ভেঙে দিয়ে ওই কিশোরীর মা-বাবাকেও জরিমানা করেছে।

গতকাল সোমবার দুপুরে রফিককে এক হাজার টাকা জরিমানা দেওয়ার আদেশ দেন বোয়ালখালী উপজেলা নির্বাহী কর্মকর্তা (ইউএনও) কাজী মাহবুবুল আলম। একই সঙ্গে কিশোরীর বাবা ও মাকে এক হাজার করে দুই হাজার টাকা জরিমানা করা হয়।

রফিকের বাড়ি রাউজান উপজেলায়। তিনি নগরীর চান্দগাঁও এলাকায় থাকেন। সেখানে তাঁর দুটি নিজস্ব ভবন এবং ব্যবসাপ্রতিষ্ঠান রয়েছে। কিশোরীটির বাড়ি বোয়ালখালীর শ্রীপুর-খরণদ্বীপ ইউনিয়নে। স্থানীয় একটি স্কুলের অষ্টম শ্রেণির ছাত্রী সে।

ইউএনও কাজী মাহবুবুল আলম কালের কণ্ঠকে বলেন, ‘রফিক আগেও একবার বিয়ে করেছিলেন। এক বছর আগে ওই স্ত্রীর সঙ্গে তাঁর ছাড়াছাড়ি হয়। সেই সংসারে দুই মেয়ে ও এক ছেলে আছে। কিশোরীটির বাবা মধ্যবিত্ত হলেও রফিকের অর্থের লোভে মেয়েকে বিয়ে দিতে রাজি হন। ’

জানা গেছে, সমপ্রতি রফিকের প্রথম স্ত্রী বোয়ালখালীর ইউএনওর কাছে অভিযোগ করেছেন, রফিক তালাকের শর্ত অনুযায়ী তাঁকে ভরণপোষণ দিচ্ছেন না। আবার অপ্রাপ্তবয়স্ক একটি মেয়েকে বিয়ের চেষ্টাও করছেন।

অভিযোগ পাওয়ার পর রফিক ও কিশোরীর মা-বাবাকে তলব করেন ইউএনও। তাঁরা বিয়ের বিষয়টি চূড়ান্ত হয়েছে বলে তাঁর কাছে স্বীকার করেন। এরপর ইউএনও ভ্রাম্যমাণ আদালত পরিচালনা করে বাল্যবিবাহ প্রতিরোধ আইনে তাঁদের জরিমানা এবং বিয়ের আয়োজন বন্ধ করার আদেশ দেন।


মন্তব্য