kalerkantho


দমকলের নতুন মাথাব্যথা শহরের বহুতল ভবন

কালের কণ্ঠ অনলাইন   

১৯ নভেম্বর, ২০১৮ ২২:৫৭



দমকলের নতুন মাথাব্যথা শহরের বহুতল ভবন

সম্প্রতি কলকাতার চৌরঙ্গিতে ‘দ্য ৪২’ বহুতল ভবনে আগুন লাগার পর দমকল বাহিনীর বেহাল দশা আরো স্পষ্ট হয়ে উঠেছে। এখন পর্যন্ত কলকাতার সর্বোচ্চ বহুতল ভবন ‘দ্য ৪২’ ৬৩ তলা বিশিষ্ট।

নির্মাণাধীন বলেই এ ঘটনায় ক্ষয়ক্ষতি তেমন হয়নি। কিন্তু বসবাস শুরু হওয়ার পর ওই আগুন লাগলে কীভাবে তা মোকাবিলা করত দমকল বাহিনী? এসব প্রশ্নের সমাধান চান খোদ দমকলের কর্মকর্তারাও।

কলকাতায় এমন প্রায় ৫০টি বহুতল ভবন রয়েছে, যেখানকার বহু ফ্ল্যাটে দমকলের সর্বোচ্চ উচ্চতার অত্যাধুনিক ল্যাডার পৌঁছাবে না। তার মধ্যে কয়েকটি নির্মাণাধীন বহুতল ভবনও রয়েছে।

এই মুহূর্তে দমকলের কাছে আছে ৬৮ মিটার লম্বা মাত্র একটি ল্যাডার। তার পর এক ধাক্কায় নেমে গেছে ৫৫ মিটারে। তার পরে ৫৪, ৫০, ৪২ এবং ৩০ মিটারের ল্যাডার রয়েছে।

আগে অপরিসর ঘিঞ্জি গলি এবং তার সঙ্গে যথাযথ অগ্নিনির্বাপণ ব্যবস্থা না থাকায় সমস্যায় পড়তে হতো দমকল বাহিনীকে। সেই সমস্যা এখনো রয়েছে। দমকলের নতুন মাথাব্যথা শহরের বহুতল ভবন।

ওই সব বহুতল ভবনে অগ্নিকাণ্ডের ঘটনা ঘটলে, কীভাবে তার মোকাবিলা করা যায়? তা নিয়ে ইতোমধ্যেই চিন্তাভাবনা শুরু হয়েছে। কেন কেনা হচ্ছে না আরো বেশি সংখ্যক এবং আরো উচ্চতার ল্যাডার?

কলকাতা দমকলের ডিজি বলেন, বেশ কিছু প্রস্তাব দমকলের পক্ষ থেকে রাজ্য সরকারের কাছে পাঠানো হয়েছে। দমকল সব রকমের পরিস্থিতির জন্য তৈরি থাকে।

গত এক থেকে দেড় দশকে মাথা তুলছে বহুতল ভবন। রাজারহাট-নিউটাউন, কলকাতা, শহরের ইএম বাইপাসের ধারে ২০ থেকে ৩০ তলা বহুতল এখন যেন জলভাত।

‘দ্য ৪২’-এর উচ্চতা দু’শ ৬৮ মিটার। আবার আনন্দপুরের একটি প্রোজেক্টের সাতটি টাওয়ারের গড় উচ্চতা একশ ৫২ মিটার। পরবর্তী ক্ষেত্রে আরো তিনটি টাওয়ার হবে সেখানে। তার উচ্চতা হবে দু’শ মিটারের বেশি। একইভাবে রুবির কাছে তৈরি হচ্ছে আরও একটি বহুতল। তার উচ্চতা হবে প্রায় একশ ৫২ মিটার।

কলকাতা এবং নিউ টাউনে ১৫০ মিটারের বেশি ১২টি বহুতল রয়েছে। সব মিলিয়ে কলকাতা, নিউটাউনে প্রায় ৫০টি বহুতল ভবনের যে উচ্চতা, সেখানে দমকলের ল্যাডার পৌঁছাবে না। পাশাপাশি, এই মুহূর্তে দমকল দপ্তরে প্রায় তিন হাজার কর্মীর অভাব রয়েছে।

সব থেকে বেশি উচ্চতার অত্যাধুনিক যে ল্যাডার রয়েছে, তা ৬৮ মিটার পর্যন্ত উচ্চতায় পৌঁছাবে। দমকলের হাতে সেটা রয়েছে মাত্র একটি।



মন্তব্য