kalerkantho

রবিবার। ৪ ডিসেম্বর ২০১৬। ২০ অগ্রহায়ণ ১৪২৩। ৩ রবিউল আউয়াল ১৪৩৮।


যানজট কমেছে চিরিঙ্গায়

সরিয়ে নেওয়া হল সেই কাঁচাবাজার

ছোটন কান্তি নাথ, চকরিয়া   

২৯ সেপ্টেম্বর, ২০১৬ ০০:০০



দীর্ঘদিনের দাবির মুখে চকরিয়া পৌরশহর চিরিঙ্গার কাঁচাবাজারটি সরিয়ে নেওয়া হল। পৌর বাস টার্মিনাল এলাকায় নির্মিত ‘কিচেন মার্কেট’ই এখন থেকে কাঁচাবাজার।

এতে চিরিঙ্গা বালিকা বিদ্যালয় সড়কসহ আশপাশের সব সড়কে যানজট কমেছে।

সংশ্লিষ্টরা জানান, বছরের পর বছর চিরিঙ্গা বালিকা বিদ্যালয় সড়কের দুপাশের অসংখ্য দোকান গড়ে ওঠে কাঁচামালের আড়ত হিসেবে। প্রতিদিন শতাধিক ট্রাক, পিকআপে আনা সবজিসহ বিভিন্ন কাঁচামাল এসব আড়তে লোড-আনলোড করা হত। এতে যান ও জনজট লেগেই থাকত। এই অবস্থায় সরকারি বালিকা বিদ্যালয়, আবাসিক মহিলা কলেজ, কোরক বিদ্যাপীঠসহ আশপাশের বেশ কয়েকটি শিক্ষাপ্রতিষ্ঠানের শিক্ষার্থীদের যাতায়াতে পোহাতে হত সীমাহীন দুর্ভোগ। তবে আশার কথা, বালিকা বিদ্যালয় সড়কের কাঁচামালের আড়ত, সবজি, মাছ ও মাংসের দোকান কিচেন মার্কেটে সরিয়ে নেওয়ায় সেই দুর্বিষহ যন্ত্রণা আর পোহাতে হবে না।

পৌরসভা কার্যালয় সূত্র জানায়, চকরিয়া পৌরসভা প্রতিষ্ঠিত হয় ১৯৯৪ সালে। এরপর থেকে বাণিজ্যিক কেন্দ্র চিরিঙ্গা-সোসাইটিতে বাসা বাধে যানজট। এ কারণে চট্টগ্রাম-কক্সবাজার মহাসড়কেও দূরপাল্লার যানবাহন চলাচলে মারাত্মক বিঘ্ন ঘটে আসছিল। একইভাবে পৌরশহরের অলি-গলিতেও যানজট লেগে থাকত।

পৌরসভার চার নম্বর ওয়ার্ডের বাসিন্দা ও আওয়ামী লীগ নেতা এস এম আলমগীর হোছাইন কালের কণ্ঠকে বলেন, ‘পৌরসভা প্রতিষ্ঠার পর থেকে একজন প্রশাসক ও তিনজন মেয়র দায়িত্ব পালন করেছেন। তাঁরা চিরিঙ্গার যানজট নিরসনের জন্য তত্পরতা দেখালেও তা কাগজে-কলমেই সীমাবদ্ধ ছিল। মাঝে-মধ্যে যানজট নিরসনের জন্য ফুটপাত থেকে অবৈধ ব্যবসাপ্রতিষ্ঠান উচ্ছেদ করলেও তা ছিল লোকদেখানো। এতে অভিযানের পর পরই ফের দখল হত ফুটপাত। ’

জানা গেছে, বর্তমান উপজেলা চেয়ারম্যান জাফর আলম যখন পৌর মেয়র ছিলেন তখন (২০০৭ সাল) পৌরশহরকে যানজটমুক্ত করতে বিশেষ উদ্যোগ নেন। ওই মেয়াদে তিনি আড়াই কোটি টাকা ব্যয়ে নির্মাণ করেন একটি বাস টার্মিনাল। এর পাশেই কিচেন মার্কেট (কাঁচাবাজার) স্থাপনের জন্য স্থান নির্ধারণ করে একটি প্রকল্প গ্রহণ করেন তিনি। কিন্তু সংশ্লিষ্টদের অসহযোগিতার কারণে বাস টার্মিনালটি পুরোপুরি সচল করা যায়নি। আর কতিপয় ব্যবসায়ীর কারণে ওই সময় কাঁচাবাজারটি নতুন স্থানে সরিয়ে নেওয়া যায়নি। ’

উপজেলা নির্বাহী কর্মকর্তা মো. সাহেদুল ইসলাম বলেন, ‘এখন থেকে যেসব ব্যবসায়ী এই কাঁচাবাজার এড়িয়ে পৌরসভার অলিগলির ফুটপাত দখল করে অবৈধভাবে ব্যবসা করবেন তাঁদের বিরুদ্ধে ব্যবস্থা নেওয়া হবে। ’

চকরিয়া পৌরসভার মেয়র আলমগীর চৌধুরী বলেন, ‘চকরিয়া পৌরশহরকে যান ও জনজটমুক্ত করতে কিচেন মার্কেট চালু করা হয়েছে। পর্যায়ক্রমে শহর থেকে সব ভাসমান দোকান ও কাঁচাবাজার সরিয়ে নেওয়া হবে। ’

উপজেলা চেয়ারম্যান জাফর আলম বলেন, ‘দেরিতে হলেও মেয়র আলমগীর চৌধুরী কিচেন মার্কেট বাস্তবে রূপ দেওয়ায় পৌরবাসীর সঙ্গে আমিও আনন্দিত। ’


মন্তব্য