kalerkantho

শনিবার । ২১ জানুয়ারি ২০১৭ । ৮ মাঘ ১৪২৩। ২২ রবিউস সানি ১৪৩৮।


চকবাজারে ‘টমটম বাণিজ্য’

সৃষ্টি হচ্ছে যানজট, ঘটছে দুর্ঘটনা

নিজস্ব প্রতিবেদক   

২২ মার্চ, ২০১৬ ০০:০০



চকবাজারে ‘টমটম বাণিজ্য’

যেখানে সেখানে দাঁড়িয়ে যাত্রী ওঠানামা করে টমটম। ছবিটি চকবাজার ধুনিরপুল এলাকা থেকে তোলা। ছবি: সোহেল সরওয়ার, বাংলানিউজ২৪.কম

চট্টগ্রাম নগরের চকবাজার কে বি আমান আলী সড়ক হয়ে রাহাত্তারপুলসহ বাকলিয়াজুড়ে ‘টমটম বাণিজ্য’ চলছে। ভোর থেকে মধ্যরাত পর্যন্ত কয়েক শ টমটম অবৈধভাবে চলাচল করে সড়ক ও অলি-গলিতে। সারাক্ষণই লেগে থাকে তীব্র যানজট। আর এসব গাড়ির বেপরোয়া গতির কারণে প্রায়ই ঘটে দুর্ঘটনা। চালকের সঙ্গে পথচারীদের বাকবিতণ্ডা লেগেই থাকে।

টমটমের কারণে যানজট সৃষ্টি হওয়ার বিষয়ে জানতে চাইলে নগর পুলিশের ট্রাফিক বিভাগের (উত্তর) উপ-কমিশনার মাসুদ হাসান কালের কণ্ঠকে বলেন, ‘রাহাত্তারপুল-চকবাজার সড়কে টমটম বন্ধ করে দেওয়ার সিদ্ধান্ত হয়েছে। শিগগিরই এই সিদ্ধান্ত কার্যকর করা হবে। ’ তিনি জানান, টমটম চলাচলে কোনো ট্রাফিক পুলিশ অনিয়মের সঙ্গে যুক্ত আছেন এমন কোনো লিখিত অভিযোগ পাওয়া যায়নি। অভিযোগ পেলে ব্যবস্থা নেওয়া হবে।

রাহাত্তারপুল এলাকার বাসিন্দা তৌহিদুল ইসলাম সোহেল বলেন, ‘ঘর থেকে বের হলেই টমটমের বিপত্তিতে পড়ি। গাড়িগুলো গলি-উপগলিতেও এতো দ্রুত গতিতে চলাচল করে প্রতিদিনই চোখের সামনে কাউকে না কাউকে আহত অবস্থায় দেখতে হয়। বিশেষ করে স্কুলে বাচ্চাদের আনা-নেওয়ার সময় খুবই আতঙ্কে থাকি। ’

স্থানীয়দের অভিযোগ, পুলিশ ও ক্ষমতাসীন দলের কতিপয় নেতার মদদে মোটা অংকের চাঁদাবাজির মাধ্যমে চলছে ‘টমটম বাণিজ্য’। চকসুপার মার্কেটের সামনে দায়িত্ব পালনকারী ট্রাফিক পুলিশ প্রতিদিন ১০ টাকা করে প্রতিটি টমটম থেকে আদায় করে।

খোঁজ নিয়ে জানা যায়, যুবলীগ নেতা পরিচয়দানকারী কয়েকজন যুবকের তত্ত্বাবধানে চলছে এসব টমটম। এখানে চলাচল করতে শুরুতেই প্রতি টমটমকে দিতে হয় ১৫ থেকে ২০ হাজার টাকা। আর খরচ বাবদ প্রতিদিন ১৫০ টাকা করে দিতে হয়। এছাড়া প্রতিমাসে গাড়িপ্রতি ৬০০ টাকা দিতে হয় পুলিশের ‘টোকেন’ বাবদ।

সংশ্লিষ্টরা জানান, চকবাজার থেকে রাহাত্তারপুল লাইনে আড়াই শ টমটম চলাচল করে। মূল সড়ক ছাড়াও অলিগলিও দখলে নিয়েছে এসব যানবাহন।

উল্লেখ্য, গত বছরের ১০ আগস্ট সন্ধ্যায় কে বি আমান আলী সড়ক পার হওয়ার সময় টমটমের ধাক্কায় এক শিশু মারাত্মক আহত হয়।

এর জের ধরে উত্তেজিত জনতা কয়েকটি টমটম ভাঙ্চুর ও অগ্নিসংযোগ করে। ওই সময় থেকে সেখানে টমটম চলাচল বন্ধের জোর দাবি ওঠে। কিন্তু এতো দিনেও টমটমের দৌরাত্ম্য বন্ধ হয়নি।


মন্তব্য