kalerkantho


এবার মেঘালয়ে কয়লা খনিতে আটকা পড়েছেন ১৩ জন

কালের কণ্ঠ অনলাইন   

১৪ ডিসেম্বর, ২০১৮ ১৯:৪৫



এবার মেঘালয়ে কয়লা খনিতে আটকা পড়েছেন ১৩ জন

দূর থেকে দেখলে মনে হবে একাধিক ইঁদুরের গর্ত। এই গর্ত খুঁড়তে খুঁড়তেই ক্রমশ ভেতরে ঢুকে যান গ্রামবাসীরা। সেখান থেকে কয়লা তুলে আনেন।

শুক্রবারও সেই অবৈধ খনি থেকে  কয়লা তুলে আনতে গিয়েছিলেন অনেকেই। কিন্তু আর ফিরতে পারেননি। গর্তের মধ্যে পানি ভরে যাওয়ায় ১৩ জনের মৃত্যুর আশঙ্কা করছে পুলিশ।

শুক্রবার মেঘালয়ের পূর্ব জয়ন্তিয়া পাহাড় জেলা এলাকায় একটি অবৈধ কয়লা খনিতে এই দুর্ঘটনা ঘটেছে।

খনির পাশ দিয়ে একটি নদী বয়ে গেছে। একেবারে পাশেই নদী থাকায় পানির স্তর অনেকটাই উঁচু। ফলে কিছুটা মাটি খুঁড়লেই পানি উঠে আসে খনিতে।

খনির আকরিক নদীর পানিতে মিশে যাওয়ায় নদীর পানিও দূষিত হয়ে পড়ে। সে কারণে ২০১৪ সাল থেকে জাতীয় পরিবেশ আদালত এই খনি অবৈধ ঘোষণা করে। কিন্তু তা সত্ত্বেও খনন আটকানো যায়নি। গ্রামবাসীরা খনন করার যন্ত্রপাতি নিয়ে এসে নিজেরাই ছোট ছোট গর্ত (র‌্যাট হোল মাইনিং) করে আকরিক তোলেন।

শুক্রবারও কয়েকজন মিলে খনন করতে গিয়েছিলেন। প্রত্যক্ষদর্শীরা জানিয়েছেন, ভেতরে যাওয়ার কিছুক্ষণ পর থেকেই খনির মুখ পানিতে ভরে যায়। তারা আর ফিরতে পারেননি। প্রত্যক্ষদর্শীরাই পুলিশকে খবর দেন।

পূর্ব জয়ন্তিয়া পাহাড় জেলার পুলিশ সুপার বলেছেন, কয়লা তুলতে গিয়ে ভেতরে আটকে পড়ার ঘটনা নতুন নয়। উদ্ধার কাজ চলছে। যে ১৩ জন ভেতরে আটকা পড়েছেন বলে জানা গেছে, তাদের কাছে পৌঁছানোর চেষ্টা চলছে।

সম্প্রতি এই এলাকায় যত্রতত্র অবৈধ খাদানের বিরুদ্ধে সরব হন সমাজকর্মী অ্যাগনেস খারশিং। তাকে গ্রামবাসীদের হামলার মুখেও পড়তে হয়।



মন্তব্য