kalerkantho

মঙ্গলবার । ১৭ জানুয়ারি ২০১৭ । ৪ মাঘ ১৪২৩। ১৮ রবিউস সানি ১৪৩৮।


চকরিয়ায় ৩৩ প্রার্থী জামানত হারালেন

ছোটন কান্তি নাথ, চকরিয়া   

২৪ মার্চ, ২০১৬ ০০:০০



চকরিয়ায় ৩৩ প্রার্থী জামানত হারালেন

কক্সবাজারের চকরিয়া পৌরসভা নির্বাচনে বিএনপির মেয়র প্রার্থী নুরুল ইসলাম হায়দার জামানত ফেরত পাওয়ার মতো ভোট পেলেও সংরক্ষিত নারী কাউন্সিলর ও সাধারণ কাউন্সিলর পদে জামানত হারিয়েছেন ৩৩ জন। গৃহীত ভোটের আট ভাগের এক ভাগও ভোট না পাওয়ায় জামানত হারাতে হলো এসব প্রার্থীকে।

সংরক্ষিত নারী কাউন্সিলর পদে ১, ২ ও ৩ নম্বর ওয়ার্ডে জামানত হারিয়েছেন জোছনা আক্তার ও শিরিন আক্তার। ৪, ৫ ও ৬ নম্বর ওয়ার্ডে আট প্রার্থী জামানত হারিয়েছেন। তাঁরা হলেন কামরুন্নাহার, খতিজা বেগম, জেবুন্নেছা বেগম, জেসমিন হক জেসি, নিগার উম্মে সালমা, ফারহানা ইয়াছমিন, রেহেনা খানম ও সাঈদা ইয়াছমিন। ৭, ৮ ও ৯ নম্বর ওয়ার্ডে জামানত হারানো প্রার্থী হলেন নিগার সুলতানা বুলবুল ও হাছনা খানম।

অপরদিকে সাধারণ কাউন্সিলর পদে জামানত হারিয়েছেন ১ নম্বর ওয়ার্ডে মো. মনোহর আলম, মো. নুর হোসেন ও মো. নুরুষ শফি। ২ নম্বর ওয়ার্ডে মিজবাউল হক ও মো. সাইফুল ইসলাম। ৩ নম্বর ওয়ার্ডে আশেকুর রহমান মামুন, জসীম উদ্দিন ও মো. শফি ফকির। ৪ নম্বর ওয়ার্ডে আগে থেকে নির্বাচনী মাঠ থেকে সরে দাঁড়ানো জহিরুল ইসলাম। ৫ নম্বর ওয়ার্ডে জালাল উদ্দিন, বেলাল উদ্দিন, মো. জাফর আলম ও সাইফুল ইসলাম।

৬ নম্বর ওয়ার্ডে জালাল উদ্দিন ও সিব্বির আহমদ। ৭ নম্বর ওয়ার্ডে মো. গোলাম কাদের ও মো. হেলাল উদ্দিন। ৮ নম্বর ওয়ার্ডে জয়নাল আবেদীন ও মো. সালাহউদ্দিন এবং ৯ নম্বর ওয়ার্ডে ফরিদুল আলম ও মো. হাসান উল্লাহ কাইছার।

সহকারী রিটার্নিং কর্মকর্তা ও চকরিয়া উপজেলা নির্বাচন কর্মকর্তা মো. সাখাওয়াত হোসেন কালের কণ্ঠকে বলেন, ‘নিয়মানুযায়ী কাস্টিং ভোটের আট ভাগের এক ভাগ ভোট পেতে হবে প্রার্থীকে। এর কম ভোট পেলে জামানত থাকবে না প্রার্থীর। সেই হিসাবে সংরক্ষিত নারী কাউন্সিলর পদে তিন ওয়ার্ডে ১২ জন এবং সাধারণ কাউন্সিলর পদে ৯ ওয়ার্ডে ২১ প্রার্থী জামানত হারানোর মতো ভোট পেয়েছেন। ’


মন্তব্য