kalerkantho


বিনা চিকিৎসায় একই গ্রামের সাতজনের মৃত্যু, জানে না প্রশাসন

কালের কণ্ঠ অনলাইন   

১৩ নভেম্বর, ২০১৮ ১৭:৪১



বিনা চিকিৎসায় একই গ্রামের সাতজনের মৃত্যু, জানে না প্রশাসন

উৎসবের রেশ কাটিয়ে সরকারি অফিস চালু হতেই সামনে এল মৃত্যুসংবাদ। জানা গেছে, গত ১৫ দিনে একই গ্রামের শবর সম্প্রদায়ের সাতজনের মৃত্যু হয়েছে। তাদের মধ্যে একজন নারী।

ঘটনাটি ঘটেছে ভারতের পশ্চিমবঙ্গের ঝাড়গ্রাম জেলার লালগড় ব্লকের পূর্ণাপাণি গ্রাম সংসদের জঙ্গলখাস গ্রামে। জেলা সদর থেকে দূরত্ব ২৪ কিলোমিটার।

অথচ মৃতের স্বজনরা সোমবার লিখিতভাবে লালগড়ের বিডিওর কাছে জানানোর আগপর্যন্ত একজনেরও মৃত্যুর খবর প্রশাসনের কাছে ছিল না।

মৃতের স্বজনরা বলছেন, গত কয়েক দিনে তাদের পরিবারের সাতজন বিভিন্ন রোগে আক্রান্ত হয়ে মারা গেছে। আর্থিক সাহায্যও চেয়েছেন তারা। ভবিষ্যতে আর যেন কারো মৃত্যু না হয়, প্রশাসনের কাছে সেই আবেদনও জানানো হয়েছে।

মৃত মঙ্গল শবর (২৮), কিসান শবর (৩৪), লেবু শবর (৪৬), সুধীর শবর (৬৩), সাবিত্রী শবর (৫১), পল্টু শবর (৩৩) ও লাল্টু শবরের (৩৮) প্রত্যেকেই কম-বেশি অসুস্থ ছিলেন। কয়েক জনের যক্ষ্মার চিকিৎসা হচ্ছিল। সবারই মৃত্যু হয়েছে বাড়িতে। কয়েকজন নিকটবর্তী তাড়কি উপস্বাস্থ্যকেন্দ্র থেকে ওষুধ পেতেন।

কিন্তু অভিযোগে বলা হয়েছে, নিয়মিত ওষুধ খেতেন কি না, সে ব্যাপারে তেমন নজরদারি ছিল না।

ঝাড়গ্রামের বিস্তীর্ণ এলাকা জুড়ে লোধা-শবরদের বাস। আদিবাসী জনজাতির এই মানুষদের অধিকাংশেরই এক চিলতে চাষজমিও নেই। অন্যের জমিতে মজুর খেটে কিংবা জঙ্গল থেকে কাঠ-পাতা কুড়িয়ে দিন গুজরান করেন।

ছেলেমেয়েদের স্কুলে পাঠানোর চল খুব একটা নেই। অল্পবয়সে বিয়ে, স্ত্রী-পুরুষ নির্বিশেষে নেশা করা আর পরিবার-পরিজন সম্পর্কে উদাসীনতা এই সম্প্রদায়ের সঙ্গে জড়িয়ে আছে।

 



মন্তব্য