kalerkantho

ইঁদুরের পেটে করে গাঁজা-মোবাইল পৌঁছে জেলে

কালের কণ্ঠ অনলাইন   

২৬ মার্চ, ২০১৯ ১৮:৩৮ | পড়া যাবে ২ মিনিটে



ইঁদুরের পেটে করে গাঁজা-মোবাইল পৌঁছে জেলে

মরা ইঁদুর ব্যবহার করে অভিনব কায়দায় মাদক এবং অন্যান্য জিনিসপত্র পাচার হয়ে যাচ্ছিল যুক্তরাজ্যের একটি কারাগারে। অভিনব পদ্ধতিতে এভাবে মাদক পাচারের খবরে চোখ কপালে উঠেছে কারা কর্তৃপক্ষের।

জানা গেছে, মরা ইঁদুরের পেটে করে কারাগারের ভেতর পাচার করা হচ্ছিল গাঁজা, মোবাইল ফোন, সিম কার্ড, মোবাইলের চার্জার এবং নেশার ট্যাবলেট! মরা ইঁদুরের দেহে অন্যান্য মাদকের সঙ্গে এই সব জিনিসপত্র ঢুকিয়ে সেলাই করে পাঠানো হতো কারাগারে। 

যুক্তরাজ্যের ডোরসেট অঞ্চলের একটি কারাগারের ওই ঘটনা চাঞ্চল্য ছড়িয়েছে। বেশ কিছু দিন ধরে কারাগারের ভেতর কিছু সন্দেহজনক ঘটনা নজরে আসছিল কর্মকর্তাদের। তার পর মাটি খুঁড়ে তিনটি ইঁদুরের দেহের ভেতর থেকে এই সব জিনিসপত্র উদ্ধার করে পুলিশ। 

এ ঘটনায় হতভম্ব কারা কর্তৃপক্ষ। বিষয়টির তদন্তের ভার দেওয়া হয়েছে ডোরসেট পুলিশের হাতে। কিন্তু অভিনব এই পদ্ধতিতে পাচারের সঙ্গে কারা যুক্ত, সে বিষয়ে এখনো কিছু জানা যায়নি।

কারা সংলগ্ন প্রাচীরের বাইরে থেকে কারাগারের ভেতর ছুঁড়ে ফেলা হতো মরা ইঁদুরগুলো। ইঁদুরগুলোর দেহ চিরে বের হয়েছে বিশাল পরিমাণ মাদকদ্রব্য ও গাঁজা। এছাড়াও পাওয়া গেছে পাঁচটি মোবাইল ফোন, চার্জার এবং তিনটি সিম কার্ড। কারা কর্তৃপক্ষের মতে, বন্দিদের মধ্যে বিক্রির জন্য পাঠানো হতো এই সব জিনিসগুলো।

পাচারকারীরা ড্রোন, টেনিস বল বা পায়রা ব্যবহার করেও জেলের ভেতর মাদক সরবরাহ করে বলে বেশ কিছু খবর পাওয়া গিয়েছিল। ডোরসেটের কারাগার কর্তৃপক্ষ জানিয়েছে, এভাবে মাদক পাচার ঠেকাতে কারাগারের জানালাগুলো সরিয়ে ফেলার ব্যাপারে ভাবনা-চিন্তা করছেন তারা। এছাড়াও মোতায়েন করা হয়েছে অতিরিক্ত পুলিশকর্মীও।

মন্তব্য