kalerkantho

রবিবার। ৪ ডিসেম্বর ২০১৬। ২০ অগ্রহায়ণ ১৪২৩। ৩ রবিউল আউয়াল ১৪৩৮।


অবহেলিত জনপদে ‘মেডিসিন ব্যাংক’

নিজস্ব প্রতিবেদক   

১৬ অক্টোবর, ২০১৬ ০০:০০



অবহেলিত জনপদে ‘মেডিসিন ব্যাংক’

স্বেচ্ছাসেবী সংগঠন ইয়ুথ ফর ওয়েলফেয়ারের সংগঠক ও স্বেচ্ছাসেবকরা। ছবি : কালের কণ্ঠ

অবহেলিত জনপদে বিনা মূল্যে স্বাস্থ্যসেবা দিচ্ছে ‘ইয়ুথ ফর ওয়েলফেয়ার’ নামে একটি স্বেচ্ছাসেবী সংগঠন। এতে সব খরচের জোগান দেন সংগঠনটির সংগঠক ও স্বেচ্ছাসেবক নিজেরাই।

চার বছর ধরে গ্রামে গ্রামে ‘মেডিসিন ব্যাংক’ শিরোনামে ওই কার্যক্রম চালাচ্ছেন তাঁরা।

সংগঠনের চেয়ারম্যান আদনান মাহমুদ কালের কণ্ঠকে বলেন, ‘বিবেকের তাড়নায় আমরা অবহেলিত জনপদে চিকিৎসাসেবা দিচ্ছি। প্রতিষ্ঠার পর গত চার বছরে আমাদের পরিচালিত ৪৫টি হেলথ ক্যাম্পে মোট ৮ হাজার ৯৫০ জনকে সেবা দেওয়া হয়। আগামীতে আমাদের কার্যক্রম আরো বিস্তৃত হবে। চট্টগ্রামের রাউজান ও বোয়ালখালী এবং নোয়াখালীতে হেলথ ক্যাম্পের প্রস্তুতি চলছে। ’

সংগঠনের সাধারণ সম্পাদক হামিদ হোছাইন আজাদ বলেন, ‘উপজেলা পর্যায়ে  অবহেলিত জনপদে আমাদের হেলথ ক্যাম্প পরিচালিত হয়। ’

যেখানে সরকারি সেবাকেন্দ্র উপজেলা স্বাস্থ্য কমপ্লেক্স, ইউনিয়ন সেবাকেন্দ্র ও কমিউনিটি ক্লিনিক নেই, যে এলাকার মানুষ তুলনামূলক আর্থিকভাবে দুর্বল, দরিদ্র মানুষের সংখ্যা বেশি, এলাকার ফার্মেসি থেকে তথ্য সংগ্রহ করে রোগ ও রোগীর ধরন বুঝে সেবা দেওয়া এবং যোগাযোগ ব্যবস্থা অনুন্নত-এমন এলাকায় সংগঠনটি হেলথ ক্যাম্প পরিচালনা করে বলে জানান তিনি।

সংগঠন সূত্রে জানা যায়, চট্টগ্রামের বেসরকারি মেডিক্যাল কলেজ হাসপাতাল ইউএসটিসির একদল শিক্ষার্থী ২০১২ সালের ১২ ডিসেম্বর প্রতিষ্ঠা করেন ‘ইয়ুথ ফর ওয়েলফেয়ার (ওয়াইডাব্লিউও)’। অবহেলিত জনপদে স্বাস্থ্যসেবা বঞ্চিতদের সেবা দেওয়ার উদ্দেশ্যেই তাঁদের এ উদ্যোগ। সংগঠক ও স্বেচ্ছাসেবকদের অনুদানেই চলে সংগঠনটি। দলগত প্রচেষ্টা এবং দলের সঙ্গে সম্পৃক্ত সবার নিজ নিজ দক্ষতাই সংগঠনের চালিকাশক্তি। ইতোমধ্যে চট্টগ্রাম জেলার পটিয়া, চন্দনাইশ, সাতকানিয়া, লোহাগাড়া, রাউজান, রাঙ্গুনিয়া, সীতাকুণ্ড, মিরসরাই, আনোয়ারা, বাঁশখালী এবং কক্সবাজার জেলার চকরিয়া, মহেশখালী ও রামুসহ বিভিন্ন এলাকায় ৩০ তরুণ চিকিৎসক এবং ১৫৮ জন স্বেচ্ছাসেবকের অংশগ্রহণে ৪৫টি স্বাস্থ্যসেবা কর্মসূচি পালিত হয়। এর মাধ্যমে প্রায় ৯ হাজার জনকে বিনা মূল্যে স্বাস্থ্যসেবা দেওয়া হয়।

জানা যায়, দরিদ্র ও অসচ্ছল জনগোষ্ঠীর মাঝে ‘মেডিসিন ব্যাংক’ এর মাধ্যমে দেওয়া হয় প্রয়োজনীয় ওষুধ। ক্যাম্পে ডায়াবেটিস নির্ণয়ের মাধ্যমে ডায়াবেটিসের লক্ষণ, জটিলতা ও নিয়ন্ত্রণে করণীয় নিয়ে আলোকপাত করা হয়। শিক্ষাপ্রতিষ্ঠানের শিক্ষার্থীদের রক্তের গ্রুপ নির্ণয় ও অনুপ্রেরণামূলক কর্মসূচি গ্রহণ, ‘সুস্থ শিশু সুস্থ ভবিষ্যৎ’ শিরোনামে সুবিধাবঞ্চিত শিশুদের স্বাস্থ্যসেবা দেওয়া হয়। তাছাড়া রক্ত পরীক্ষা, রক্তচাপ নির্ণয়, ইসিজি করা, রক্তগ্রুপ নির্ণয়, ওজন ও উচ্চতা মাপা হয়। একই সঙ্গে বেসিক হেলথ ক্যাম্পে তরুণ-তরুণীদের স্বেচ্ছায় রক্তদানে উদ্বুদ্ধ করা, স্বাস্থ্য সম্পর্কিত বিভিন্ন বিষয়ে সাধারণ মানুষের মধ্যে সচেতনতা তৈরি, মেডিক্যাল শিক্ষার্থীদের চর্চা ও দক্ষ চিকিৎসক হিসেবে গড়ে তোলা হয়।


মন্তব্য