kalerkantho


হরিয়ানায় মসজিদ বানিয়েছেন জঙ্গি হাফিজ, বলছে এনআইএ

কালের কণ্ঠ অনলাইন   

১৫ অক্টোবর, ২০১৮ ১৭:৩৫



হরিয়ানায় মসজিদ বানিয়েছেন জঙ্গি হাফিজ, বলছে এনআইএ

সন্ত্রাসবাদী সংগঠন লস্কর-ই-তাইয়্যেবার টাকায় মসজিদ বানানো হয়েছে ভারতের হরিয়ানায়। দরিদ্র গ্রামগুলোতে মেয়েদের বিয়ে দিতেও দেদারমে টাকা বিলিয়ে দিচ্ছে কট্টর জঙ্গি হাফিজ সাঈদের হাতে গড়া সন্ত্রাসবাদী সংগঠন।

ওই মসজিদের ইমামকে জিজ্ঞাসাবাদ করে এ ধরনের তথ্য পেয়েছেন ভারতের জাতীয় তদন্তকারী সংস্থা (এনআইএ)। সন্ত্রাসবাদী সংগঠনের কাছ থেকে টাকা নেওয়ার দায়ে মসজিদের ইমাম মুহাম্মদ সালামন আর তার দুই সাগরেদকে গ্রেপ্তার করা হয়েছে। তাদের নাম মুহাম্মদ সেলিম ও সাজ্জাদ আবদুল ওয়ানি।

মসজিদটি বানানো হয়েছে হরিয়ানার পালওয়াল জেলার উট্টাওয়ার গ্রামে। মসজিদটির নাম 'খুলাফা-ই-রাশিদিন'। ওই মসজিদের ইমাম মুহাম্মদ সালমান জিজ্ঞাসাবাদে এনআইএ-কে জানিয়েছেন, লাহোরের একটি বেসরকারি সংস্থা (এনজিও) ‘ফালাহ-ই-ইনসানিয়াৎ ফাউন্ডেশন (এফআইএফ)’-এর কাছ থেকে তিনি ওই টাকা নিয়েছিলেন।

পাকিস্তানের ওই বেসরকারি সংস্থা এফআইএফ চালায় হাফিজ সাঈদের হাতে গড়া রাজনৈতিক সংগঠন ‘জামাত-উদ-দাওয়া (জেইউডি)’। কট্টর সন্ত্রাসবাদী সংগঠন লস্কর-ই-তাইয়্যেবা যার ছাতার তলায় রয়েছে। এফআইএফ-এরও নাম রয়েছে সন্ত্রাসবাদী সংগঠনের তালিকায়।

এনআইএ-র একজন কর্মকর্তা জানিয়েছেন, হরিয়ানার গ্রামে ওই মসজিদের ইমাম মুহাম্মদ সালমানকে জেরা করে জানা গেছে, দুবাইয়ে থাকার সময় তিনি নিয়মিত যোগাযোগ রাখতেন লস্কর জঙ্গিদের সঙ্গে।

এনআইএ-র ওই কর্মকর্তা বলেছেন, হাফিজ সাঈদের দলের চালানো ওই বেসরকারি সংস্থাটি হরিয়ানার উট্টাওয়ার গ্রামে মসজিদটি বানানোর জন্য ইমাম মুহাম্মদ সালমানকে ৭০ লাখ টাকা দিয়েছিলেন। শুধু তাই নয়, মেয়েদের বিয়ে দেওয়ার জন্যেও টাকা দেওয়া হয়েছিল ওই ইমামকে। মসজিদটি এখন কার টাকায় চলছে, আর সেই টাকা কীভাবে খরচ করা হচ্ছে, এখন আমরা তার তদন্ত করছি।



মন্তব্য