kalerkantho

বৃহস্পতিবার । ৮ ডিসেম্বর ২০১৬। ২৪ অগ্রহায়ণ ১৪২৩। ৭ রবিউল আউয়াল ১৪৩৮।


এতিমখানার দোকান ভেঙে জমি দখল

নিজস্ব প্রতিবেদক   

১৬ অক্টোবর, ২০১৬ ০০:০০



এতিমখানার খরচ জোগাতে নিজস্ব জায়গায় গড়ে তোলা দোকান গুঁড়িয়ে দিয়ে দখল করে সাইনবোর্ড লাগিয়ে দিয়েছে একটি মহল। এতে ওই এতিমখানার শিক্ষার্থী ও শিক্ষকেরা আতঙ্কে রয়েছে।

ঘটনাটি ঘটেছে লোহাগাড়া উপজেলায়।

জানা গেছে, উপজেলার আধুনগর আকবরপাড়ায় আহমদিয়া এতিমখানা ও হেফজখানা প্রতিষ্ঠা করেন বিশিষ্ট সমাজসেবক হাজি সামশুল ইসলাম। বটতলী স্টেশনে তাঁর কেনা জমিতে স্থাপিত চারটি দোকানের ভাড়ায় পরিচালিত হত এতিমখানাটি।

অতি সমপ্রতি ওই জায়গা দখলে নিতে স্থানীয় ‘প্রভাবশালী’ জুনাইদ হাসান ও তাঁর সহযোগীরা ওঠেপড়ে লেগেছেন। ইতোমধ্যে বল প্রযোগ করে তাঁরা চার দোকানের মধ্যে দুটি ভেঙে গুঁড়িয়ে দিয়েছেন।

জায়গাটি টিন দিয়ে ঘেরাও করে ‘জুনাইদ হাসান গং জায়গাটির মালিক’ লেখা সম্বলিত একটি সাইনবোর্ডও লাগিয়ে দেওয়া হয়েছে। ঘটনাটি জানিয়ে ব্যবস্থা নিতে লোহাগাড়া থানায় লিখিত অভিযোগ করেছেন এতিমখানার প্রতিষ্ঠাতা হাজি সামশুল ইসলাম।

এ প্রসঙ্গে সামশুল ইসলাম কালের কণ্ঠকে বলেন, ‘প্রায় ২৪ বছর আগে আমি ও আমার ভাই ওই ১৯ শতক জমি কিনে সম্মুখভাগে চারটি দোকান গড়ে তুলি। এসব দোকানের ভাড়া দিয়ে এতিমখানার খরচ চলে। দিন দিন এতিমখানায় শিক্ষার্থী বাড়ছে। পাশাপাশি খরচও বাড়ছে। তাই একমাস আগে জমিটিতে একটি বহুতল ভবন নির্মাণের উদ্যোগ নিয়েছিলাম। যাতে এর আয়ে এতিমখানার শত শত এতিম, অসহায় ও মেধাবী ছাত্রছাত্রী আমার মৃত্যুর পরও সুন্দরভাবে তাদের ভরণপোষণ ও অন্যান্য খরচ চালিয়ে যেতে পারে। ’

তিনি জানান, জুনাইদ হাসান ও তাঁর সহযোগীরা ওই জায়গা দখল করতে মরিয়া। ‘প্রভাবশালী’ হওয়ায় নানা সময়ে হুমকি-ধমকিও দিচ্ছেন তাঁরা।


মন্তব্য