kalerkantho


সৌদি আরবকে বয়কটের সামর্থ্য পাকিস্তানের নেই : ইমরান খান

কালের কণ্ঠ অনলাইন   

২২ অক্টোবর, ২০১৮ ২০:১৮



সৌদি আরবকে বয়কটের সামর্থ্য পাকিস্তানের নেই : ইমরান খান

সাংবাদিক জামাল খাশোগিকে হত্যার ঘটনায় সৌদি আরবের সমালোচনা করা বা আসন্ন বাণিজ্য সম্মেলন বয়কট করার সামর্থ্য এখন পাকিস্তানের নেই। পাকিস্তানের অর্থনৈতিক বিপর্যয় ঠেকাবার জন্য সৌদি আরবের ঋণ অত্যন্ত প্রয়োজন। সাংবাদিক জামাল খাশোগির হত্যায় আর সবার মতো তিনি নিজেও হতভম্ব। কিন্তু তার পক্ষে রিয়াদে অনুষ্ঠিতব্য সৌদি আরবের বিনিয়োগ সম্মেলন ‘ফিউচার ইনভেস্টমেন্ট সামিট’ বয়কট করা সম্ভব নয়। এমনটাই জানিয়ে দিলেন পাকিস্তানের প্রধানমন্ত্রী ইমরান খান। সোমবার মধ্যপ্রাচ্যের সংবাদ পর্যবেক্ষণকারী সংস্থা মিডিল ইস্ট আইকে এসব কথা বলেন ইমরান। 

সম্মেলনে অংশগ্রহণের জন্য আগামী মঙ্গলবার ইমরান খানের সৌদি আরবে যাওয়ার কথা।  নিজের দেশের অর্থনৈতিক দুরবস্থা এবং তা থেকে উত্তরণে সৌদি আরবের ঋণের প্রয়োজনীয়তার কথা জানাতে মিডিল ইস্ট আইকে ইমরান খান বলেছেন, আগামী দুই-তিন মাসের প্রয়োজন মেটাবার মতো বৈদেশিক মুদ্রাও পাকিস্তানের হাতে নেই।

সৌদি আরবের ওই বিনিয়োগ সম্মেলন ‘দাভোস ইন ডেজার্ট’ নামে খ্যাত। ২০১৮ সালে ‘ওয়ার্ল্ড ইকনোমিক ফোরামের’ সম্মেলন অনুষ্ঠিত হয়েছিল সুইজারল্যান্ডের দাভোসে। সেই সম্মেলনে বিশ্বের শীর্স্থানীয় রাজনীতিবিদ, ব্যবসায়ী ও অর্থনীতিবিদরা উপস্থিত হন। বৈশ্বিক অর্থনীতির গতিপ্রকৃতি ও প্রয়োজনীয় নীতি নির্ধারণের বিষয়ে সেখানে আলোচনা অনুষ্ঠিত হয়। রিয়াদের ‘ফিউচার ইনভেস্টমেন্ট সামিটকেও’ তেমন বড় অর্থনৈতিক সম্মেলন হিসেবে গণ্য করা হয়। 

কিন্তু জামাল খাশোগির হত্যার ঘটনার প্রেক্ষিতে বিভিন্ন বিনিয়োগকারী ও বিনিয়োগ প্রত্যাশীরা সম্মেলন বয়কটের ঘোষণা দিয়েছেন। এমন কি সম্মেলনের মিডিয়া পার্টানাররাও সরে যাওয়া ঘোষণা দিয়েছে। বয়কটের এই তালিকায় যুক্ত হয়েছেন বিভিন্ন দেশের শীর্স্থানীয় রাজনীতিবিদরাও।

সৌদি যুবরাজ মোহাম্মদ বিন সালমানের সমালোচক হিসেবে পরিচিত সাংবাদিক জামাল খাশোগি গত ২ অক্টোবর তুরস্কের ইস্তাম্বুলে অবস্থিত সৌদি কনস্যুলেটে গিয়েছিলেন। সৌদি আরব থেকে তুরস্কে পাঠানো এক দল এজেন্ট দূতাবাসের মধ্যেই খাশোগিকে হত্যা করে। 

সৌদি আরব প্রথমে জামাল খাশোগির কনস্যুলেট ভবন থেকে বের হয়ে যাওয়ার দাবি করলেও এখন বলছে, দূতাবাসের মধ্যে হাতাহাতির ঘটনায় তার মৃত্যু হয়েছে। এমন অবস্থায় নিহতের স্বজনরা মরদেহ ফেরত চাইলে তা উপস্থাপনেও অসমর্থ হয়েছে সৌদি আরব। তুরস্কের গোয়েন্দারা সূত্রে জানা গেছে, জামাল খাশোগিকে হত্যা করে তার লাশ টুকরো টুকরো করে কেটে ফেলা হয়েছে।

মিডিল ইস্ট মনিটর লিখছে, খাশোগির মৃত্যুর বিষয়ে সৌদি আরবের বক্তব্য তার কাছে বিশ্বাসযোগ্য নয়, এমন ইঙ্গিত দিয়েছেন ইমরান খান। তার ভাষ্য, ‘তুরস্কে যা হয়েছে তা বিস্ময়কর। আমি আর কী বলব? এতে আমরা সবাই হতভম্ব হয়ে পড়েছি। সৌদি আরবের সরকারকে এর সদুত্তর দিতে হবে। সৌদি আরব কি বলে তা শুনতে আমরা অপেক্ষায় থাকব। আমরা আশা করি, সবার কাছে গ্রহণযোগ্য হবে এমন কোনও ব্যাখ্যা সৌদি আরব দিতে পারবে এবং দোষীদের শাস্তি নিশ্চিতে পদক্ষেপে নেবে।’

খাশোগির হত্যার ঘটনায় পাকিস্তান ‘হতভম্ব’ হয়ে গেলেও দেশকে অর্থনৈতিক বিপর্যয় থেকে রক্ষা করতে সৌদি আরবেরর বিরুদ্ধে কোনও পদক্ষেপে অসমর্থ হওয়ার কথা জানিয়েছেন ইমরান খান। 

ইমরান খানের ভাষ্য, ‘ফিউচার ইনভেস্টমেন্ট সামিটে’ যাওয়া ছাড়া তার আর কোনও উপায় নেই। পাকিস্তানের অর্থনৈতিক দুরবস্থা এমন যে সৌদি আরবের ঋণ সহায়তা পাওয়া তাদের জন্য অপরিহার্য। ইমরান পাকিস্তানের অর্থনৈতিক দুরাবস্থার বর্ণনা দিয়ে বলেন, ‘আগামী দুই তিন মাসের আমাদানি পণ্যের মূল্য পরিশোধের জন্য প্রয়োজনীয় বৈদেশিক মুদ্রাও আমাদের কাছে নেই।’



মন্তব্য