kalerkantho


জুতা খুলে জোড়হাতে ক্ষমা চাইলেন বিজেপির মন্ত্রীরা!

কালের কণ্ঠ অনলাইন   

২০ ফেব্রুয়ারি, ২০১৯ ১৪:৪২



জুতা খুলে জোড়হাতে ক্ষমা চাইলেন বিজেপির মন্ত্রীরা!

ভারতের কাশ্মীরে জঙ্গিহানায় ৪০ সেনাসদস্য নিহত হওয়ার ঘটনার পর থেকে রাজনৈতিক ফায়দা লুটতে জাতীয়বাদের জিগির আরও জোরদার করেছে বিজেপি। পাকিস্তানকে জবাব দেওয়ার ইঙ্গিত থেকে সেনা জওয়ানদের শ্রদ্ধা জানানো হোক, কিংবা খোদ স্বরাষ্ট্রমন্ত্রীর কফিন কাঁধে নেওয়ার ছবিতে প্রদর্শনবাদীতার চুড়ান্ত রূপ দেখাচ্ছে ক্ষমতাসীন দলটির নেতারা। এবার সেই দলেরই দুই মন্ত্রী ও এক সাংসদ নিহত এক জওয়ানের শেষকৃত্যে জুতা পরে হাজির হয়ে জনরোষের মুখে পড়েছেন।

ভয়াবহ জঙ্গি হানার পর গত মঙ্গলবার পুলওয়ামার পিংলিশ গ্রামে জইশ-ই-মোহাম্মদ জঙ্গিদের সঙ্গে আবারও বন্দুকযুদ্ধ বেঁধে যায় ভারতীয় সেনাদের। এতে ভারতীয় সেনাবাহিনীর এক মেজরসহ ৪ জওয়ানের মৃত্যু হয়। মৃত্যু হয় আরও এক পুলিশকর্মীর। নিহত সেনা জওয়ানদের মধ্যে ছিলেন অজয় কুমার। উত্তরপ্রদেশের মেরঠের বস্মি তিরকি গ্রামের অজয় কুমারের শেষকৃত্য অনুষ্ঠানেই ঘটে এই ঘটনা। এই দুঃখজনক ঘটনায় পাড়া প্রতিবেশী, এলাকাবাসীর ভিড়ে শোকাবহ পরিবেশ ছিল গোটা এলাকায়।

এর মাঝেই নিহত সেনা জওয়ানকে শেষ শ্রদ্ধা জানাতে শ্মশানে হাজির হন কেন্দ্রীয় মন্ত্রী সত্যপাল সিংহ, উত্তরপ্রদেশের মন্ত্রী সিদ্ধার্থনাথ সিংহ এবং মেরঠের সাংসদ রাজেন্দ্র আগরওয়াল। কিন্তু শ্মশান চত্বরে তাদের দেখা যায়, সবাই জুতা পরে মাটিতে বসে রয়েছেন। ভাইরাল হওয়া এক ভিডিওর দৃশ্যে দেখা গেছে, মন্ত্রীদের পায়ে জুতা ক্ষুব্ধ হয়ে উঠেন অজয় কুমারের আত্মীয়-স্বজনরা। কয়েক জন রেগে গিয়ে মন্ত্রী-সাংসদদের জুতা খুলে বসার কথা বলেন। ক্ষোভের আঁচ পেয়ে তিন বিজেপি নেতাও জুতা খুলে ফেলেন এবং শেষ পর্যন্ত ক্ষমা চেয়ে নেন।

তবে অভিযোগের এখানেই শেষ নয়। নিহত অজয় কুমারের এলাকাবাসীর দাবি, বিজেপির এই তিন মন্ত্রী-এমপি নাকি শ্মশানে বসে খোশগল্প এবং হাসাহাসিও করছিলেন! সোশ্যাল সাইটে ভিডিওটি বর্তমানে ভাইরাল হয়ে গেছে। সচেতন ব্যবহারকারীরা বলছেন, দেশের বিপদে যখন ঐক্যবদ্ধ হওয়া প্রয়োজন; তখন এই নেতারা লোক দেখানো শোক প্রদর্শন করে রাজনৈতিক ফায়দা নেওয়ার চেষ্টা করছে। উল্লেখ্য; পুলওয়ামার ঘটনার পরের দিন বিজেপির এক এমপিকে নিহত সেনাদের লাশবাহী গাড়িতে হাসিমুখে হাত নাড়াতে দেখা গিয়েছিল।



মন্তব্য