kalerkantho

দুই হাজার গাড়িসহ সমুদ্রে ডুবে গেলো জাহাজ

কালের কণ্ঠ অনলাইন   

২০ মার্চ, ২০১৯ ২২:০৬ | পড়া যাবে ২ মিনিটে



দুই হাজার গাড়িসহ সমুদ্রে ডুবে গেলো জাহাজ

অগ্নিকাণ্ডের পর দুই হাজার গাড়ি বহনকারী একটি জাহাজ ডুবে গেছে আটলান্টিক মহাসাগরের ফ্রান্স উপকূলে। ইতালিয়ান ওই কন্টেইনার জাহাজটি ব্রাজিলে যাওয়ার পথে দুর্ঘটনার কবলে পড়ে।

ব্রিটিশ সংবাদমাধ্যম ডেইলি মেইলের প্রতিবেদনে জানানো হয়েছে, আটলান্টিক মহাসাগরে ডুবে যাওয়া ওই জাহাজটিতে বিখ্যাত গাড়ি নির্মাতা পোরশের ৩৭টি সহ অন্তত দুই হাজার গাড়ি ছিল। এতে কয়েক হাজার কোটি টাকার ক্ষয়ক্ষতি হয়েছে।

গত ১২ মার্চ ফ্রান্সের ব্রেস্ট পোর্ট থেকে ১৫০ নটিক্যাল মাইল দক্ষিণ-পশ্চিমে আটলান্টিক মহাসাগরে জাহাজটি ডুবে যায়। জাহাজটিতে ভয়াবহ রকমের আগুন লাগে ১০ মার্চ। অগ্নিকাণ্ডস্থলে সমুদ্রের গভীরতা ছিল ১৫ হাজার ফুট।

আন্তর্জাতিক সংবাদমাধ্যমগুলোর প্রতিবেদন থেকে জানা গেছে, ভয়াবহ ওই জাহাজডুবির পর ভেতরে থাকা ২৭ নাবিকের সবাইকে নিরাপদে উদ্ধার করেছে যুক্তরাজ্যের সামরিক বাহিনী। জাহাজডুবির পর পানিতে ছড়িয়ে পড়া তেল দ্রুত পরিষ্কার করার কাজটি করে ফরাসী কর্তৃপক্ষ।

জার্মানভিত্তিক বিখ্যাত গাড়ি প্রস্তুতকারী কম্পানি পোরশে নিশ্চিত করেছে, মঙ্গলবার ডুবে যাওয়া জাহাজটি পোরশে’র ৯১১-জিটি২-আরএস সিরিজের চার ধরনের মডেল বহন করছিল। মডেলগুলো একবারেই নতুন। যার খুচরা মূল্য ছিল প্রায় দুই লাখ ৯৩ হাজার ২০০ ডলার।

জাহাজডুবির ঘটনার পর জার্মানির এই গাড়ি নির্মাতা কম্পানিটি তাদের ব্রাজিলিয়ান গ্রাহকদের জানিয়েছে। দুর্ঘটনার পরই চিঠিতে গ্রাহকদের পোরশে বলে, আমরা অত্যন্ত দুঃখের সঙ্গে জানাচ্ছি, গ্রিমাল্দি গ্রুপের একটি জাহাজ আমাদের গাড়িগুলো বহন করছিল। কিন্তু জাহাজটিতে আগুন ধরে যাওয়ায় আমরা ক্ষতিগ্রস্ত হয়েছি।

কম্পানিটি আরও বলে, আশা করি শিগগিরই আপনাদের জন্য আবারও এ মডেলের গাড়ি বানাতে পারবো আমরা। আপাতত আমরা মডেলটি ডেলিভারি দিতে পারছি না বলে আমরা দুঃখিত।

জাহাজডুবির ওই ঘটনায় পোরশের ৩৭টি গাড়ি ধ্বংস হয়েছে। এছাড়া অন্যান্য বড় বড় কোম্পানির আরও অনেক গাড়ি ধ্বংস হয়। ইউরোপীয়ান গাড়ি নির্মাতা কম্পানি কোম্পানি অডি’র বেশ কিছু গাড়ি ছিল ওই জাহাজটিতে।

ব্রিটিশ প্রতিরক্ষা মন্ত্রী গেবিন উইলিয়ামসন জানিয়েছেন, জাহাজে আগুন লাগার পর ভয়াবহ পরিস্থিতি তৈরি হয়েছিল। দ্রুত জাহাজটিতে থাকা ২৭ নাবিককে নিরাপদে উদ্ধার করে সামরিক বাহিনী। এমন সহাসিকতার ব্রিটিশ সামরিক বাহিনীর প্রশংসা করেন তিনি।

মন্তব্য