kalerkantho

শনিবার । ৩ ডিসেম্বর ২০১৬। ১৯ অগ্রহায়ণ ১৪২৩। ২ রবিউল আউয়াল ১৪৩৮।

আলোকচিত্রে ‘মৈত্রী’

দ্বিতীয় রাজধানী ডেস্ক   

৪ সেপ্টেম্বর, ২০১৬ ০০:০০



আলোকচিত্রে ‘মৈত্রী’

শিল্পকলা একাডেমি মিলনায়তনে আলোকচিত্র প্রদর্শনী ‘মৈত্রী’। এতে বাংলাদেশ ও ভারতের ৪১ জন আলোকচিত্র সাংবাদিকের ছবি স্থান পায়। ছবি : কালের কণ্ঠ

বাংলাদেশ-ভারতের ৪১ আলোকচিত্র সাংবাদিকের তিন দিনের প্রদর্শনী ‘মৈত্রী’ গত শুক্রবার শেষ হয়েছে। চট্টগ্রাম ফটো জার্নালিস্ট অ্যাসোসিয়েশনের (সিপিজেএ) ৩০ বছর পূর্তি উপলক্ষে সিপিজেএ ও আগরতলা প্রেস ক্লাব যৌথভাবে ওই প্রদর্শনীর আয়োজন করে।

প্রদর্শনীতে সহযোগিতা করেছে চট্টগ্রামের ভারতীয় সহকারী হাই কমিশন ও চট্টগ্রাম শিল্পকলা একাডেমি। এতে চট্টগ্রামের ২২ জন এবং ভারতের ১৯ আলোকচিত্র সাংবাদিকের ৪২টি ছবি স্থান পায়।

প্রতিদিন সকাল ১০টা থেকে রাত আটটা পর্যন্ত ওই প্রদর্শনীতে বিপুলসংখ্যক দর্শনার্থীর সমাগম হয়। এ উপলক্ষে অনুষ্ঠানে বক্তারা দুই দেশের অর্থনৈতিক, বাণিজ্যিক এবং কূটনৈতিক সম্পর্ক উন্নয়নের পাশাপাশি সাংস্কৃতিক সম্পর্ক জোরদার করার ওপর গুরুত্বারোপ করেন।

গত বুধবার সন্ধ্যায় নগরের শিল্পকলা একাডেমির শিল্পাচার্য জয়নুল আবেদিন আর্ট গ্যালারিতে প্রদর্শনীর উদ্বোধন করেন চট্টগ্রামের সিটি মেয়র আ জ ম নাছির উদ্দিন। সিপিজেএ সভাপতি মসিউর রহমান বাদলের সভাপতিত্বে অনুষ্ঠানে স্বাগত বক্তব্য দেন সংগঠনটির সাধারণ সম্পাদক রাশেদ মাহমুদ ও উপদেষ্টা মো. ফারুক। অনুষ্ঠান সঞ্চলনা করেন আবৃত্তিশিল্পী রাশেদ হাসান।

মেয়র আ জ ম নাছির উদ্দিন বলেন, ‘ভারত আমাদের পরীক্ষিত বন্ধু। এখানকার কয়েকটি দল ভারত বিরোধিতা করে মানুষের মাঝে বিভ্রান্তি ছড়ায়। কিন্তু শেখ হাসিনার নেতৃত্বে আওয়ামী লীগ সরকার ভারতের সঙ্গে বন্ধুত্ব দিন দিন আরও সুদৃঢ় করতে সক্ষম হয়েছে। ’

মুক্তিযুদ্ধে ভারত তথা ত্রিপুরার অবদানের কথা স্বীকার করে মেয়র বলেন, ‘মুক্তিযুদ্ধে ভারত বন্ধু হয়ে যে সহযোগিতার হাত বাড়িয়েছিল তার জন্য আমরা কৃতজ্ঞ। যতদিন বাংলাদেশ থাকবে ততদিন আমরা সেটা স্বীকার করব। ’

অনুষ্ঠানে বিশেষ অতিথির বক্তব্যে চট্টগ্রামের জেলা প্রশাসক মেজবাহ উদ্দিন বলেন, ‘সব ভালো কাজে আমরা ভারতকে কাছে পাই। সংকটের সময়ও এই দেশ আমাদের পাশে দাঁড়ায়। ’

আগরতলা প্রেস ক্লাবের সহ-সভাপতি চিত্রা রায় বলেন, ‘আসা যাওয়ার মধ্যেই সম্পর্ক আরো ভালো হয়। দুই দেশের মধ্যে অর্থনৈতিক, কূটনৈতিক এবং বাণিজ্যিক সম্পর্ক উন্নয়নের নানা উদ্যোগ নেওয়া হয়েছে। পাশাপাশি সাংস্কৃতিক আদান প্রদানের উদ্যোগও জরুরি। ’

আগরতলা প্রেস ক্লাবের সহ-সাধারণ সম্পাদক প্রণব চক্রবর্ত্তী বলেন, ‘ফেনী নদীর উপর মৈত্রী সেতু হচ্ছে। সাবরুম সীমান্ত পর্যন্ত রেলপথ হচ্ছে। এই ধরনের উদ্যোগ দুই দেশের সম্পর্ক উন্নয়নে আরও বড় ভূমিকা রাখবে। ’

এদিকে গত শুক্রবার রাতে হোটেল পেনিনসুলায় আলোকচিত্র প্রদর্শনীর সমাপনী অনুষ্ঠানে প্রধান অতিথি ছিলেন প্রধানমন্ত্রীর তথ্য উপদেষ্টা ইকবাল সোবহান চৌধুরী। তিনি মহান মুক্তিযুদ্ধের মতো জঙ্গি প্রতিরোধেও বন্ধুপ্রতিম দেশ ভারতকে সহযোগিতার আহ্বান জানিয়ে বলেন, ‘এই চট্টগ্রামে মাস্টারদা সূর্যসেন, বীরকন্যা প্রীতিলতার স্মৃতি রয়েছে। চট্টগ্রাম আজ যা করে বাংলাদেশ তা আগামীকাল চিন্তা করে। চট্টগ্রাম সব সময় এগিয়ে থাকে। ’

অনুষ্ঠানে দৈনিক আজাদী সম্পাদক এম এ মালেক, পূর্বকোণ সম্পাদক স্থপতি তসলিমউদ্দিন চৌধুরী ও পূর্বদেশ সম্পাদক ওসমান গণি মনসুরকে সংবর্ধনা দেওয়া হয়।

অনুষ্ঠানে আরো বক্তব্য দেন চট্টগ্রামে ভারতীয় সহকারী হাই কমিশনার সোমনাথ হালদার, রূপালী ব্যাংকের পরিচালক সাংবাদিক আবু সুফিয়ান, বাংলাদেশ ফেডারেল সাংবাদিক ইউনিয়নের সহসভাপতি শহীদ উল আলম ও যুগ্ম মহাসচিব তপন চক্রবর্তী, চট্টগ্রাম প্রেস ক্লাব সভাপতি কলিম সরওয়ার ও সাধারণ সম্পাদক মহসিন চৌধুরী, চট্টগ্রাম সাংবাদিক ইউনিয়নের সভাপতি রিয়াজ হায়দার চৌধুরী প্রমুখ।


মন্তব্য