kalerkantho


জ্ঞানের আলোয় অন্ধত্বের পরাজয়

আসাদুজ্জামান দারা, ফেনী   

২২ মার্চ, ২০১৬ ০০:০০



জ্ঞানের আলোয় অন্ধত্বের পরাজয়

চট্টগ্রাম বিশ্ববিদ্যালয়ের ছাত্র শাখাওয়াত হোসেন।

অন্ধত্বকে পরাজিত করে জ্ঞানের আলোয় নিজেকে রাঙিয়ে তুলছেন এক কিশোর। তাঁর নাম শাখাওয়াত হোসেন। বয়স ২০ বছর। জন্ম থেকে অন্ধ তিনি। তাঁর বাড়ি ফেনী জেলার দাগনভূঞা উপজেলার রাজাপুর ইউনিয়নের নন্দীরগাঁওয়ে। তিনি ওই গ্রামের আশ্রাফ ভূঞা বাড়ির মৃত সাইদুল হকের ছেলে। তাঁরা চার ভাই ও তিন বোন। তাঁর বড়ভাই শাহজাহানও দৃষ্টি প্রতিবন্ধী।

শাখাওয়াত নিজের অক্ষমতায় দমে না গিয়ে জ্ঞানের আলোয় নিজেকে উদ্ভাসিত করার চেষ্টা করেন। সফলও হয়েছেন। চট্টগ্রাম বিশ্ববিদ্যালয়ের ভর্তি পরীক্ষায় দৃষ্টি প্রতিবন্ধী কোটায় অংশ নিয়ে পাস করে রাজনীতি বিজ্ঞান বিষয়ে ভর্তি হয়েছেন।

তাঁর স্বপ্ন, পড়ালেখা শেষ করে একটি চাকরি পেয়ে অভাবের সংসারের বোঝা নয়, আশীর্বাদ হয়ে উঠবেন তিনি।

শাখাওয়াত জানতে পারেন অন্ধদের পড়ালেখার সুযোগ আছে। সেই থেকে জেদ পড়ালেখা করার। পরিবার তাঁর জেদের কাছে হেরে গিয়ে তাঁকে ভর্তি করান লক্ষ্মীপুরের দালালবাজার নবীর কিশোর উচ্চ বিদ্যালয়ে। সেখানে ৮ম শ্রেণি পর্যন্ত পড়ে চলে যান গাজীপুরের জয়দেবপুরের নীলেরপাড়া উচ্চ বিদ্যালয়ে। সেখান থেকে ২০১২ সালে এসএসসি পাস করেন। এর পর একটি বেসরকারি প্রতিষ্ঠানের পৃষ্ঠপোষকতায় পাবনা সরকারি কলেজ থেকে ২০১৫ সালে এইচএসসি পাস করেন।

কালের কণ্ঠকে শাখাওয়াত বলেন, ‘অন্ধ বলে যাওয়া-আসার পথে কোনো বাসে নিতে চাইত না। বিভিন্ন স্থানে নানা প্রতিবন্ধকতার শিকার হতে হয়। প্রথম প্রথম কারো সাহায্য ছাড়া চলতে না পারলেও এখন একাই যেতে পারি যেকোনো স্থানে। ’

তাঁর বড়ভাই প্রতিবন্ধী ভাতা পেলেও শাখাওয়াত পান না। জানা গেছে, বর্তমানে চট্টগ্রামে পড়ালেখা করার জন্য পর্যাপ্ত অর্থনৈতিক সামর্থ্য না থাকায় এবং আবাসন সমস্যার কারণে নিয়মিত ক্লাস করতে পারছেন না তিনি। শাখাওয়াত চান, কোনো সরকারি অথবা বেসরকারি প্রতিষ্ঠান যেন তাঁর সাহায্যার্থে এগিয়ে আসে। যাতে তিনি সুন্দরভাবে পড়ালেখা শেষ করতে পারেন।


মন্তব্য