সাড়ে চার হাজার কোটি টাকার নতুন-331524 | দ্বিতীয় রাজধানী | কালের কণ্ঠ | kalerkantho

kalerkantho

বুধবার । ২৮ সেপ্টেম্বর ২০১৬। ১৩ আশ্বিন ১৪২৩ । ২৫ জিলহজ ১৪৩৭


সাড়ে চার হাজার কোটি টাকার নতুন প্রকল্প

রাশেদুল তুষার   

৩ মার্চ, ২০১৬ ০০:০০



সাড়ে চার হাজার কোটি টাকার নতুন প্রকল্প

কর্ণফুলী পানি সরবরাহ প্রকল্প (ফেজ-১) শেষ হওয়ার আগেই ফেজ-২ নামে আরেকটি প্রকল্পের কাজ শুরু করতে যাচ্ছে চট্টগ্রাম ওয়াসা।

চলতি মাসে প্রায় সাড়ে চার হাজার কোটি টাকার ওই প্রকল্পের কাজ শুরু হবে। জাপানি দাতা সংস্থা জাইকা ও বাংলাদেশ সরকারের অর্থায়নে প্রকল্পটি বাস্তবায়ন হলে ২০২১ সাল নাগাদ চট্টগ্রামে পানি সরবরাহ লাইনে আরও ১৪ কোটি লিটার পানি যুক্ত হবে। ওয়াসার দাবি, নতুন এই প্রকল্প থেকে উৎপাদন শুরু হলে চট্টগ্রামবাসী দিনে রাতে ২৪ ঘণ্টা পানি পাবে।

এ উপলক্ষে কর্ণফুলী পানি সরবরাহ প্রকল্প (ফেজ-২) প্যাকেজ-১ বাস্তবায়নে গত সোমবার দক্ষিণ কোরিয়া ও জাপানভিত্তিক দুটি ঠিকাদারি প্রতিষ্ঠানের সঙ্গে চট্টগ্রাম ওয়াসার চুক্তি স্বাক্ষরিত হয়েছে। প্রকল্পটি যৌথভাবে বাস্তবায়ন করবে দক্ষিণ কোরিয়ার ঠিকাদারি প্রতিষ্ঠান কোলন গ্লোবাল করপোরেশন ও জাপানের ঠিকাদারি প্রতিষ্ঠান কোবুতা কন্সট্রাকশন কম্পানি। প্যাকেজ-১ মূল কাজ হবে নতুন পাইপলাইন সংযুক্তকরণ, পুরাতন পাইপলাইনগুলো সংস্করণ, পানি শোধনাগার নির্মাণ, নাসিরাবাদ জলাধার সমপ্রসারণ এবং হালিশহর এলিভেটেড ট্যাংক নির্মাণ।

চট্টগ্রাম ওয়াসার ব্যবস্থাপনা পরিচালক (এমডি) এ কে এম ফজলুল্লাহ বলেন, ‘কর্ণফুলী পানি সরবরাহ প্রকল্পটি (ফেজ-২) প্যাকেজ-১ বাস্তবায়নে দুটি প্রতিষ্ঠানের সঙ্গে চুক্তিমূল্য ধরা হয়েছে ৪৭৮ কোটি টাকা। এ প্রকল্পে ব্যয় হবে ৪ হাজার ৯১০ কোটি টাকা। এর মধ্যে জাইকা দেবে ৩ হাজার ৬২৩ কোটি টাকা, বাংলাদেশ সরকার দেবে ৮৪৪ কোটি টাকা। বাকি ২৩ কোটি টাকা দেবে চট্টগ্রাম ওয়াসা।’ তিনি জানান, প্রকল্পের অধীনে চট্টগ্রাম নগরীর ৫০০ কিলোমিটার পাইপলাইন প্রতিস্থাপন ও ১০০ কিলোমিটার নতুন পাইপলাইন স্থাপন করা হবে। বর্তমানের পাইপলাইনগুলো ৩০ থেকে ৫০ বছরের পুরনো।

জুনের মধ্যে কর্ণফুলী পানি সরবরাহ প্রকল্প (ফেজ-১) থেকে পানি সরবরাহ শুরু হবে বলে নগরবাসীকে আশ্বস্ত করে ওয়াসার এমডি বলেন, ‘১ হাজার ৮৪৮ কোটি টাকা ব্যয়ে কর্ণফুলী পানি সরবরাহ প্রকল্পের (ফেজ-১) কাজ প্রায় শেষের পথে। আরও আগে এ প্রকল্পের কাজ শেষ হতো। কিন্তু ২০১৩ সালে রাজনৈতিক অস্থিরতার কারণে সারাবছর আমাদের কাজ কমপ্লিট শাটডাউন ছিল। ২০১৪ সালের মার্চ মাসে আমরা পুরোদমে কাজ শুরু করলে ওই সময় আমাদের শ্রমিকদের ওপর হামলা করা হয়, বিভিন্ন সম্পদ ধ্বংস করা হয়। তার পরও আগামী জুন মাস নাগাদ কর্ণফুলী পানি সরবরাহ প্রকল্প (ফেজ-১) থেকে ওয়াসার সরবরাহ লাইনে ১৪ কোটি লিটার পানি যোগ হবে। তখন নগরীতে পানির কষ্ট অনেকটাই লাঘব হবে।’

এদিকে একটি প্রকল্প শেষ হওয়ার আগে একই নামে আরেকটি প্রকল্প শুরুর কারণ ব্যাখ্যা করতে গিয়ে এ কে এম ফজলুল্লাহ জানান, কর্ণফুলী-১ প্রকল্প বাস্তবায়নে দেরির কারণে একটা সময়ে তো জাইকা তাদের অর্থায়ন উঠিয়ে নিতে চেয়েছিল। কিন্তু তাঁদের পরে বুঝাতে সক্ষম হয়েছি, পুরনো লাইন সংস্কার এবং নতুন পাইপলাইন প্রতিস্থাপন করা না হলে এই প্রকল্প কোনো কাজে লাগবে না। তাঁরা বিষয়টির গুরুত্ব অনুধাবন করে আরও বেশি অর্থায়নে রাজি হয়েছে।

মন্তব্য