kalerkantho


বোরকা পরতে চান না সৌদি নারীরা, শুরু অভিনব প্রতিবাদ

কালের কণ্ঠ অনলাইন   

১৭ নভেম্বর, ২০১৮ ১৯:১১



বোরকা পরতে চান না সৌদি নারীরা, শুরু অভিনব প্রতিবাদ

সৌদি আরবের নারীরা পর্দার জন্য ব্যবহৃত বিশেষ পোশাক আবায়া বা বোরকা আর পরতে চান না। এজন্য  তারা বোরকার বিরুদ্ধে অভিনব প্রতিবাদ শুরু করেছেন। যার অংশ হিসেবে তারা বোরকা উল্টো পরে ছবি তুলে তা সামাজিক যোগাযোগ মাধ্যমে পোস্ট করছেন। ব্রিটিশ সংবাদমাধ্যম দ্য গার্ডিয়ান এ খবর জানিয়েছে।

তেল সমৃদ্ধ কট্টর রক্ষণশীল দেশ সৌদি আরবে, নারীদের ওপর বিশ্বের সবচেয়ে কঠোর বিধিনিষেধ আরোপ করা হয়। ঘরের বাইরে বেরুতে হলে সৌদি নারীদের আপাদমস্তক ঢাকা কালো বোরকা পরতে হয়।

গত মার্চে সৌদি আরবের প্রভাবশালী যুবরাজ মোহাম্মদ বিন সালমান ঘোষণা দেন, ইসলামে আপাদমস্তক ঢাকা কালো পোশাক পরা বাধ্যতামূলক নয়। কিন্তু তার এই বক্তব্যে নারীদের পোশাকের ওপর বিধিনিষেধ শিথিল হয়নি। এ ব্যাপারে আনুষ্ঠানিক কোনও নির্দেশও দেওয়া হয়নি।

গত বছরের সেপ্টেম্বরে সৌদি বাদশাহ সালমান বিন আব্দুল আজিজ এক ডিক্রিতে নারীদের রাস্তায় গাড়ি চালানোর অনুমতি দেন। এছাড়া স্টেডিয়ামে বসে খেলা দেখারও অনুমতি পান সৌদি নারীরা।

এদিকে বোরকা ঠেকাতে ‘ইনসাইড-আউট আবায়া’ হ্যাশট্যাগ দিয়ে বেশ কয়েকজন সৌদি নারী সামাজিক যোগাযোগের মাধ্যমগুলোতে ছবি পোস্ট করেছেন। এটি দেশটির নারীদের পোশাকের ওপর কঠোর বিধিনিষেধের বিরুদ্ধে একটি ব্যতিক্রমী প্রতিবাদ।

সম্প্রতি মানবাধিকার কর্মী নোরা আব্দুল করিম টুইটারে লিখেন, ‘সৌদি আরবের নারীবাদীরা অনেক সৃজনশীল, তাই তারা প্রতিবাদের এই ভাষা বেছে নিয়েছে।’

তিনি আরো লিখেছেন, ‘তারা আপাদমস্তক ঢাকা আবায়া উল্টো পরে ছবি পোস্টের মাধ্যমে জোরপূর্বক পোশাকটি ব্যবহারের বিরুদ্ধে নীরব প্রতিবাদ করছেন।’

অপর এক নারী টুইটারে লেখেন, এই অনলাইন প্রতিবাদ একটি ‘নাগরিক প্রতিবাদ’।

সৌদি আরবে এখনও এমন অনেক বিষয় আছে যা পরিবাবের অনুমতি ছাড়া করতে পারেন না। তার মধ্যে রয়েছে, পাসপোর্টের আবেদন, বাইরে ভ্রমণ, বিয়ে, ব্যাংক একাউন্ট খোলা, ব্যবসা শুরু, কারাগার ত্যাগ।



মন্তব্য