kalerkantho


কান্দাহারের গভর্নর, গোয়েন্দাপ্রধান ও পুলিশপ্রধানকে হত্যা

কালের কণ্ঠ অনলাইন   

১৮ অক্টোবর, ২০১৮ ২৩:০৫



কান্দাহারের গভর্নর, গোয়েন্দাপ্রধান ও পুলিশপ্রধানকে হত্যা

দায়িত্বপালনরত এক দেহরক্ষীর গুলিতে আফগানিস্তানের কান্দাহার প্রদেশের গভর্নর জালমাই ওয়েসা, প্রভাবশালী নিরাপত্তা কর্মকর্তা জেনারেল আব্দুর রাজ্জাক ও স্থানীয় গোয়েন্দা প্রধান আব্দুল মমিন প্রাণ হারিয়েছেন। মার্কিন সেনা কর্মকর্তা জেনারেল অস্টিন স্কট মিলার অল্পের জন্য বেঁচে গেছেন। তবে অপর দুইজন মার্কিন সেনা কর্মকর্তা আহত হয়েছেন। 

জঙ্গি সংগঠন তালেবান হামলার দায় স্বীকার করে বিবৃতি দিয়েছে। 

কাতারভিত্তিক সংবাদমাধ্যম আল জাজিরা লিখেছে, এই ঘটনার মধ্য দিয়ে আফগানিস্তানের সবচেয়ে গুরুত্বপূর্ণ প্রদেশটি কার্যত নেতৃত্বশূন্য হয়ে পড়ল।

বৃহস্পতিবার বিকালে কান্দাহারের গভর্নর কার্যালয়ে অনুষ্ঠিত বৈঠকের পর সংশ্লিষ্টরা সেখান থেকে বের হয়ে আসছিলেন। এমন সময় দায়িত্বে নিয়োজিত দেহরক্ষী গুলি চালানো শুরু করে।

তালেবান তাদের বিবৃতিতে দাবি করেছে, তাদের লক্ষ্য ছিল আফগানিস্তানে নিয়োজিত পশ্চিমা সামরিক জোট ন্যাটো মিশনের কমান্ডার জেনারেল অস্টিন স্কট মিলার ও রাজ্জাক। তারা আফগান নিরাপত্তা বাহিনীর এক সদস্যের ছবি সংবাদমাধ্যমের কাছে পাঠিয়ে দাবি করেছে, ছবির ওই অল্প বয়সী যুবকই হামলাকারী।

আগামী শনিবার আফগানিস্তানে সংসদ নির্বাচন অনুষ্ঠিত হওয়ার কথা রয়েছে। একদিকে আফগান তালেবান নাগরিকদের ভোট দিতে না যাওয়ার বিষয়ে প্রচারণা চালাচ্ছে অন্যদিকে স্কুল শিক্ষকদের নির্বাচনি কর্মকর্তা না হতে হুমকি দিচ্ছে। এমন অবস্থায় রাজ্জাকের মৃত্যুতে আফগান সরকার অনেক বড় ধাক্কা খেল।

রাজ্জাককে মার্কিন নেতৃত্বাধীন বাহিনী আফগানিস্তানের সবচেয়ে বেশি আস্থা রাখার মতো নেতাদের একজন হিসেব দেখত। তার নেতৃত্বে কান্দাহারের পরিস্থিতির উন্নতি হচ্ছিল। তালেবানের বিরুদ্ধে ক্ষিপ্রতার সঙ্গে যুদ্ধ চালিয়ে যাওয়া রাজ্জাকের বিরুদ্ধে ২৪ বার হামলার ঘটনা ঘটেছে। গত বছর কান্দাহারে আরব আমিরাতের পাঁচ কূটনীতিকের মৃত্যু হয়েছিল যে হামলায় সে ঘটনায়ও তিনি অল্পের জন্য রক্ষা পান।

আল জাজিরা লিখেছে, আফগান নিরাপত্তা বাহিনীতে তালেবানের অনুপ্রবেশের ঘটনা আগেও ঘটেছে। তবে এবারই প্রথম তাদের হাতে একসঙ্গে এতজন শীর্ষস্থানীয় নেতার মৃত্যু হলো।



মন্তব্য